ঢাকা, রোববার 20 November 2016 ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১৯ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

জাজিরায় আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২০ ॥ ককটেল বিষ্ফোরণ গুলী ॥ আটক ৮

শরীয়তপুর সংবাদদাতা : আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে জাজিরায় স্থানীয় আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। আহতদের জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত ৩ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। সংঘর্ষের সময় প্রায় অর্ধশতাধিক ককটেলের বিষ্ফোরন ঘটায় সংঘর্ষকারীরা। এ সময় প্রতিপক্ষের লোকেরা দুটি ঘর ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ সর্টগানের ৬ রাউন্ড ফাকা গুলী ছোঁড়ে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জাজিরা থানা পুলিশ ৮ জনকে আটক করেছে। এ নিয়ে দু’গ্রুপের মধ্যে উত্তজনা বিরাজ করায় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
আহত জাফর বেপারী, নবুয়াত বেপারী, জাজিরা থানা ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, শরীয়তপুর জেলার জাজিরা পৌরসভার টিএনটি মোড় বাজার বনিক সমিতির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ সমর্থক আব্দুস সাত্তার বেপারী ও জাজিরা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবু ফকিরের মধ্যে টিএনটি মোড় বাজার বনিক সমিতি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে গতকাল শনিবার দুপুরে আবু ফকির ও সাত্তার বেপারীর মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়। এ সময় সাত্তার বেপারীর ছেলে হৃদয় এগিয়ে গেলে রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে গুরুতর জখম করা হয়। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পরলে দু’গ্রুপের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় সংঘর্ষকারীরা অর্ধ শতাধিক ককটেল বোমার বেষ্ফোরন ঘটিয়ে ত্রাস সৃস্টি করে। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে  রেহানা বেগম, জহির, সুমন, হৃদয়, জাফর, নবুয়াত সেলিম, রানা, জিয়া, সোহেল বেপারী, ফজল ফকির আবু ফকির, বাদশা ঢালী, সোনামিয়া ফকিরসহ উভয় গ্রুপের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। আহতদের জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় হৃদয়, সুমন ও জহিরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ সময় জাজিরা পৌরসভার টিএনটি মোড় বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ সমর্থক আব্দুস সাত্তার বেপারী ও রতন বেপারীর বাড়ীতে হামলা চালিয়ে দুটি ঘর ভাংচুর ও তছনছ করে। খবর পেয়ে জাজিরা থানা পুলিশ উভয় গ্রুপকে ছত্রভঙ্গ ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ৬ রাউন্ড সর্টগানের ফাঁকা গুলী ছুঁড়ে। এ ঘটনায় জাজিরা থানা পুলিশ সংঘর্ষে জড়িত থাকা সন্দেহে ৮ জনকে  আটক করেছে।
জাজিরা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবু ফকির বলেন, আমার সর্মথক মোবারক বেপারী সকালে বাজারে সার ক্রয় করতে গেলে তাকে টিএনটি মোড় বাজার বনিক সমিতির সভাপতি সাত্তার বেপারী অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। আমি তার কাছে বিষয়টি জানতে গেলে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে লোহার রড দিয়ে আমাকে আঘাত করে। পরে তারা ককটেল বিষ্ফোরন ঘটিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়। এ নিয়ে সংঘর্ষ বাধে।
জাজিরা পৌরসভার টিএনটি মোড় বাজার বনিক সমিতির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ সমর্থক আব্দুস সাত্তার বেপারী বলেন, বাজারের কমিটি নিয়ে শুক্রবার রাতে বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান মুকুলের দোকানে বসা হয়। সেখানে নতুন কমিটি গঠন করা নিয়ে কথা হয়েছে। শনিবার সকালে আমি দোকানে যাওয়ার পর আবু ফকির বলে আমি যেভাবে বলি সেভাইে কমিটি হবে এ কথা বলেই আমার হামলা করে। আমার ছেলে এগিয়ে গেলে তাকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে ফেলে। পরে তারা ককটেল বিষ্ফোরন ঘটিয়ে আমার বাড়িঘরে হামলা চালায়।
জাজিরা থানার (ওসি) তদন্ত মোঃ এনামূল হক বলেন, টিএনটি মোড় বাজার বণিক সমিতির আধিপত্য নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় গ্রুপের কয়েকজন আহত হয়। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ৬ রাউন্ড সর্টগানের ফাকাগুলী ছুঁড়ি। এ ঘটনায় আটজনকে আটক করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ