ঢাকা, শুক্রবার 9 December 2016 ২৫ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রাণীগঞ্জ বাজারে ফলের দোকানকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ

জগন্নাথপুর সংবাদদাতা : সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ বাজারে ফলের দোকানকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় ঘটেছে। সংঘর্ষের ঘটনায় কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। 

এ ঘটনায় মিটুর পরিবারের লোকজনেরা নিজ দোকান ভাংচুর করে মামলা নিয়ে আতংকে রয়েছেন বাজার ব্যবসায়ীসহ গন্ধর্বপুর ও বাগময়না গ্রামের বাসিন্দারা। 

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যে কোনো ধরনের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে বলে স্থানীয়রা জানান।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানায়- জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী স্থানীয় বাগময়না  গ্রামের বাসিন্দা আহমদ আলী দীর্ঘদিন যাবত রাণীগঞ্জ বাজারের মসজিদের পাশে ফলের ব্যবসা করে আসছিলেন। 

হঠাৎ করে  বাজার ব্যবসায়ী আজমল হোসেন মিটু ব্যবসায়ী আহমদ আলীকে ব্যবসাস্থল থেকে সরে যেতে বলেন। 

মসজিদের যাতায়াতের সমস্যা হচ্ছে বলেন। তার কথা না মানলে সে জগন্নাথপুর থানা পুলিশের আশ্রয় নেয়। 

জগন্নাথপুর থানার সহকারী উপ পুলিশ পরিদর্শক(এ.এস.আই) ফিরোজ মিয়ার নেতৃত্বে একদল পুলিশ দোকানীর সাথে আলাপ আলোচনা করে সমঝোতা করতে আসলে স্থানীয় ইউপি আ.লীগের সভাপতি ও বাজার ব্যবসায়ী পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুন্দর আলীর 

হস্তক্ষেপে সমঝোতা থেকে বিরত থাকে জগন্নাথপুর থানা পুলিশের অভিযান পরিচালনাকারী সদস্যরা। থানা পুলিশ বাজার ত্যাগ করলে মেতে উঠে আজমল হোসেন মিটুর পরিবারের লোকজন। 

কারো ক্ষতি সাধন না করতে পেরে বাজারের মিটন টাচ্ নামের একটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান মিটুর ভাগ্নে শাহীন মিয়া সুমন দোকান পাট ভাংচুর করেন এবং দোকানের মালামালের ক্ষতি সাধন করে। 

আহমদ আলীকে অপরাধি করে মিটু থানায় লুটপাটের মামলা করতে তাদের পরিকল্পনা করেছিল বলে বাজার ব্যবসায়ী সেনজু মিয়াসহ আরো অনেকেই জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ