ঢাকা, সোমবার 5 December 2016 ২১ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পুরোপুরি ফিট মোস্তাফিজ যাচ্ছেন নিউজিল্যান্ডে

স্পোর্টস রিপোর্টার : নিউজিল্যান্ড সফরের আগেই ফিট হয়ে উঠেছেন ‘কাটার মাস্টার’ মোস্তাফিজুর রহমান। বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী রোববার  সংবাদমাধ্যমকে এটি নিশ্চিত করেছেন। কাঁধের অস্ত্রোপচারের পর চার মাসেরও বেশি সময় পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যে ছিলেন এ বাঁহাতি পেসার। সাসেক্সের হয়ে ইংল্যান্ডে কাউন্টি লিগে খেলতে গিয়ে কাঁধের ইনজুরিতে পড়েন মোস্তাফিজ। গত ১১ আগস্ট লন্ডনের বুপা ক্রমওয়েল হাসপাতালে তার কাঁধে অস্ত্রোপচার করেন বিখ্যাত অর্থোপেডিক সার্জন অ্যান্ড্রু ওয়ালেস। এ জন্য ঘরের মাঠে আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ড সিরিজে খেলতে পারেননি তিনি। ঘরোয়া ক্রিকেটে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ও বিপিএল মিস করেন এ পেসার। গতকাল  সকালে একাডেমি মাঠে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকা আরেক পেসার এবাদত হোসেনের সঙ্গে জুটি বেঁধে ফুল রানআপে বোলিং করেন। বোলিং দেখে ট্রেনার মারিও বিল্লাভারায়ন সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। পরে বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানান, সামর্থ্যের ৮০-৯০ ভাগ ইনটেনসিটি দিয়ে বোলিং করায় এ দুই বোলারকে ফিট ধরে নিচ্ছেন তিনি। কেননা কেবল ম্যাচ খেলতে গেলেই শতভাগ দিয়ে বোলিং করেন কোনো বোলার। তিনি জানান, ‘আজকে সকালের প্রাকটিস সেশনে মোস্তাফিজ ও এবাদত দুজনই বোলিং করেছে। ওরা দুজনই বোলিং সামর্থ্যরে ৮০-৯০ ইনটেনসিটিতে বল করেছে। আমাদের ট্রেনার খুবই খুশি এ দু’জনের অগ্রগতি নিয়ে। আনন্দের কথা হচ্ছে, ওরা দুই স্পেলে বোলিং করতে পেরেছে। কোনো কমপ্লেইন ছাড়া ৮০-৯০ শতাংশ অ্যাচিভ করেছে। এখন ৮০-৯০ শতাংশ ইনটেনসিটি অ্যাচিভ করা মানেই কিন্তু প্রায় ফিটনেস লেভেল সম্পন্ন করা।’‘প্রকৃতপক্ষে শতভাগ ইনটেনসিটিতে বল করবে যখন ম্যাচ সিচুয়েশনে যাবে। তখন তারা পুরোটা দেবে। এখানে যখন ৮০ পারসেন্ট দিচ্ছে তখন আমরা ধরে নিচ্ছি অ্যাচিভমেন্ট পুরোপুরি হয়ে গেছে।’ যোগ করেন দেবাশীষ চৌধুরী। নির্বাচকরা চাইলে আগামী ৯ ডিসেম্বর নিউজিল্যান্ড সফরের প্রস্তুতির জন্য অস্ট্রেলিয়ায় অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দিতে রওয়ানা হতে পারেন মোস্তাফিজ। অস্ট্রেলিয়ায় পাঠানো হলে দলের বাকি পেসাররা যে ধরনের অনুশীলন ফলো করবে মোস্তাফিজ সেটি করতে পারবে বলে জানান বিসিবির এ চিকিৎসক, ‘যেহেতু ৮০-৯০ পারসেন্ট ইনটেনসিটিতে বোলিং করতে পারছে আমরা ধরে নেব টিমের সাথে অন্যান্য বোলাররা যে ধরনের ড্রিলগুলো করছে, যে ধরনের প্রকটিস সিডিউল মেইনটেইন করবে, একই সিডিউল ওরাও ফলো করতে পারবে। আর কয়েকটা দিন মাত্র সময় আছে আমাদের হাতে। এর মধ্যে আরেকটা জিম সেশন ও বোলিং সেশন হবে। এরপর সিলেক্টার বা টিম ম্যানেজম্যান্ট চিন্তা করবে অস্ট্রেলিয়া বা নিউজিল্যান্ড ট্যুর করার ব্যাপারে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ