ঢাকা, মঙ্গলবার 22 November 2016 ৮ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ২১ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বাংলাদেশের অস্তিত্ব রক্ষায় তারেককে ধারণ করতে হবে

মুহাম্মদ নূরে আলম, লন্ডন থেকে: বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫২তম জন্ম দিনে গত রোববার যুক্তরাজ্য বিএনপি ‘তারেক রহমান ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক সেমিনার লন্ডন সিটি হোটেলের কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিশিষ্টজনরা বলেন, তারেক রহমান জাতীয়তাবাদী আদর্শের ভবিষ্যত কর্ণধার। জাতীয়তাবাদী আদর্শের ভিত্তিতেই পরবর্তী বাংলাদেশ গড়ে উঠবে। তাই আজ এটা সর্বস্বীকৃত যে, তারেক রহমান মানেই বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অস্তিত্ব রক্ষার জন্যই তারেক রহমানকে ধারণ করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান তারা।
যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমেদের পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ভয়েস ফর জাস্টিসের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডক্টর হাসনাত হোসাইন এমবিই। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাহিদুর রহমান, সাংবাদিক কে এম আবু তাহের চৌধুরী, জাস্ট নিউজের সম্পাদক মুসফিকুল ফজল আনসারী, বাংলাদেশ সেন্টার ফর জার্নালিজম এন্ড ডেমোক্রেসির নির্বাহী পরিচালক সাংবাদিক এম মাহাবুবুর রহমান, যুক্তরাজ্য বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদ চৌধুরী, সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, আক্তার হোসেন, শহীদ জিয়া স্মৃতি পাঠাগার যুক্তরাজ্যের চেয়ারম্যান শরিফুজ্জামান চৌধুরী তপন রহমান, যুক্তরাজ্য বিএনপির সহ-সভাপতি প্রফেসর এম ফরিদ উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক কামাল উদ্দিন, সিনিয়র সদস্য সাদিক মিয়া, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সহকারী অধ্যাপক ডক্টর এম মুজিবুর রহমান। 
সেমিনারে তারেক রহমানের ওপরে একটি এ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। ইংরেজি ও বাংলায় দুটি প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন করা হয় তারেক রহমানের রাজনৈতিক ও পারিবারিক জীবন নিয়ে।
সভায় বক্তারা বলেন, ১৯৮৮ সালে তারেক রহমান বগুড়ার গাবতলী থানা বিএনপির সদস্য হওয়ার মধ্য দিয়ে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। ২০০১ সালের নির্বাচনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি। মূলত এ নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয়ার মাধ্যমে রাজনীতির প্রথম সারিতে তার সক্রিয় আগমন ঘটে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২০০২ সালে তারেক রহমানকে দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিবের দায়িত্ব দেয়া হয়। ২০০৯ সালের ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত বিএনপির পঞ্চম জাতীয় কাউন্সিলে তারেক রহমান সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। সর্বশেষ গত মার্চে দলের ষষ্ঠ কাউন্সিলে তাকে সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের পাশাপাশি স্থায়ী কমিটির সদস্য করা হয়। ২০০৭ সালের ৭ মার্চ তারেক রহমানকে ক্যান্টনমেন্টের মইনুল রোডের বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। আসামী করা হয় ১৩টি দুর্নীতির মামলায়।
সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মুজিবুর রহমান, যুক্তরাজ্য বিএনপির সহ-সভাপতি এম লুতফুর রহমান, মঞ্জুরুস সামাদ চৌধুরী মামুন, শেখ শামসুদ্দিন শামিম প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ