ঢাকা, রোববার 4 December 2016 ২০ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বিদেশী চ্যানেলে দেশীয় বিজ্ঞাপন বন্ধ॥ প্রত্যাহার হলো মামলাও

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশে ডাউনলিংক করা বিদেশী টেলিভিশন চ্যানেলে আর দেশীয় বিজ্ঞাপন সম্প্রচার হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ও ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান।
গতকাল শনিবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবের স্যামসন সেন্টারে দেশের টেলিভিশন চ্যানেলের বিনিয়োগকারী ও সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের বৃহত্তম ঐক্য প্ল্যাটফর্ম ‘মিডিয়া ইউনিটি’ আয়োজিত চতুর্থ সংহতি সমাবেশে তিনি এ তথ্য জানান। শুক্রবার গ্যাটকোর মিটিংয়ে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে উল্লেখ করে তিনি আরো জানান, ইতোমধ্যে বিজ্ঞাপন সম্প্রচার বন্ধ হয়ে গেছে।
এছাড়া গত ১৩ নবেম্বর গঠিত নতুন সংগঠন মিডিয়া ইউনিটির এক সভায় অসৌজন্যমূলক বক্তব্য রাখায় মাহফুজুর রহমান এবং মোজাম্মেল বাবুর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছিলেন ফরিদুর রেজা সাগর। গতকালের সংহতি সমাবেশে তিনি অংশ নিয়ে নিঃশর্তভাবে মামলাটি প্রত্যাহারের কথা জানিয়েছেন।
গত ১ ডিসেম্বর ঢাকার গুলশানে সিক্স সিজন হোটেল অনুষ্ঠিত হয় মিডিয়া ইউনিটির তৃতীয় সংহতি সমাবেশ। এখানে টিভি চ্যানেল বিনিয়োগকারীদের কথা শুনতে গিয়েছিলেন তথ্যমন্ত্রী ও শিল্পমন্ত্রী ছিলেন। সরাসরি সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানটি প্রধানমন্ত্রী দেখেছেন। এরই প্রেক্ষিতে শুক্রবার থেকে বিজ্ঞাপন বন্ধের বিষয়টি কার্যকর হয়। এতে করে অবৈধ ডাউনলিংক চ্যানেল বন্ধ তথা বিদেশী চ্যানেলে অনৈতিকভাবে দেশীয় প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন প্রচারের মাধ্যমে মানিলন্ডারিং সংক্রান্ত অরাজকতা বন্ধ হলো।
এর আগে ২৯ নবেম্বর দেশের দর্শকদের জন্য বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেলে বিজ্ঞাপন বন্ধ করতে আইনি নোটিশ দেয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী একলাছ উদ্দিন ভূঁইয়া ডাকযোগে এ নোটিশ পাঠান। নোটিশে চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে তথ্যসচিব, বাণিজ্যসচিব, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যানসহ সাতজনকে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
নোটিশে বলা হয়, দেশের দর্শকদের জন্য নিজের দেশেই বিজ্ঞাপন দেয়ার বিধি রয়েছে। কিন্তু কিছু প্রতিষ্ঠান বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচার করে অর্থপাচার করছেন এবং দেশের আর্থিক ক্ষতি করছেন। এ কারণে আইনি নোটিশ দেয়া হয়েছে। তাই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জবাব না দেয়া হলে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।
টিভি সংশ্লিষ্ট কলাকুশলীদের বিভিন্ন সংগঠনের জোট সংগঠন ফেডারেশন অব টেলিভিশন প্রফেশনালস অর্গানাইজেশনের (এফটিপিও) দাবি পূরণে চ্যানেলের বিনিয়োগকারীরা কাজ করবেন বলেও গতকালের সমাবেশে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ‘শিল্পে বাঁচি শিল্প বাঁচাই’ প্রতিপাদ্য নিয়ে ৩০ নবেম্বর অনুষ্ঠিত টেলিভিশন শিল্পী ও কলাকুশলী সমাবেশে পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরা হয়। এর মধ্যে ডাউনলিংক চ্যানেলের মাধ্যমে বিদেশি চ্যানেলে দেশীয় বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধের দাবিও ছিলো। এছাড়া ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে বিদেশী সিরিয়াল বাংলায় ডাবিং করে প্রচার বন্ধের জন্য আলটিমেটাম দিয়েছেন তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ