ঢাকা, রোববার 11 December 2016 ২৭ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রামগঞ্জে বিনা চিকিৎসায় মারা গেলেন গর্ভজাত সন্তান ও তার মা!

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতা: জেলার রামগঞ্জ উপজেলার সোনাপুর গ্রামের উত্তর সোনাপুর মুন্সী বাড়ীর নূর আলমের মেয়ে তিন সন্তানের জননী শামসুন্নাহার (৩০) ও তার গর্ভজাত সন্তান অসুস্থ হয়ে না স্বামীর নির্যাতনে মারা গেছে তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বাড়ীর লোকজন।
অপরদিকে মৃতের ভাই জানিয়েছেন, টাকা না থাকায় বিনা চিকিৎসায় মারা গেছে তার বোন।
ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে  বেশ কিছু লোক উঠেপড়ে লেগেছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানায়, সোনাপুর গ্রামের উত্তর সোনাপুর মুন্সী বাড়ীর নূর আলমের কন্যা শামসুন্নাহারকে পারিবারিকভাবে বিয়ে দেয়া হয় উপজেলার ৩ নম্বর ভাদুর ইউনিয়নের কেথুড়ী গ্রামের আন্তিরবাড়ীর নুর ইসলামের ছেলে মোঃ সুমনের কাছে।
বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময়ে মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে বাবা নুর আলম দফায় দফায় জামাই সুমনকে নগদ টাকাসহ ঘরের আসবাবপত্র প্রদান করলেও স্বামী সুমন শামসুন্নাহারকে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন অব্যাহত রাখতো।
এমনকি মা-বাবার সাথে শামসুন্নাহারের সব যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় স্বামী মোঃ সুমন। বর্তমানে বড় ছেলে জয় (৮), শামীম (৬) ও সুমাইয়া (২) নামের তাদের তিন সন্তান রয়েছে।
বিগত তিনমাস পূর্বে স্ত্রী শামসুন্নাহার ও সন্তানকে নিয়ে স্বামী মোঃ সুমন ঢাকায় চলে যায়।
সেখানে গিয়ে বাড়ীর সাথে যোগাযোগ পুরোপুরি বন্ধ করে দেয় সে।
এব্যপারে মৃত শামসুন্নাহারের স্বামী মোঃ সুমন জানান, আমি আমার স্ত্রীর মৃত্যু সংবাদ পেয়েছি সকাল সাড়ে ৯টায়।
স্যার, আমি ঢাকা থেকে বাড়ী আসতেছি আপনারা থাকেন।
রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ তোতা মিয়া জানান, আমাদের কাছে এ ব্যাপারে মেয়ের আত্মীয়স্বজনের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। যদি অভিযোগ পাই তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ