ঢাকা, মঙ্গলবার 23 April 2019, ১০ বৈশাখ ১৪২৬, ১৬ শাবান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ডাচ রাজনীতিবিদ ভিল্ডার্স আদালত দোষী প্রমাণিত

অনলাইন ডেস্ক: বর্ণবাদী বৈষম্য ও ঘৃণা ছড়ানোর অভিযোগে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন নেদারল্যান্ডসের রাজনীতিবিদ সির্ট ভিল্ডার্স।তবে আমস্টার্ডামের আদালত তাকে কোনো শাস্তি দেয়নি।

এই রায়কে ‘পাগলামি’ আখ্যা দিয়ে ট্যুইট করেছেন ভিল্ডার্স। তিনি রায়ের বিরুদ্ধে আপিলেরও ঘোষণা দিয়েছেন।

বিবিসি বলছে, ভিল্ডার্সের নেতৃত্বাধীন পার্টি সামনের মার্চে অনুষ্ঠিতব্য পার্লামেন্ট নির্বাচনে জরিপে এগিয়ে রয়েছে।

২০ মাস আগে এক সমাবেশে দেশটিতে থাকা মরক্কোর অধিবাসীদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ানোর অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়।তিন সপ্তার এই বিচারিক কার্যক্রম চলাকালে পুলিশের কাছে হেগ-এ একটি স্থানীয় নির্বাচনী সমাবেশে ভিল্ডার্সের করা ওই মন্তব্যের বিরুদ্ধে ৬,৪০০টি অভিযোগ এসেছে।

বিচার চলাকালে ডাচ-মরোক্কান অধিবাসীদের কাছ থেকে ভিল্ডার্সের করা মন্তব্যের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তারা জানিয়েছেন, “নিজেদের তৃতীয় শ্রেণীর নাগরিক” বলে তাদের মনে হয়েছে।

আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় সির্ট ভিল্ডার্সের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার খানিকটা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।বিচারকেরা জানান, আইনজীবীরা তার কারাদণ্ড কিংবা জরিমানা দাবি করলেও, তাদের বিবেচনায় দোষী সাব্যস্ত করার মধ্যদিয়েই তাকে যথেষ্ঠ শাস্তি দেওয়া গেছে।এর অর্থ ভিল্ডার্সের কারাদণ্ড কিংবা জরিমানা হবে না।

এরআগে নেদারল্যান্ডসের ফ্রিডম পার্টির (পিভিভি) নেতা ভিল্ডার্স এই মামলাকে ‘হাস্যকর’ বলে অভিহিত করেছিলেন। 

ভিল্ডার্স ধারাবাহিকভাবে ইসলাম ধর্মের সমালোচনা করে আসছেন। তিনি মুসলিমদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ কোরানকে নিষিদ্ধ করারও আহ্বান জানিয়েছিলেন। পাশাপাশি নেদারল্যান্ডসের সব মসজিদ বন্ধ করে দেওয়াও আহ্বান জানিয়েছিলেন।

২০১৪ সালে পিভিভি আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি সমর্থকদের উদ্দেশে জিজ্ঞেস করেছিলেন, তারা নেদারল্যান্ডসে মরক্কোর ‘কম নাকি বেশি’ অধিবাসীকে দেখতে চান।

সমর্থকেরা তখন সমস্বরে চিৎকার করে বলেছিল, ‘কম’। তখন তিনি উত্তর দিয়েছিলেন, ‘আমরা সেটা বাস্তবায়ন করবো’।

ভিল্ডার্স তার ওই মন্তব্যকে ‘বাক স্বাধীনতা’ বলে দাবি করলেও আদালত তা গ্রহণ করেনি।এই বিচারকে ‘রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট’ বলেও অভিহিত করেছিলেন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ