ঢাকা, শুক্রবার 18 November 2016 ৪ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১৭ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচক প্রধানের দায়িত্বে ট্রেভর হনস

অস্ট্রেলিয়ার অন্তর্বর্তীকালীন নির্বাচক  চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ট্রেভর হনস। রড মার্শ দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ায় নির্বাচক প্রধানের পদটি শূন্য হয়ে পড়ে। এছাড়া জাতীয় দলের সাম্প্রতিক সংকট কাটিয়ে উঠতে গ্রেগ চ্যাপেলেরও সহয়তা কামনা করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ার অতীত সাফল্যের সময়ে দীর্ঘদিন প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব পালন করেছেন অভিজ্ঞ হনস। বর্তমানে চার সদস্যের নির্বাচক প্যানেলের নেতৃত্ব দিবেন তিনি যেখানে আছেন মার্ক ওয়াহ, কোচ ড্যারেন লেহম্যান ও সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত চ্যাপেল। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া চেয়ারম্যান ডেভিড পিভার বলেছেন হনস ইতোমধ্যেই নিয়োগ গ্রহণ করে নতুন স্থায়ী চেয়ারম্যান নিয়োগের ব্যপারে সহায়তা করতে বোর্ডকে আস্বস্ত করেছেন। এই পদে যোগ্য একজনকে নিয়োগ দেয়া অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের জন্য এই মুহূর্তে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। নির্বাচক হিসেবে ট্রেভরের অতীত অভিজ্ঞতা রয়েছে। রডের পরিবর্তে আসন্ন গ্রীষ্মে স্থায়ী চেয়ারম্যান নিয়োগের আগ পর্যন্ত সেরা অস্ট্রেলিয়া দল বেছে নেবার ব্যপারে ট্রেভরের ওপর বোর্ডের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। মার্শের স্থানে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে তালিকায় এগিয়ে রয়েছেন সাবেক টেস্ট ফাস্ট বোলার জেসন গিলেস্পি ও সাবেক দুই সফল অধিনায়ক রিকি পন্টিং ও স্টিভ ওয়াহ। দক্ষিন আফ্রিকার বিপক্ষে হোবার্ট টেস্টে পরাজয়ের পরপরই অবসরপ্রাপ্ত উইকেটরক্ষক মার্শ চলতি বছর পাঁচটি টেস্ট সিরিজ পরাজয়ের তিক্ত অভিজ্ঞতাকে সাথে নিয়ে নির্বাচক প্রধানের পদ থেকে সড়ে দাঁড়ান। মঙ্গলবার হোবার্টে টেস্ট সিরিজ পরাজয় ছিল অস্ট্রেলিয়ার টানা তৃতীয় হোম টেস্ট সিরিজ পরাজয়। আগামী সপ্তাহে এডিলেডে অনুষ্ঠিত তৃতীয় ও শেষ টেস্টে প্রোটিয়ারা জয়ী হতে পারলে টেস্ট ইতিহাসে প্রথম ঘরের মাঠে হোয়াইট ওয়াশের লজ্জায় পড়বে অসিরা। ২০১৩ সালে সর্বশেষ ইংল্যান্ড ও ভারতে টানা ৬টি টেস্ট ম্যাচে পরাজিত হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। ঐ সময় দলের কোচ হিসেবে দায়িত্বরত মিকি আর্থারকে তার পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়। ১৯৯৩-২০০৬ সালে আগের মেয়াদে নির্বাচক হিসেবে দারুন সফল ছিলেন স্পিনার হনস। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে হনসের সাতটি টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। তার অধীনে অস্ট্রেলিয়া টানা ১৬টি টেস্টে জয়ের মুখ দেখে। এছাড়া ১৯৯৯ ও ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ জয়েও তার অবদান রয়েছে। ২০১৪ সালে তাকে আবারো নির্বাচক প্যানেলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। ইতোমধ্যেই লেহম্যান ঘোষণা দিয়েছেন মাত্র চারজন খেলোয়াড়- অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার, মিশেল স্টার্ক ও জোস হ্যাজেলউড ছাড়া আর কেউই শেষ টেস্টের দলে নিশ্চিত নয়। ঘরোয়া শেফিল্ড শিল্ডের ম্যাচের কারণে আগামী রোববার শেষ টেস্টের দল ঘোষণা করা হবে। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ