ঢাকা, শুক্রবার 9 December 2016 ২৫ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বিপিএলের ফাইনালে ঢাকা ও রাজশাহী মুখোমুখি আজ

স্পোর্টস রিপোর্টার : বিপিএলে চতুর্থ আসরের ফাইনাল আজ। আর ফাইনালে মুখোমুখি হবে ঢাকা ডায়নামাইটস ও রাজশাহী কিংস। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকেল ৫টা ৪৫ মিনিটে শুরু হবে ফাইনাল ম্যাচটি। য়দিও এই ম্যাচটি হওয়ার কথা ছিল সন্ধ্যা সোয়া ছয়টায়। তবে আধাঘন্টা এগিয়ে আনা হয়েছে। ফলে ফাইনাল ম্যাচটি শুরু হবে পোনে ছয়টায়। এর আগে একাধিক ফাইনাল খেলা আর চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অভিজ্ঞতা রয়েছে ঢাকার।

 তবে এই প্রথমবারের মতো ফাইনালে খেলবে রাজশাহী। তাই ঢাকার তারকা খেলোয়াড়দের কারনে ফাইনাল ম্যাচটি একপেশে হয়ে যায়, নাকি স্যামির দিনে বিপিএলে প্রথমবারের মত শিরোপা উৎসবে মাতে রাজশাহী  সেটা দেখার অপেক্ষা ক্রিকেট ভক্তদের। তবে সাকিব-নাসির-সাঙ্গাকারা-ব্রাভো-রাসেলে ভরা তারকাদের বিপক্ষে কঠিন লড়াই করতে হবে রাজশাহীকে। বিপিএলের চতুর্থ আসরে এবার শক্তিশালী দল বানিয়ে প্রথম থেকেই হট ফেভারিট ঢাকা। তাই ঢাকার ফাইনাল খেলাটা নিশ্চিতভাবেই ধরে রেখেছিলেন সবাই। তবে রাজশাহীকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেননি ভক্তরা। কারণ দল হিসেবে ততটা শক্তিশালী ছিলো না রাজশাহী। তারপরও শিরোপা লড়াইয়ের পরীক্ষায় নিজেদেরকে প্রমানর করেছে রাজশাহী। তবে অধিনায়ক ড্যারেন স্যামির ব্যাটিং নৈপুন্য, বুদ্ধিদীপ্ত অধিনায়কত্ব বিপিএলের ফাইনালে তুলে এনেছে রাজশাহীকে। তবে গ্রুপ পর্বে দুটি ম্যাচেই ঢাকাকে হারিয়েছে কিন্তু রাজশাহী। ফলে ফাইনালে যে কোন ঘটনাই ঘটতে পারে। অবশ্য দলগত সাফল্যে ফাইনালে উঠেছে ঢাকা। জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করে ডাবল-লীগের খেলা শেষে ১২ খেলায় ১৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষ দল হিসেবে প্রথম কোয়ালিফাইয়ারে জায়গা করে নেয় ঢাকা।

 পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় দল খুলনা টাইটান্সকে ৫৪ রানে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে ফাইনালে টিকিট পায় ঢাকা। এদিকে হার দিয়ে আসর শুরু করে শেষ পর্যন্ত দুর্দান্তভাবে ঘুড়ে দাঁড়ায় রাজশাহী। ফলে পয়েন্ট টেবিলের শেষ ও চতুর্থ দল হিসেবে প্লে-অফের টিকিট পায় রাজশাহী। এরপর এলিমিনেটর ম্যাচে স্যামির বিধ্বংসী ব্যাটিং নৈপুন্যে চিটাগাং ভাইকিংসকে ৩ উইকেটে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে জায়গা করে নেয় রাজশাহী। দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে খুলনাকে উড়িয়ে দিয়ে প্রথমবারের মত ফাইনালে উঠে রাজশাহী। এবারের আসরে সাকিবের ঢাকা মাত্র চারটি ম্যাচে হেরেছে। যার মধ্যে রাজশাহীর সঙ্গে দুবারের দেখায় দুবারই পরাজিত হয়েছে তারা। আর দুবার হেরেছে খুলনা টাইটান্সের কাছে। তবে রাজশাহীকে বেশ কস্ট করেই ফাইনালে উঠতে হয়েছে। প্রথম দিকে  বেশিরভাগ ম্যাচেই হার জুটে তাদের। তবে নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচ থেকে টানা চার জয় তুলে নিয়ে টুর্নামেন্টে নিজেদের আসন পাকা করে রাজশাহী। ফাইনাল ম্যাচে মাঠে নামার আগে শক্তিতে ঢাকা এগিয়ে থাকলেও মুখোমুখি ম্যাচের পরিসংখ্যান রাজশাহী এগিয়ে। গ্রুপ পর্বে তারা দু’বার মুখোমুখি হয়েছিল। এই দুবারের  দেখায় দু-বারই জয় তুলে নিয়েছিল স্যামির রাজশাহী। আসরের সপ্তম ম্যাচে গত ১১ নভেম্বর তারা প্রথমবারের মতো মুখোমুখি হয়েছিল। ওই ম্যাচে ঢাকা প্রথমে ব্যাট করে ১৩৮ রান করে। পরে ১৩৯ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১১ বল হাতে রেখেই জয় পায় রাজশাহী। স্যামি হার না মানা ৪৪ রানের ইনিংস  খেলে দলকে জয় এনে দেয়। 

এরপর আসরের ২১তম ম্যাচে দ্বিতীয় বারের মতো মুখোমুখি হয় দল দুটি। এ ম্যাচেও ঢাকা প্রথমে ব্যাট করে ১৮৩ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর ছুড়ে দেয় রাজশাহীকে। এ ম্যাচে মুমিনুল হক ও সামিত প্যাটেলের ব্যাটিং নৈপুণ্যে রাজশাহী ১ বল হাতে রেখেই জয় নিশ্চিত করে। তবে সাকিবের ঢাকা দলটি অন্য দলের তুলনায় অধিক তারকাবহুল। সাকিবের নেতৃত্বে এ রয়েছেন কুমার সাঙ্গাকারা, সিকুজি প্রসন্ন, আন্দ্রে রাসেল ও ডোয়াইন ব্র্যভোর মত তারকা। অন্যদিকে রাজশাহীতে ড্যারেন স্যামির অধীনে রয়েছেন  মেহেদী হাসান মিরাজ, সাব্বির রহমান, মুমিনুল হক, উমর আকমল, সামিত প্যাটেল ও  মোহাম্মদ স্যামির মত তারকারা। তাই দুই দল শক্তির বিচারে অনেকটাই সমানে সমান বলা চলে। তবে ফাইনালে নিজেদের সেরা প্রমান করেই চ্যাম্পিয়ন হতে হবে ঢাকা অথবা রাজশাহীকে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ