ঢাকা, রোববার 11 December 2016 ২৭ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

৩০ ভরি সোনাসহ ২০ লাখ টাকা লুট দেড়ঘণ্টা তাণ্ডব চালিয়ে ডাকাতি

নরসিংদী সংবাদদাতা: দেড়ঘণ্টাব্যাপী তাণ্ডব চালিয়ে দুর্ধর্ষ ডাকাতি করে নির্বেঘ্নে পালিয়ে গেছে অর্ধশত মুখোশধারী সশস্ত্র ডাকাতের দল। বাড়ীর গৃহবধূ ও গৃহকন্যাদেরকে মারধোর করে লুট করে নিয়ে গেছে ৩০ ভরি স্বর্ণালংকারসহ কমবেশী ২০ লাখ টাকার মালামাল। ডাকাতদের বেধড়ক পিটুনীতে মিলি নামে এক গৃহকন্যাসহ ৩ জন আহত হয়েছে। গত বুধবার দিবাগত রাতে পলাশ উপজেলার পারুলিয়া গ্রামের মৃত নুরু মাস্টারের বাড়ীতে দুর্ধর্ষ ডাকাতিটি সংঘটিত হয়েছে। এই ডাকাতির খবর ছড়িয়ে পড়ার পর গ্রামের মানুষের মধ্যে ডাকাত আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। সার্বক্ষণিক উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে দিন গুজরান করছে গ্রামের সাধারণ মানুষ।
গ্রামবাসীরা জানিয়েছে পারুলিয়া গ্রামের মরহুম নুরু মাস্টারের ছেলে সবুজ ও শাকিল, রাসেল ও জনি নামে ৪ ভাই সিঙ্গাপুরে প্রবাসী জীবন যাপন করে। কিছুদিন পূর্বে শাকিল নাম এক ভাই দেশে এসে বিয়ে করে বউকে বাড়ীতে রেখে পুনরায় সিঙ্গাপুর কর্মস্থলে চলে যায়। বুধবার রাত অনুমান আড়াইটায় কমবেশী অর্ধশত মুখোশধারী ডাকাত একটি নিরব মিছিল নিয়ে নূরু মাস্টারের বাড়ীতে উপস্থিত। ডাকাতরা প্রথমে বাড়ীর কলাপসিবল গেইট ভেঙে বারান্দায় ঢুকে। পরে তারা শাবল দিয়ে কাঠের দরজা ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করে বাড়ীর গৃহবধু ও গৃহকন্যাদেরকে অস্ত্রের মুখে জিম্মী করে ফেলে। পরে ডাকাতরা বাড়ীর লোকজনের কাছে আলমিরার চাবি দাবী করলে প্রবাসী ছেলেদের বউরা প্রাণের ভয়ে চাবি দিয়ে দেয়। ডাকাত চাবি নিয়ে আলমীরা খুলে ৩০ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ৮০ হাজার টাকা, ৮টি বিদেশী মোবাইল সেট, কাপড়-চোপড়, ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রী লুট করতে থাকে। এ সময় নূরু মাস্টারের কন্যা মিলি ডাকাতদের বাধা দিলে ডাকাতরা তাকে বেধড়ক মারধোর করে। এতে সে রক্তাক্ত জখম হয়। এসময় বাড়ীর লোকজন চিৎকার করতে থাকলে দীঘ দেড় ঘণ্টার ডাকাতি মিশন শেষ করে ডাকাতরা বিনা বাধায় পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে সকালে পলাশ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
এব্যাপারে পলাশ থানার ওসির সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ