ঢাকা, শুক্রবার 18 November 2016 ৪ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১৭ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না ডোনাল্ড ট্রাম্পের

১৭ নবেম্বর, ওয়েবসাইট : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হবার পর থেকেই নানা আলোচনা সমালোচনার ভীতর দিয়ে নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন। নির্বাচনে জেতার পরও বিতর্কের জায়গা থেকে কিছুতেই সরে আসতে পারছেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

ইদানীং বিতর্কের রাজা বলে খেতাব পেয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিউ ইয়র্কে জন্ম নেয়া এই ব্যক্তিটি একজন ব্যবসায়ী হিসেবে দেখেছেন সাফল্যের মুখ। কিন্তু বিতর্ক নামক শব্দটি যেনো তার সাথে পুরোটাই মানানসই হিসেবে রয়ে গেছে।

১৯৪৬ সালে জন্ম নেয়া ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাবাও ছিলেন রিয়াল এস্টেট ব্যবসায়ী। তিনিও ছিলেন এই খাতে একজন সফল মানুষ। 

কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্পের রয়েছে হরেক রকম পরিচয়। ব্যবসায়ী ছাডাও তিনি মিস ইউনিভার্সের স্পন্সর ছিলেন দীর্ঘদিন। তাতে তার নামযশ অর্থ বিত্ত হয়েছে অনেক।

এপ্রেনটিস্ট নামের একটি রিয়ালিটি টিভি অনুষ্ঠানের উপস্থাপক ছিলেন তিনি। রেসলিং ম্যাচ উপস্থাপনা করেছেন। বেশ কবার নিজেকে দেউলিয়া ঘোষণা করেছেন। কিন্তু আবার উঠে দাঁড়িয়েছেন। মামলা ঠুকেছেন এবং মামলা খেযেেছন।

এখন তার রয়েছে ৫৮ তলা একটি ভবন, স্পোর্টস ক্লাব, শেয়ার বাজারে পুঁজি। সবমিলিয়ে ৯ শত কোটি ডলার সমপরিমাণ সম্পদের মালিক। 

রাজনীতিতে তার কোনো অভিজ্ঞতাই নেই এটিও তার জন্য একটা বিতর্কের বিষয়। কিন্তু তবুও যুক্তরাষ্ট্রের এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের মনোনয়ন নিয়ে জয়ী হয়েছেন। তার সম্পর্কে বলা হয়, নিজের সম্পর্কে প্রচার তিনি খুব ভালোভাবে করেন।

বিতর্কিত মন্তব্যের কারনে তিনি যেমন সেলেব্রিটির মতো মনোযোগ পাচ্ছেন তেমনি সাথে নিয়ে চলেছেন নানা বিতর্ক।

নির্বাচনের প্রচারণায় তিনি বলেছিলেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম দের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ করা উচিত। এমন বক্তব্য দিয়ে হাততালি যেমন পেয়েছেন আবার ব্যাপক সমালোচিতও হয়েছিলেন সে সময়।

সে সময় জিহাদি গোষ্ঠী আল-শাবাব তাদের একটি প্রচারণামূলক তথ্যচিত্রে ট্রাম্পের এই বক্তব্য জুড়ে দিয়েছিলো। এর পরও পিছু হটেননি, হয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর প্রেসিডেন্ট।

শুধু মুসলিম কিংবা জিহাদ নয় প্রতিবন্ধী এক সাংবাদিককে ব্যঙ্গ করেও সমালোচিত হয়েছেন। রিপাবলিকান দলের এক নারী রাজনীতিবিদকে কুৎসিত বলেছেন আবার সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের সাথে ঝগড়া করেছেন। তাছাড়া নারী নিয়ে তার অশালীন মন্তব্য তো গতানুগতিক বিষয় হিসেবেই মনে করা হয়।

প্রায নিয়মিতই এরকম নানান বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে আলোচিত এবং সমালোচিত ছিলেন নির্বাচনের আগেও এমনকি অনেকের হাসির খোরাকও ছিলেন এই ধনাঢ্য ব্যক্তিটি। সে সময় মার্কিন কমেডিয়ানরা নিয়মিত তাকে নিয়ে ঠাট্টা করতো।

আগে বেশ কয়েকবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিযেেছন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দাঁড়ানো হয়নি। তবে এবার বিতর্কের ঝুলি মাথায় নিয়েও দাঁড়িয়েছেন এবং প্রেসিডেন্ট হয়েছেন।

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ক্ষমতা আর প্রচারে ব্যাপক আগ্রহী ট্রাম্প অনেকটাই আত্মপ্রেমী। সেখান থেকেই হয়ত তার প্রেসিডেন্ট হবার স্বপ্ন।

প্রচারণা সভায় ব্যাপক প্রতিবাদ বিক্ষোভের মুখে এবং তার রিপাবলিকান প্রতিদ্বন্দী টেড ক্রুজ ও মার্কো রুবিওর সব প্রচেষ্টাকে হারিয়ে দিয়ে রিপাবলিকান দলের মনোনয়ন জয় এই দৌড়ে নেমেছিলেন আমেরিকার বিশিষ্ট ধনকুবের ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এখন প্রেসিডেন্ট পদে বিজয়ী হবার মধ্যে দিয়ে তার উত্তাল ও চিত্তাকর্ষক প্রচারণা পর্বের সমাপ্তি ঘটেছে কিন্তু সমালোচনাকে তিনি তার সঙ্গির তালিকা থেকে বাদ দিতে পারছেন না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ