ঢাকা, বৃহস্পতিবার 15 December 2016 ১ পৌষ ১৪২৩, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রধান শিক্ষক একাই চালাচ্ছেন গৌরীপুরে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা: ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের ১৪১ইং আগপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রধান শিক্ষক মোঃ জহিরুল ইসলাম দীর্ঘ দিন যাবত একাই চালিয়ে আসছে। অন্য শিক্ষকদের প্রতি অভিভাবক ও এলাকাবাসীর চরম ক্ষোভ। 
এলাকাবাসী ও অভিভাবকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে, ৪ ডিসেম্বর (রবিবার) সরেজমিনে গেলে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। চোখে পড়ে এক অবাক করা দৃশ্য। তখন দুপুর ১২ টা বাজে ৪র্থ শ্রেণীর হাতে গুনা কয়েকটা শিক্ষার্থী মাঠে খেলছে। প্রধান শিক্ষক মো: জহিরুল ইসলাম একটি শ্রেণী কক্ষে কয়েকজন শিক্ষার্থীকে পাঠ দান করাচ্ছেন। ময়লা আবর্জনার স্তূপ পড়ে আছে শ্রেণীকক্ষেসহ বিদ্যালয়ের সামনের মাঠে দেখে মনে হয় গ্রামবাসীর ব্যবহৃত একটি বিশাল ড্রাষ্টবিন। গণমাধ্যম কর্মীদের উপস্থিতি টের পেয়ে প্রধান শিক্ষক শ্রেণীকক্ষ থেকে বাহিরে আসে। এ সময় অনেক অভিভাবক ও এলাকাবাসী বিদ্যালয়ের সামনে ভির জমায়। এ সময় শিক্ষক হাজিরাসহ বিদ্যালয়ের সার্বিক বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক বলেন ৪ জন শিক্ষক তার মাঝে সেগুপ্তা সিং মাতৃত্বকালীন ছুটিতে আছে। খাইরুল বাসার খান তিনি বেতন ভাতা উত্তোলনের জন্য গেছে অপর জন শামছুন্নাহার তিনি কিছুক্ষন পূর্বে পারিবারিক কাজে চলে গছে। এ সময় অভিভাবক ও এলাকাবাসী ক্ষোভান্নিত হয়ে বলেন শামছুন্নাহার প্রতিদিন ১১টার পরে বিদ্যালয়ে আসে এবং ১২টার মধ্যে আবার চলে যায়। অদৃশ্য খোটির জোরে তিনি দীর্ঘদিন যাবত এমস অনিয়ম চালিয়ে আসছে। এলাকাবাসী আরো বলেন হৃদ রোগে আক্রান্ত প্রধান শিক্ষক জহিরুল ইসলাম নিজেই প্রতি দিন বিদ্যালয়ের তালা খোলা, জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও প্রতিটি কক্ষ নিজেই ঝাড়ু দেয় এবং একাই এ বিদ্যালয়ের পাঠ দান চালিয়ে আসছেন। শিক্ষকের এ অনিয়মের বিষয়ে তাৎক্ষণিক উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জুয়েল আশরাফকে বিষয়টি অবগত করলে তিনি ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানায়। তার প্রেক্ষিতে ৬ ডিসেম্বর মঙ্গলবার বিকালে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে পুনঃরায় জানতে চাইলে তিনি জানান, ওই শিক্ষককে কৈফিয়ত তলব করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ