ঢাকা, রোববার 11 December 2016 ২৭ অগ্রহায়ন ১৪২৩, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আদমদীঘিতে জমে উঠেছে শীত বস্ত্রের কেনা-কাটা

আদমদীঘি (বগুড়া) সংবাদদাতা: শীতের প্রকোপ না বাড়লেও শীতের আগাম প্রস্তুতি হিসেবে বগুড়ার আদমদীঘিতে শীত বস্ত্রের কেনা-কাটা শুরু হয়েছে পুরো দমে। বিশেষ করে শীত বস্ত্রের পুরাতন কাপড়ের ব্যবসা জমে উঠতে শুরু করেছে। পুরাতন শীত বস্ত্রের পাশপাশি তৈরি জ্যাকেট ব্যবসায় চলছে দারুন রমরমা বেচা বিক্রি। শীত পড়তে শুরু করেছে উত্তর জনপদের এ অঞ্চলে। অনুভূত হচ্ছে হিমেল হাওয়া ও হালকা কুয়াশা। সন্ধ্যা শুরু হওয়ার সাথে সাথে শুরু হয় কুয়াশা। ধীরে ধীরে ঢেকে ফেলে জনজীবন। পুরাতন শীত বস্ত্রের দাম গত বারের তুলনায় এবার কিছুটা বেড়েছে। তারপরও নতুনের চেয়ে তুলনামূলক দাম কিছুটা কম বলে শহর, গ্রামের সব শ্রেণীর মানুষ শীতের পোশা কিনছে।
সরেজমিনে শহরের রেলগেট এলাকার হকার্স মার্কেট ও পাইকারি বাজার ঢাকাপট্টি ঘুরে দেখা গেছে, আমদানিকৃত পুরানো শীত বস্ত্রের দোকান গুলোতে ভর করছেন ক্রেতারা। তবে ক্রেতারা বলছেন, গতবারের তুলনায় কাপড়ের দাম এবার চড়া। গতবার বাচ্চাদের যে কাপড় ৩০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হয়েছে তা এবার ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বড়দের যে কাপড় ৮০ থেকে ৯০ টাকায় কেনা হয়েছে এবার তা কিনতে হচ্ছে ১৮০ থেকে ২৬০ টাকায়।
পুরাতন কাপড় মার্কেটের বেশকিছু মহাজন জানান, মূলত তাইওয়ান, জাপান ও কোরিয়া থেকে পুরাতন শীতবস্ত্র আসছে। ১০০ কেজি ওজনের ১ বেল ছোটদের পুরানো শীতের পোশাক চট্টগ্রাম মোকামে সাড়ে ৬ হাজার থেকে ৮ হাজার টাকা। ১০০ কেজি ওজনের বড়দের এক বেল পোশাকের দাম সাড়ে ৭ হাজার থেকে সাড়ে ৯ হাজার টাকা। ৮০ থেকে ১০ কেজি ওজনের জ্যাকেট ও সোয়েটারের এক বেলের দাম পড়ছে ১১ হাজার টাকা। তিনি আরো জানান, বর্তমানে বাজারে ছোট ও বড়দের শীতের পোশাক প্রতি পিচে ৬০ থেকে ১০০ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। পুরাতন কাপড়ের পাইকারি ব্যবসায়ী ফেরদৌস ও আরফান শেখ জানান, পরিবহন খরচ ও ব্যাংক ঋণের কারণে কাপড়ের বেলের দাম বেড়ে গেছে। ফলে খুচরা বাজারে বাড়তি দামের প্রভাব পড়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
পুরাতন কাপড় কেনার সময় কথা হয় কাশিমালা গ্রামের আরজিনা খাতুনের সাথে তিনি বলেন, প্রতি বছরই আমি সান্তাহার রেলগেটে আমি পরিবারের ছেলে-মেয়েদের জন্য সোয়েটার ও জ্যাকেট কিনতে।
কম দামে এত সুন্দর সুন্দর জ্যাকেট অন্য কোথাও পাই না। শহরের রেলগেট এলাকায় কম দামে নতুনের মত খুবই ভাল ভাল শীতের কাপড় পাওয়া যায়। তবে এবার দাম একটু চড়া।
তারপরও থেমে নেই শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচতে সাধারণ মানুষের কেনার আগাম প্রস্তুতি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ