ঢাকা, শনিবার 03 December 2016 ১৯ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নিখোঁজের ৪ দিন পর রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যা থেকে ট্রলার চালকের লাশ উদ্ধার

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা ঃ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে নিখোঁজের চার দিন পর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে বালুবাহী ট্রলারের চালক মোশারফ হোসেনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় এক জনকে গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১২টার দিকে উপজেলার তারাব বাজারঘাট এলাকা থেকে ওই বালুবাহী ট্রলার চালকের লাশটি উদ্ধার করা হয়। 

মোশারফ হোসেন কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানার নয়ানগড় এলাকার মৃত সোনা মিয়া সৈয়ালের ছেলে। 

রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল ইসলাম জানান, মোশারফ হোসেন দীর্ঘ দিন ধরে তারাব এলাকায় বসবাস করে শীতলক্ষ্যা নদীতে বালুবাহী ট্রলার চালিয়ে আসছে। গত সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে নিখোঁজ হন তিনি। রাতে তারাব বাজারঘাট এলাকার শীতলক্ষ্যা নদীতে একটি লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ রাত সোয়া ১২টার দিকে লাশটি উদ্ধার করে। পরে পরিবারের লোকজন মোশারফ হোসেনের মরদেহ শনাক্ত করেন। তবে কে বা কারা মোশারফ হোসেনকে কুপিয়ে ও ভুরি কেটে হত্যার পর শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দেয়। ময়না তদন্তের জন্য মরদেহটি নারায়ণগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী ইয়াছমিন বেগম বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায় নিহত মোশারফ হোসেনের সহযোগী শুক্কুর আলী, রিয়াদ ও সাইফুল ইসলামকে আসামী করা হয়। এদের মধ্যে সাইফুল ইসলাম গ্রেফতার হয়েছেন। 

মোশারফ হোসেনের স্ত্রী ইয়াছমিন আক্তার জানান, গত সোমবার রাত ১০ থেকে সাড়ে ১০টার দিকে মোশারফ হোসেনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলেছিলেন তিনি। এসময় হঠাৎ করে একটি বিকট শব্দ হয়ে মোবাইল ফোনের লাইনটি কেটে যায় এবং মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। তার স্বামীকে নির্মম ভাবে কুপিয়ে ও ভুরি কেটে হত্যার পর পানিতে ফেলে দেয়া হয় বলে তিনি দাবি করেছেন। 

এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ