ঢাকা, সোমবার 14 November 2016 ৩০ কার্তিক ১৪২৩, ১৩ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সুবর্ণচরে গবাদিপশু ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

নোয়াখালী সংবাদদাতা : বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপ “নাডা” গত রোববার চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করার প্রভাবে সুবর্নচরের বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলে গবাদিপশু ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
নিম্নচাপ নাডার প্রভাবে সুবর্ণচরে গত শুক্রবার থেকে টানা বর্ষণে ঠান্ডাজনিত কারণে বিচ্ছিন্ন  দ্বীপাঞ্চল জাহাইজ্জার মারা যায় ২৬৭টি  গবাদিপশু এবং  ঝড়ো হ্ওায়ায় প্রায় ১২৫০০ হেক্টর জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
ক্ষতিগ্রস্ত গবাদিপশুর বাতানের মালিক নুর নবী আজাদ জানান, নিম্নচাপের প্রভাবে ঠা›ডা জনিত কারণে তার ৬০টি গবাদিপশু মারা যায়।
তিনি জানান বিচ্ছিন্ন  দ্বীপাঞ্চল জাহাইজ্জার চরে কোন পশুকিল্লা না থাকায় এবং বনদস্যুও ভূমিদস্যুদের বনাঞ্চল উজাড় করার কারণে এ বিপর্যয় নেমে আসে। এ অঞ্চলে গবাদিপশুর নিরাপদ চারণভূমি নিশ্চিত করার জোর দাবী জানান গবাদিপশু মালিকরা।
সুবর্ণচর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা জানান, নিম্নচাপের প্রভাবে ঠান্ডাজনিত কারণে উপজেলার  বিচ্ছিন্ন  দ্বীপাঞ্চল জাহাইজ্জার চরে, গোফরান উদ্দিন এর ৭০টি গরু ২০টি মহিষ,নুর নবী আজাদ এর ৯টি গরু ১১টি মহিষ ৪০টি ভেড়া, নুর উদ্দিন এর ২৫টি গরু, কামরুজ্জামান বাবলুর ১০টি গরু ও ১৩টি ভেড়া, মানিক মেম্বার এর ১২টি ভেড়া,আইয়ুব আলীর ৪২টি ভেড়া, মিলনের ১০টি ভেড়া, চৌধুরীর ৫টি গরু এবং সুশান্ত ভৌমিক এর ৩টি গরুসহ মোট ২৬৭টি গবাদিপশুর মারা যাওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা  জানান, চলতি মওসুমে নি¤œচাপের প্রভাবে ভারী বর্ষণ ও ঝড়ো হ্ওায়ায় প্রায় ১২৫০০ হেক্টর জমির ধান, খেসারীও রবি-শাকসবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়।
এর মধ্যে চাষকৃত  ৩৫০ হেক্টর জমির খেসারী ডাল সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
নিম্নচাপের প্রভাবে ক্ষয়ক্ষতি বিষয়ে সুবর্ণচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ হারুন অর রশীদ জানান, সংশ্লিষ্ট ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ