ঢাকা, বৃহস্পতিবার 17 November 2016 ৩ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১৬ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ইট ভাটা বন্ধের দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) সংবাদদাতা : দিনাজপুর চিরিরবন্দর রানীরবন্দরে শিশুদের পাঠদান পরিবেশ দূষণ ও কৃষি ফসলী জমির ক্ষতি , রাস্তার গাছের ব্যাপক ক্ষতির প্রতিবাদে  আর ,এল ইট ভাটার বন্ধের দাবিতে ঘণ্টা ব্যাপী মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।
সোমবার দুপুরে রানীর বন্দর বাজারে মানববন্ধন করে এলাকাবাসী।
এলাকাবাসী সফিকুল ইসলাম বক্তব্যে বলেন  চিরিরবন্দর উপজেলায় ইটভাটার সংখ্যা ২৫টি। এর মধ্যে নির্মাণাধীন ১৪টি।  রাণীরবন্দর হইতে চিরিরবন্দর যাওয়ার রাস্তার পাশে নশরতপুর-ইছামতি মৌজায় আর এল নামে ইটভাটা তৈরী করে ইট  পোড়ানোর সকল ব্যবস্থা সম্পূর্ণ করেছে। ভাটাটিতে ইট  পোড়ানো শুরু হলে ইটভাটার পার্শ্বে ঘনজনবসতি পূর্ণ ৪টি পাড়া, উত্তর ইছামতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দিনাজপুর  জেলার ঐতিহ্য লিচু বাগান, বাঁশ বাগান, সুপারি বাগান, ৩ ফসলী কৃষি জমি, পুকুর, গাছপালা, রাস্তাঘাট চরম ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ইটভাটার কালো  ধোয়ায় স্কুলের  কোমলমতি শিশু ও বয়স্করা শ্বাসকষ্ট, হাঁপানী, নিউমোনিয়াসহ বিভিন্ন  রোগে আক্রান্ত হবে। এই আর ,এল ইট ভাটার মালিক সরকারি কোন নিয়ম নীতি না  মেনে ইচ্ছমত ইট ভাটার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।  ইট ভাটা ঘেষা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যায়লের শত শত কোমল মতি শিশুরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতি গ্রস্থ হবে বলে দাবি করেন।
এল আর ইট ভাটার মালিক রবিউল ইসলাম জানায়, ইট ভাটায় অনেক মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়েছে। পরিবেশের ছাড় পত্রের বিষয় জানতে চাইলে সে সৎ উত্তর দিতে পারেনি। সে আরো জানায় এলাকাবাসী  সফি ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেছিল। সেই চাঁদার টাকা না  দেওয়ায় সফি এলাকাবাসীদেরকে নিয়ে আন্দোলন করছে। চিরিরবন্দর উপজেলা নিবাহী অফিসারকে বিষয়টি মৌখিক ভাবে জানানো হয়েছে। কৃষি অফিসার মাহামুদুল হাসান জানান, আমি নতুন ভাটা তৈরীতে মৌখিক ভাবে বন্ধের জন্য বলেছি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফিরোজ মাহমুদ এর কথা হলে তিনি জানান, নতুন ভাটা তৈরীতে আমি কিছু জানিনা। অবৈধ ভাবে ভাটা তৈরী হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ