ঢাকা, রোববার 4 December 2016 ২০ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চৌহালীর বিনানুই হাট-বাজার ১ মাস ধরে বন্ধ করে দিয়েছে প্রভাবশালীরা ॥ বিপাকে চরাঞ্চলের সাড়ে তিন হাজার বাসিন্দা

বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা : সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার প্রত্যন্ত চরাঞ্চল বিনানই চরে ৩০ বছর আগে গড়ে ওঠা ঐতিহ্যবাহী বিনানুই পশ্চিম পাড়া হাট-বাজার প্রায় এক মাস ধরে বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। আধিপত্ব বিস্তারের উদ্যেশে তারা বেশ কয়েকটি দোকানে ভাঙচুর ও মালামাল লুট করেছে। একমাত্র বাজারটি বন্ধ করে দেয়ায় চরাঞ্চলের সাড়ে তিন হাজার মানুষকে দুর্বিষহ জীবন যাপন করতে হচ্ছে। এদিকে ভুক্তভোগীরা বাজার চালুসহ এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার দাবি জানিয়ে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, ইউএনও ও থানা পুলিশের নিকট আবেদন করেছেন।
জানা যায়. গত ইউপি নির্বাচনে চৌহালী উপজেলার বাঘুটিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী (বর্তমান চেয়ারম্যান) আব্দুল কাহহার সিদ্দিকীর পক্ষে কাজ না করার অজুহাতে স্বতন্ত্র প্রার্থী শুকুর মাহমুদের সমর্থকদের দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। এক পর্যায়ে গত ৬ নবেম্বর দিনে দুপুরে বিনানই হাট-বাজার প্রতিপক্ষের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর চালায় আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যানের লোকজন। এসময় তারা নগদ টাকা পয়সা ও মালামাল লুট করে দোকানপাট বন্ধ করে দিয়ে যায়। এবং ওই হাট-বাজারের ব্যবসায়ী দোকানপাটসহ ঘরদরজা ভেঙ্গে নিয়ে চেয়ারম্যানের বাড়ির কাছে সম্ভুদিয়াতে নতুন করে হাট লাগানোর ঘোষণা দেয় চেয়ারম্যানের লোকজন। একইসাথে বিনানুই পশ্চিম বাজারে কোন দোকানপাট আর খুলতে দেয়া হবে না বলেও হুমকী দেয় তারা। সেই থেকে প্রভাবশালীদের ভয়ে একমাস যাবত ওই হাট-বাজার বন্ধ রয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এদিকে চেয়ারম্যান পক্ষের হুমকিতে ওই হাট-বাজারের ওষুধ, চাল-ডাল, তেল ও লবণ, পশু খাদ্য, সিলভার ডেষ্কিসহ নিত্যপণ্যের দোকানিরা তাদের দোকান খুলতে সাহস পাচ্ছেন না। ব্যবসায় বন্ধ হওয়ায় কষ্টের মধ্যে দিনাতিপাত করছেন তারা এবং সাধারণ মানুষ দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।
স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা গাজি আব্বাস আলী জানান, চেয়ারম্যান আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে প্রায় ত্রিশ বছরের পুরোনো হাট-বাজার অকেজো করে তার বাড়ির পাশের সম্ভুদিয়াতে হাট-বাজার স্থাপনের ষড়যন্ত্র করছেন এবং চেয়ারম্যানের লোকজন প্রভাব খাটিয়ে এই হাটের ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে বিভিন্ন সময় চাঁদা তুলে অত্যাচার করছেন। বিনানুই বাজারের বিকাশ এজেন্ট ব্যবসায়ী আজিজল হক বলেন, ‘৬ নবেম্বর ঘটনার দিন চেয়ারম্যানের লোকজনকে চাঁদা দিতে অস্বীকার করাতে আমাকে মারপিট করে আহত করে প্রায় এক লক্ষ বিরানব্বই হাজার টাকাসহ মোবাইল ও ল্যাপটপ ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এবং আমার মত অনেকের দোকানে ভাংচুর চালিয়ে লুটপাট করে মালামাল নিয়ে যায়।’ এছাড়া ওই হাটের আব্দুল হালিম, আব্দুল হাই, আলমাস আলী, জাহাঙ্গীর হোসেন, আব্দুস সালাম ও দবীর উদ্দিনের দোকান সহ কমপক্ষে ৩০টি দোকানে ভাংচুর চালায়। এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ দ্রুত বিচার আদালতে মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগিরা। বিষয়টির সুরাহা চেয়ে ওই হাটে ব্যবসার সাথে সম্পৃক্ত প্রায় শ’খানেক ভুক্তভোগীর লোক সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের কাছে বিচার দাবি করেন। লতিফ বিশ্বাসের কথা উপেক্ষা করে প্রভাবশালীরা ব্যবসায়ীদের দোকান পাট খুলতে দিচ্ছেনা বলে জানান ব্যবসায়ী আজিজল হক।
বিনানুই হাট-বাজারের দোকান মালিকদের পক্ষ থেকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নিকট নিরাপত্তা ও বাজার চালু করার দাবি সংবলিত আবেদনপত্রের একটি কপি মঙ্গলবার সকালে সাংবাদিকদের দিয়ে বলেন, আমরা সংঘাত চাই না, ব্যবসা করতে চাই। এটা নিয়ে কেউ রাজনীতি করুক তা চাই না। নির্বাচনী কোন্দল তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। এ কারণে বাজার বন্ধ করে দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান জনগণের ওপর অবিচার করছেন। বাজার বন্ধ থাকায় ব্যবসায়ীদের পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে, এলাকাবাসী চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। ব্যবসায়ীরা প্রশাসনের কাছে দ্রুত বাজার চালুসহ চরের মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাপনের ব্যবস্থা করে দেয়ার জোড় দাবি জানিয়েছেন। এই ঘটনার অভিযুক্ত বাঘুটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাহহার সিদ্দীকির সাথে যোগাযোগের জন্য তার সেলফোনের ০১৭১৮৯২১৩১৬ নম্বরে কল করলে তিনি রিসিভ করেননি।
এবিষয়ে চৌহালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আকরাম হোসেন বলেন, আমার কাছে কেউ লিখিত অভিযোগ না করলেও শান্তি শৃংখলা বজায় রাখার জন্য যা করার তা আমি করেছি। উভয় পক্ষ মিলেমিশে থাকার প্রতিশ্রƒতিও দিয়েছেন।’ বলে তিনি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ