ঢাকা, রোববার 20 November 2016 ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১৯ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হারের শংকায় পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক : নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে গিয়ে যে কঠিন পরীক্ষার সামনে পাকিস্তান। কিউইদের তাদেরই মাঠে ২০০ রানে অলআউট করে পাকিস্তান। কিন্তু প্রথম ইনিংসে ১৩৩ রানে গুটিয়ে যাওয়া পাকিস্তান দ্বিতীয় ইনিংসেও পড়েছে কঠিন বিপর্যয়ে। তৃতীয় দিন শেষে সফরকারীরা ৭ উইকেট হারিয়ে করে ১২৯ রান। তাতে মাত্র ৬২ রানের লিড পাওয়া পাকিস্তান এখন হারের শঙ্কায়। প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানকে বলতে গেলে একাই গুড়িয়ে দিয়েছিলেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। দ্বিতীয় ইনিংসে দায়িত্বটা নিয়েছেন ট্রেন্ট বোল্ট (১৮ রানে ৩ উইকেট) ও নাইল ওয়াগনার (২১ রানে ২ উইকেট)। এই দুই পেসারের ঝড়ে ১০৫ রানেই সফরকারীরা হারিয়েছিল ৭ উইকেট। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যর্থ সামি আসলাম। অভিষেকে নতুন কীর্তি গড়া ডি গ্র্যান্ডহোমের বলে মাত্র ৭ রান করে বিদান নেন এই ওপেনার। প্রাথমিক চাপটা অবশ্য কাটিয়ে উঠেছিল তারা আজহার আলী ও বাবর আজমের জুটিতে। দ্বিতীয় উইকেটে তারা যোগ করেন ৩৭ রান। যদিও ওয়াগনারের শিকার হয়ে বাবর (২৯) মাঠ ছাড়ার পর তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইন্।এই ওয়াগনারের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরেন ইউনিস (১)। অধিনায়ক মিসবাহ (১৩) চাপটা আরও বাড়িয়ে বিদায় নেন টিম সাউদির বলে বোল্টের হাতে ক্যাচ দিয়ে। বাকি সময়টা বোল্ট-ঝড়। কিউই এই পেসার একে একে ফিরিয়েছেন আজহার (৩১), সরফরাজ আহমেদ (২) ও মোহাম্মদ আমিরকে (৬)। আসাদ শফিক (৬*) অবশ্য দিনের বাকিটা পার করে দিয়েছেন সোহেল খানকে (২২*) সঙ্গে করে। এর আগে ৩ উইকেটে ১০৪ রান নিয়ে দিন শুরু করা নিউজিল্যান্ড অলআউট হয়ে যায় ২০০ রানে। দিনের শুরুতেই হাফসেঞ্চুরিয়ান জিত রাভালকে (৫৫) ফেরান আমির। খানিক পর হেনরি নিকোলসও (৩০) বিদায় নেন সোহেলের শিকার হয়ে। এর পর রাহাত আলীর ঝড়ে এলোমেলো হয়ে যাওয়া নিউজিল্যান্ড যেতে পারেনি বেশি দূর। রাহাত ৬২ রান খরচায় পেয়েছেন ৪ উইকেট। ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন আমির ও সোহেল। ক্রিকইনফো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ