ঢাকা, বৃহস্পতিবার 17 November 2016 ৩ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১৬ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কাশ্মীর সমস্যার সমাধানে সফল হলে ট্রাম্প নোবেল পুরস্কার পাবেন! -সারতাজ আজিজ

১৬ নবেম্বর, ডন নিউজ উর্দু : প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা সারতাজ আজিজ বলেছেন, যদি আমেরিকার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করতে পারেন তাহলে তিনি নোবেল পুরস্কার পাওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। ইসলামাবাদে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সারতাজ আজিজ এ কথা বলেন।
পাকিস্তান এবং ভারতের মধ্যকার সালিশির বিষয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের উক্তি প্রসঙ্গে সারতাজ আজিজ বলেন, ‘ট্রাম্প যদি  উভয় দেশের মধ্যকার চলমান কাশ্মীরের সমস্যা সমাধানে সহযোগিতা করতে পারেন, তবে তিনি নোবেল পুরস্কারের সত্যিকারের হকদার হবেন। উল্লখ্য যে, অক্টোবরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনী প্রচারণার সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যকার চলমান সমস্যা সমাধানে সালিশের ভূমিকা পালন করবেন বলে নির্বাচনী ইশতেহারে বলেছিলেন।
কাশ্মীরের নয়া জাতীয় সংগীত
মুজাফফরাবাদে কাশ্মীরীদের জন্য নতুন জাতীয় সংগীত চালু করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, নয়া এই জাতীয় সংগীতটি ভারতের অধিকৃত কাশ্মীরীদের বর্তমান পরিস্থিতির ওপর প্রভাবিত হয়ে লেখা হয়েছে। ‘কাশ্মীর যা, পাকিস্তানও তা এ উপত্যকা এটা ভূস্বর্গ তার ভাগ্যই এখন স্বাধীনতা।’
এই শব্দগুলো তাদের নয়া সংগীতের বাক্যাংশ। এর প্রযোজক প্রসিদ্ধ অভিনেতা মঈন আখতারের ছেলে ওমর আহসান। আরকিউ জিউনস মিডিয়ার পক্ষ থেকে সংগীতটি রেকর্ড করা হয়েছে। সংগীতটি চালু করার প্রাক্কালে সংবাদ সংস্থা ডনের সঙ্গে আলোচনা করেন প্রযোজক ওমর আহসান। তিনি বলেন, ‘ভারতীয় বাহিনীর সীমাহীন বর্বরতা এবং কাশ্মীরীদের অদম্য প্রতিরোধ আমাকে কাশ্মীরীদের পক্ষে জাতীয় সংগীত লিখতে অনুপ্রাণিত করেছে।
ওমর আহসান এমবিএ করার পর বর্তমানে সাইকোলজিতে ডক্টরেট করছেন।  যখন পাকসেনা সন্ত্রাস বিরোধী প্রচারাভিযান শুরু করে তখন তিনি এর পক্ষে সাতটিরও বেশি সংগীত পরিবেশন করেন।
ওমর আহসান বলেন, ‘আমি ভারতের অধিকৃত কাশ্মীরী জনতার ওপর কেস প্যালেট এবং নির্বিচারে ফায়ারিংয়ের ছবি দেখে আমার ভেতরে তাদের জন্য মমতা জাগ্রত হয়। আর সেই তাগিদেই কাশ্মীরের স্বাধীনতা সংগ্রামের পক্ষে তাদের জাগিয়ে তুলতে একটি জাতীয় সংগীত লেখার কথা চিন্তা করি। আমি এটা ভেবে আশ্চর্য হই যে, কাশ্মীরীদের কোনো জাতীয় সংগীত নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ