ঢাকা, রোববার 20 November 2016 ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১৯ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সকল কোন্দল মিটিয়ে নেতা কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে -ওবায়দুল কাদের

নোয়াখালী সংবাদদাতা : আগামী ২ বছর পরে নির্বাচনে সকল কোন্দল মিটিয়ে নেতা কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। শেখ হাসিনা আমাকে যা শিখিয়ে দেন তাই বলি। আমার কথাই শেখ হাসিনার কথা। আমাকে খুশি করা নয়, দেশের মানুষকে খুশি করতে হবে। ১০টা ভালো উন্নয়ন ২টি খারাপ কাজের মাধ্যমে নষ্ট হয়ে যায়। মানুষের প্রত্যাশা বুঝতে হবে। ফুল শুকিয়ে যাবে, লেখা মুছে যাবে, তোরণ নষ্ট হয়ে যাবে কিন্তু মানুষের হৃদয়ে নাম লেখালে তা মুছে যাবে না। গতকাল শনিবার বিকাল ৩ টায় নোয়াখালী জেলা স্কুল ময়দানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ কৃর্তক আয়োজিত এক জনাকীর্ণ গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অধ্যক্ষ খাইরুল আনম সেলিম সভাপতিত্ব করেন।
মন্ত্রী আরো বলেন, দলে বসন্তের কোকিল আছে থাকবে। রাজনীতিতে লেগে থাকতে হয়। রাজনীতি হলো মানুষের ভালোবাসার বিষয়। নেতা-কর্মীদের সংশোধনের আহ্বান জানিয়ে বলেন, যে নেতা মানুষের মনের ভাষা চোখের ভাষা বুঝে না, সে নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্য না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সকল দলকে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।
এসময় তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশের উন্নয়নসহ বয়স্ক ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, বিধবা ভাতা, ইন্টারনেট, মোবাইলের ব্যবহারসহ নোয়াখালী খাল একনেকে প্রকল্প পাশ, সোনাপুর জোরালগঞ্জ সড়ক, নোয়াখালী-সোনাপুর রোড প্রশস্তসহ ডিজিটাল উন্নয়নের ফিরিস্তি দেন।
নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের নবনির্মিত ত্রিতল অফিস ভবনের ফলক উন্মোচনের সময় নোয়াখালীর কৃতি সন্তান সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন- আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে জয়ী করার জন্য আওয়ামী লীগকে একটি সুশৃংখল ও মডেল সংগঠন হিসেবে গড়ে তোলা হবে। এজন্য আমরা সাংগঠনিক সফর শুরু করেছি। এ সফরের মাধ্যমে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে জয়ী করবো, শপথ নিয়েছি। এর আগে তিনি সকাল ১১টায় জেলা শহরের অরুণ চন্দ্র বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন।
এ সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ  খালেদা জিয়ার শিখানো নিরপেক্ষ নির্বাচনের ফর্মুলার তীব্র সমালোচনা করে বলেন, তিনি ক্ষমতায় থাকতে কি এসব ফর্মুলা গঠন করেছিলেন। তিনি আজিজ মার্কা নির্বাচন কমিশন গঠন করেছিলেন। বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসলে দেশ অন্ধকারে হারিয়ে যাবে। শেখ হাসিনা সরকার আসলে দেশ উন্নয়নের রোল মডেল হয়ে যায়।
এসময় বক্তব্য রাখেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, কেন্দ্রীয় নেত্রী ফরিদুর নাহার লাইলী এমপি, বিএম মোজ্জাম্মেল হক, খালেদ মাহমুদ এমপি, হারুনুর রশিদ, অসিম কুমার উকিল, মির্জা আজম এমপি, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম এমপি, মামুনুর রশিদ কিরন এমপি, এইচএম ইবরাহিম, মোরশেদ আলম এমপি, আয়েশা আলী, জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ খাইরুল আনম, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহ্ঙ্গাীর আলম, জেলা সহ-সভাপতি সাহাব উদ্দিন, গোলাম মহি উদ্দিন লাতু, মিনহাজ আহম্মেদ জাবেদ, আতাউর রহমান মানিক, কেন্দ্রীয় ছ্ত্রালীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক এইচ এম জাকির হোসেনসহ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।
এর আগে সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে স্থানীয় এমপি ও জেলা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের নেতৃত্বে হাজার হাজার নেতা কর্মী খ- খ- মিছিল নিয়ে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ