ঢাকা, রোববার 20 November 2016 ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১৯ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বাংলাদেশের সীমান্ত খোলা রাখতে জাতিসংঘের আহ্বান

সংগ্রাম ডেস্ক : মিয়ানমারে সহিংসতার শিকার সাধারণ মানুষ যাতে আশ্রয় নিতে পারে, সে জন্য সীমান্ত খোলা রাখতে বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘের উদ্বাস্তুবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর। নতুন বার্তা
গত শুক্রবার এক বিবৃতিতে সংস্থাটি রাখাইন রাজ্যে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য মিয়ানমার সরকারের প্রতিও আহ্বান জানায়।
ইউএনএইচসিআরের বিবৃতিতে বলা হয়, চলমান সেই অভিযানে অনেক মানুষ গৃহহারা হয়েছে। আক্রান্ত মানুষের জরুরি খাদ্য, চিকিৎসা ও আশ্রয় দরকার।
বিবৃতিতে রাখাইন রাজ্যে এক লাখ ৬০ হাজার মানুষের জন্য চলা মানবিক সহায়তা কর্মসূচি নতুন করে শুরু করার আহ্বান জানানো হয়। গত ৯ অক্টোবর থেকে ওই সহায়তা কর্মসূচি বন্ধ করে দেয়া হয়।
এর আগে রাখাইন রাজ্যে সম্প্রতি মিয়ানমারের সেনাবাহিনী সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের নামে মুসলিম রোহিঙ্গাদের নিধন শুরু করে। অভিযানের নামে সেখানকার সংখ্যালঘু দেড় শতাধিক রোহিঙ্গা মুসলিম নাগরিককে হত্যা করা হয়। আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে শত শত ঘরবাড়ি। গৃহহারা হয়েছেন পুরো এলাকার কয়েক হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম। সেখানে বিদেশী সাংবাদিকদের প্রবেশেও বাধা দিচ্ছে দেশটির সেনাবাহিনী।
এদিকে অভিযান শুরুর পরপরই মিয়ানমার-সংলগ্ন সীমান্ত দিয়ে কয়েক দফায় রোহিঙ্গাদের কয়েকটি দল বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করে।
তবে প্রতিবারই সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি তাদের ফেরত পাঠিয়ে দেয়। কক্সবাজারের নাফ নদী দিয়ে এবং টেকনাফ ও উখিয়ার স্থলসীমান্ত দিয়ে গত মঙ্গলবার থেকে গতকাল শুক্রবার রাত পর্যন্ত ৩১৭ জন রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করে। যাদের ফেরত পাঠায় কোস্ট গার্ড ও বিজিবি সদস্যরা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ