ঢাকা, বৃহস্পতিবার 15 December 2016 ১ পৌষ ১৪২৩, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

জনবল সঙ্কটে পাইকগাছার দেলুটি পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র

খুলনা অফিস : খুলনার পাইকগাছা উপজেলার দেলুটি ইউনিয়ন পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা থাকা সত্বেও ডাক্তার কিংবা পরিবার কল্যাণ পরিদর্শক ও পরিদর্শিকা কেউ কর্মরত না থাকায় মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে চিকিৎসা সেবা। পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি সব সময় তালাবদ্ধ থাকে। বিষয়টি বারবার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলেও এ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমন অভিযোগ এলাকাবাসীর। ফলে পরিবার পরিকল্পনা ও চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে দ্বীপবেষ্টিত ইউনিয়নের ২৫ হাজার মানুষ।
সূত্র মতে, উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের মধ্যে দেলুটি ইউনিয়নটি হচ্ছে অবহেলিত একটি ইউনিয়ন। ইউনিয়নের সাথে উপজেলা সদরের কোন সরাসরি সড়ক যোগাযোগ নেই । কয়েকটি নদী পাড়ি দিয়ে এলাকাবাসীকে পৌঁছাতে হয় উপজেলা সদরে। দুর্গম ইউনিয়ন বাসীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে দেলুটিতে নির্মাণ করা হয়েছে একটি অত্যাধুনিক দ্বিতল ভবনের পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র। ভবনটি দেখতে যেমন সুন্দর, তেমনি ভবনে রয়েছে বিদ্যুৎ ব্যবস্থাসহ উন্নত মানের চিকিৎসা সরঞ্জাম। নেই শুধু ডাক্তার কিংবা পরিবার পরিকল্পনা সেবাকর্মীরা।
দেলুটি ইউপি চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডল জানান, ইউনিয়নবাসীর পরিবার পরিকল্পনা সেবার একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে ইউনিয়ন পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি। কিন্তু কেন্দ্রে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কেউ থাকে না সব সময় তালাবদ্ধ থাকে। যার কারণে এলাকাবাসীকে সেবা নিতে দুর্গম নদীপথ পাড়ি দিয়ে যেতে হয় উপজেলা সদরে। এতে শিশু এবং মাতৃমৃত্যু ঝুঁকি বেড়ে যায়। কেন্দ্রটি পরিপূর্ণভাবে চালু রাখলে দুর্গম এলাকার মা ও শিশু মৃত্যু ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যাবে বলে স্থানীয় এ ইউপি চেয়ারম্যান জানান।
এ ব্যাপারে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এসএম কবির হোসেন জানান, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগে চরম জনবল সংকট রয়েছে। অনেক চেষ্টা করে  দেলুটি পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে একজন যোগদান করলেও যোগদানের পরপরই তিনি এলপিআর’এ যান।
যার ফলে বিকল্প পন্থায় সপ্তাহে একদিন কেন্দ্রে সেবা প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়। জনবল সংকটের বিষয়টি ইতোমধ্যে সংসদ সদস্যের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপকে অবহিত করা হয়েছে বলে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের এ কর্মকর্তা জানান।
পাইকগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদ-উল-মোস্তাক বলেন, পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি সব সময় বন্ধ থাকে বলে মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ