ঢাকা, সোমবার 21 November 2016 ৭ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ২০ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্যাকেজ ভ্যাট পুনর্বহালের আশ্বাস এনবিআরের

স্টাফ রিপোর্টার : ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের প্যাকেজ ভ্যাটের হার কমানোর দাবি বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। প্যাকেজ ভ্যাট পূর্বের মতো করতে না পারলেও যৌক্তিক পর্যায়ে নির্ধারণ করা হবে।

গতকাল রোববার বিকেলে এনবিআরের সঙ্গে ব্যবসায়ী ঐক্য ফোরামের নেতাদের সাক্ষাৎকালে প্রতিষ্ঠানটির জ্যেষ্ঠ সদস্য মো. ফরিদ উদ্দিন এই আশ্বাস দেন। ১২ সদস্যবিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে দেন ফোরামের সভাপতি আব্দুস সালাম। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন, চকবাজার বণিক সমিতির সভাপতি সাদেক হোসেন নাইম, পাদুকা প্রস্তুতকারক সমিতির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বেলাল, এগ্রিকালচার মেশিনারি মার্চেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, অভ্যন্তরীণ পোশাক প্রস্তুতকারক মালিক সমিতির সভাপতি আলাউদ্দিন মালিক।

এনবিআর সূত্রে জানা যায়, ব্যবসায়ীদের দাবি অনুযায়ী প্যাকেজ ভ্যাট পূর্বের মতো করতে না পারলেও যৌক্তিক পর্যায়ে নির্ধারণ করা হবে। সিদ্ধান্ত যাই হোক ব্যবসায়ীদের ওই সংগঠন এনবিআরকে ১০দিন অর্থাৎ চলতি মাস পর্যন্ত সময় দিয়েছে। তা না হলে বৃহৎ আন্দোলনে যাবেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা।

প্যাকেজ ভ্যাট পুনর্বহাল ও বিভিন্ন পর্যায়ে ভ্যাট কর্মকর্তাদের হয়রানি বন্ধসহ বেশ কিছু দাবি পূরণে আগামী ২০ নবেম্বর পর্যন্ত আল্টিমেটাম দিয়েছিল ব্যবসায়ী ঐক্য ফোরাম। এরপরই এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো।

 বৈঠক শেষে এ বিষয়ে ঐক্য ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আবু মোতালেব বলেন, প্যাকেজ ভ্যাটের হার কমানো ও ভ্যাটের হয়রানি বন্ধের দাবিতে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে। এর প্রেক্ষিতে এনবিআর সদস্য চলতি মাসের মধ্যে সুরাহার আশ্বাস দিয়েছেন।

তিনি বলেন, এনবিআর আমাদের আশ্বস্ত করেছে প্যাকেজ ভ্যাটের হার কমানো হবে। সেক্ষেত্রে এটা আগের চেয়ে সামান্য বেশি হতে পারে। এজন্য এনবিআর সদস্য আমাদেরকে আগামী এক সপ্তাহ অপেক্ষা করতে বলেছেন। সে আলোকে ব্যবসায়ীরা এনবিআরকে সময় দিতে প্রস্তুত। আমরা তাকে চলতি মাস পর্যন্ত সময় দিয়েছি।

তিনি আরো বলেন, এনবিআরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্যাকেজ ভ্যাট ইস্যুতে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের সঙ্গে আলোচনা করে তারা সিদ্ধান্ত নেবে। ইতিমধ্যে তারা সরকারের উচ্চ মহলকে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সমস্যার কথা বোঝাতে সক্ষম হয়েছে। সব কিছু ঠিক থাকলে খুব শিগগিরই ইতিবাচক ফল পাওয়া যাবে।

অন্যদিকে বৈঠক শেষে সভাপতি আব্দুস সালাম বলেন, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের স্বার্থে কাজ করছে ঐক্য ফোরামের নেতারা। প্যাকেজ ভ্যাটের হার কমানো না হলে বেকায়দায় পড়বেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। অনেক পরে হলেও এনবিআর বিষয়টি উপলব্ধি করতে পেরেছে বলে মনে হয়। এ মাসের মধ্যে তারা সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।

এর আগে ব্যবসায়ী ঐক্য ফোরামের ডাকে ৩০ অক্টোবর এফবিসিসিআই কার্যালয় ঘেরাও করে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। ২ নবেম্বর ঢাকা মহানগর এলাকায় দোকানপাট বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন করা হয়। এরপরই টনক নড়ে এনবিআরের।

এনবিআর সূত্রে জানা যায়, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে এনবিআর থেকে একটি কোর কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটিতে শুল্ক নীতির জ্যেষ্ঠ সদস্য ফরিদ উদ্দিন, ভ্যাট নীতির সদস্য ব্যারিস্টার জাহাঙ্গীর হোসেন, এফবিসিসিআই’র প্রথম সহ-সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ও কয়েকজন ব্যবসায়ী নেতাকে রাখা হয়েছে। কমিটি এ পর্যন্ত ৪টি বৈঠক করেছে। তবে প্যাকেজ ভ্যাট থাকছে। কি পরিমাণ ভ্যাট বাড়িয়ে প্যাকেজ নির্ধারণ করা হবে তা এখনও বলা যাচ্ছে না। এজন্য কমিটিকে আরও বেশ কয়েকটি মিটিং করতে হবে। তবে তারা এটুকু আশ^স্ত করেছেন যে তা হবে যৌক্তিক।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ