ঢাকা, বৃহস্পতিবার 15 December 2016 ১ পৌষ ১৪২৩, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুবি’র সমীক্ষা রাইঙ্গামারী হবে শ্রেষ্ঠ গ্রাম

খুলনা অফিস: খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা উপজেলার জলমা ইউনিয়নের রাইঙ্গামারী গ্রাম। হতে পারে বাংলাদেশের একটি শ্রেষ্ঠ গ্রাম। এটা বাস্তবায়নে কাজ করছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়।
গত ২৯ নবেম্বর মঙ্গলবার গ্রামটিকে সমীক্ষা কেন্দ্র হিসেবে ঘোষণা করে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
ওইদিন দুপুরে জলমা ইউনিয়নের সাচিবুনিয়া সরস্বতী মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি রাইঙ্গামারীকে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমীক্ষা কেন্দ্র হিসেবে ঘোষণা করেন।
এই গ্রামটিতে ফিল্ড ওয়ার্ক করবেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। গবেষণা করে গ্রামের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপট পরিবর্তন ঘটাবেন তাঁরা।
তবে সহসা এ চিত্র মিলছে না। ১৫ থেকে ২০ বছর পর আদর্শ গ্রামের প্রতীক হবে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য।
আর গোটা দেশের জন্য হবে মডেল। উন্নত সাংস্কৃতিক গ্রামে পরিণত করে বসবাসকারীদের জীবন দক্ষতার উন্নয়ন ঘটনো হবে।
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বলেন, দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ব্যয় বহন করা হয় জনগণের উপার্জিত অর্থে।
তাছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে সব ধরনের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয় সাধারণ মানুষ। কেউ জমি দান করেন, কেউ অর্থ।
তেমনি জনগণ ও সমাজের প্রতিও বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়বদ্ধতা থেকে যায়। সেই দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন গবেষণা চালিয়ে দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করে। যেমন অর্থনীতি বিভাগ কাজ করে অর্থনীতি সূচক নিয়ে।
তবে এগুলো এক ধরনের পরোক্ষ কাজ, যা দৃশ্যমান নয়। তিনি আরও বলেন, এজন্য প্রত্যক্ষভাবেও বিশ্ববিদ্যালয় সমাজ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পারে। সেজন্যই বটিয়াঘাটার জলমা ইউনিয়নের রাইঙ্গামারীকে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় আদর্শ গ্রাম হিসেবে বাস্তবায়ন করতে চলেছে।
সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৮টি বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা যাবেন। ফিল্ড ওয়ার্ক করবেন। গবেষণা করে গ্রামের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপট পরিবর্তনে অবদান রাখবেন। উদাহরণ স্বরূপ, স্থাপত্য ডিসিপ্লিন ভবন-স্থাপনা উন্নয়ন এবং সয়েল সায়েন্স ডিসিপ্লিন মাটির উর্বরতা ও গুণাগুণ বৃদ্ধি করে অধিক ফসল ফলাতে ভূমিকা রাখবে। তবে এখনই এর পরিবর্তন দৃশ্যমান হবে না।
আগামী ১৫ থেকে ২০ বছর পর দেশের শ্রেষ্ঠ গ্রাম হবে এটি। আদর্শ গ্রামের প্রতীক হবে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য। গোটা দেশের জন্য মডেল হয়ে দাঁড়াবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ