ঢাকা, রোববার 4 December 2016 ২০ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শিল্পায়ন ও অবকাঠামোগত দুর্যোগ থেকে সুন্দরবন রক্ষার দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ

খুলনা অফিস : ‘বিদ্যুৎ বা উন্নয়ন, তার আগে চাই সুন্দরবন’ শ্লোগান সম্বলিত ব্যানার ধরে দাঁড়িয়েছেন তরুণ পরিবেশকর্মী ও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিগণ। নগরীর শহীদ হাদিস পার্কে জাতির গৌরবের প্রতীক শহীদ মিনার’ এর পাদদেশে দাঁড়িয়ে শনিবার সকাল সাড়ে সাড়ে ১০টায় শিল্পায়ন ও অবকাঠামোগত দুর্যোগ থেকে সুন্দরবন রক্ষার দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশে খুলনার সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকায় বিদ্যুৎকেন্দ্রসহ দূষণকারী শিল্পকারখানা বন্ধ করার দাবি জানালো। উপকূলীয় জীবনযাত্রা ও পরিবেশ কর্মজোট (ক্লিন), ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ও সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক)-এর যৌথ উদ্যোগে এ প্রতিবাদ কর্মসূচি পালিত হয়। ক্লিন-টিআইবি-সনাক ওয়ার্কিং গ্রুপের আহ্বায়ক এডভোকেট কুদরত-ই-খুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিটি সঞ্চলনা করেন ক্লিন-এর ক্যাম্পেইন অফিসার  নাসিম রহমান কিরন।
প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, সুন্দরবন-সংলগ্ন এলাকাগুলোতে একের পর এক গড়ে উঠছে শিল্প-কারখানা। প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকার পাশেই রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র ছাড়াও ওরিয়ন বিদ্যুৎকেন্দ্র, সিমেন্ট ফ্যাক্টরি, এলপিজি প্ল্যান্ট, খাদ্যগুদামসহ প্রায় দেড়শ’ শিল্প প্রতিষ্ঠান সুন্দরবনের অস্তিত্বকেই হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে। সুন্দরবনের প্রতিবেশগত সঙ্কটাপন্ন এলাকা (ইসিএ)-সহ সংলগ্ন ভূমিতে দেড় শতাধিক শিল্প প্রতিষ্ঠান নির্মিত হয়েছে বা হতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে তেলবাহী ট্যাঙ্কার, ক্লিঙ্কারবাহী জাহাজ, গম, সার ও কয়লাবাহী জাহাজডুবির কারণে সুন্দরবনের অস্তিত্ব আজ হুমকির সম্মুখীন। তাছাড়া যত্রতত্র অপরিণামদর্শী দূষণকারী শিল্প-প্রতিষ্ঠান স্থাপিত হলে সুন্দরবনের উপর তার অমোচনযোগ্য বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হতে পারে। এ অবস্থায় দ্রুততর সময়ের মধ্যে পরিবেশ আইন, বন আইন ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনের আওতায় কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। বক্তারা বিদ্যুৎকেন্দ্রসহ শিল্প-কারখানা নিয়ন্ত্রণ ও বন্ধ করার দাবি জানান।
বক্তারা আরো বলেন, বাংলাদেশের অন্যান্য বনের তুলনায় সুন্দরবনের বৈশিষ্ট্য সম্পূর্ণ আলাদা। তাই সাধারণ বন সংরক্ষণের আইন দিয়ে সুন্দরবনকে সংরক্ষণ করা যাবে না। বক্তারা সুন্দরবন সংরক্ষণ ও ব্যবস্থাপনার জন্য স্বতন্ত্র আইন প্রণয়নের দাবি জানান।
প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা এমএ হালিম, মনিরুল হক বাচ্চুু, গোলাম মোস্তফা, এডভোকেট মোমিনুল ইসলাম, মাহবুব আলম প্রিন্স, সালাহ উদ্দীন টিটোল, শেখ বশির আহমেদ, মো. তরিকুল ইসলাম, জেসমিন জামান, নাদিম উল আলম, সুস্মিত সরকার, মামুনুর রশীদ, আসাদুজ্জামান, রিপা আক্তার, রিপা আহমেদ, সুবর্ণা ইসলাম দিশা, শাহীনুর ইসলাম, মাঈনুল ইসলাম সাকিব প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ