ঢাকা, শনিবার 17 December 2016 ৩ পৌষ ১৪২৩, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সরকার স্বাধীনতার চেতনা ধ্বংস করে জুলুমতন্ত্র ও ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েম করেছে -নূরুল ইসলাম বুলবুল

স্টাফ রিপোর্টার : মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান করেছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। ঢাকা মহানগরী আয়োজিত আলোচনা সভায় জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেছেন, শোষণ, বঞ্চনা ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মাধ্যমে বিশ্বমানচিত্রে বাংলাদেশ নামের একটি রাষ্ট্রের অভ্যুদয় ঘটেছে। কিন্তু মহান বিজয়ের সাড়ে ৪ দশক অতিক্রান্ত হলেও দেশে ন্যায়বিচার ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠিত হয়নি। ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও বৈষম্যের যাঁতাকলে পিষ্ট দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠী। গণতন্ত্র ও বাকস্বাধীনতা সংবিধান স্বীকৃত হলেও সরকার তা হরণের মাধ্যমে স্বাধীনতার চেতনা ধ্বংস করে দেশে জুলুমতন্ত্র ও ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েম করেছে। তিনি শহীদ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাসহ সকল মুক্তিযোদ্ধাকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন, শহীদ পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান ও শহীদদের রূহের মাগফিরাত কামনা এবং দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনায় দোয়া করেন।
রাজধানীর একটি মিলনায়তনে জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহাগনরীর কর্মপরিষদ সদস্য আব্দুস সবুর ফকির ও ঢাকা মহানগরীর কর্মপরিষদ সদস্য এডভোকেট ড. হেলাল উদ্দীন। উপস্থিত ছিলেন যাত্রাবাড়ী জোনের সহকারী পরিচালক আ জ ম রুহুল কুদ্দুস, ঢাকা মহনগরীর মজলিসে শূরা সদস্য ডা. খন্দকার আবু ফতেহ ও মাওলানা আমিরুল ইসলাম, জামায়াত নেতা মনির হোসাইন, তাজুল ইসলাম, আতিকুর রহমান চৌধুরী, কামাল উদ্দীন ও গাজী আবুল কাসেম প্রমুখ।
নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ক্ষমতাসীনরা দেশের গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ধবংস করেছে। সরকার অঘোষিতভাবে দেশে বাকশালী শাসন কায়েম করেছে। দেশে মত প্রকাশের কোন স্বাধীনতা নেই। বিরোধী মতকে দমনের সব আয়োজন সম্পন্ন করা হয়েছে। সরকার ইতোমধ্যেই বেশকিছু গণমাধ্যম বন্ধ করে দিয়েছে। এ সরকারের আমলেই পিলখানা হত্যাকা-ের মাধ্যমে সীমান্তকে অরক্ষিত করে দেয়া হয়েছে। নির্বাচন কমিশনকে সরকারি দলের অঙ্গপ্রতিষ্ঠানে পরিণত করা হয়েছে। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে কোন নির্বাচনই অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য হয়নি।
তিনি বলেন, সরকার অবৈধ ক্ষমতাকে চিরস্থায়ী করতেই দেশে বিরাজনীতিকরণ শুরু করেছে। দেশ ও জনগণের বৃহত্তর স্বার্থে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা যখন সময়ের সবচেয়ে বড় দাবি সেখানে পরিকল্পিতভাবে বিভেদ সৃষ্টি করে দেশের রাজনীতিকে অস্থিতিশীল করে রাখা হয়েছে। বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অভিযোগে মামলা দিয়ে জুলুম-নির্যাতনের স্টিমরোলার চালানো হচ্ছে। দুর্নীতি, লুটপাট, চাঁদাবাজি ও দলীয়করণের কারণে সরকার সকল ক্ষেত্রে চরমভাবে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। মানুষের জান মাল ইজ্জত-আব্রুর কোন নিরাপত্তা নেই। গুম, খুন, ধর্ষণ, গুপ্তহত্যা, ক্রস ফায়ার ও অপহরণসহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়ত। এমনকি মানুষের স্বাভাবিক মৃত্যুরও কোন গ্যারান্টি নেই। ফ্যাসিবাদী-বাকশালীরা ক্ষমতায় থাকলে জনগণের জানমালের আরো অনিরাপদ হয়ে উঠবে। এভাবে কোনভাবেই স্বাধীনতা ও মহান বিজয়ের সুফল অর্জন করা সম্ভব নয়। তাই তিনি সবাইকে ঐক্যবদ্ধ গণআন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করে সরকারে পতন ঘণ্টাকে ত্বরান্বিত করতে আহ্বান জানান।
আব্দুস সবুর ফকির বলেন, বিজয়ের চার দশক পরেও আমরা স্বাধীনতার সুফল ঘরে তুলতে পারিনি। স্বাধীনতা প্রত্যেক মানুষের কাক্সিক্ষত হলেও গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠায় আমাদেরকে জীবন দিতে হয়-এটা খুবই দুঃখজনক। তাই স্বাধীনতাকে অর্থবহ করতে আমাদেরকে আবারও ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
এডভোকেট ড. হেলাল উদ্দীন বলেন, গণতন্ত্র, সাম্য ও আত্মনির্ভরশীলতা মহান বিজয়ের চেতনা হলেও ৪ দশক পরেও আমরা পশ্চাদপদ। তাই স্বাধীনতা ও মহান বিজয়ের সুফল পেতে হলে ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসের কোন বিকল্প নেই।
নারায়ণগঞ্জ মহানগরী : নারায়ণগঞ্জ মহানগরী জামায়াতে ইসলামীর উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকালে আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব জামায়াতে ইসলামীর নারায়ণগঞ্জ মহানগরীর আমীর মাওলানা মঈনুদ্দিন আহমাদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা আবু নকিব, মাওলানা আবু সাকের, মাওলানা আবু হমিদ, মাওলানা জাকির হোসেইন, মোহাম্মদ নাসির, মাওলানা শাহাবুদ্দিন, মাওলানা জামাল প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমেই সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়তে হবে। অনৈক্য ও বিভক্ত আমাদের বার বার পিছিয়ে দিচ্ছে। কাক্সিক্ষত উন্নয়নের দিকে দেশকে নিয়ে যেতে না পারলে বিজয়ের পূর্ণতা আসবে না বলে মন্তব্য করেন বক্তারা।
নেতারা আরো বলেন, এই দেশপ্রেম ও ঐক্যের শক্তিই সেদিন অল্প সময়ে বিজয়ী করেছে। ৪৫ বছরে বহুবার গণতন্ত্র, বাক স্বাধীনতা, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে পড়েছে। এখনো তা অব্যাহত আছে। ফলে জাতি এখনো লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি। বিভেদের রাজনীতি জাতির এগিয়ে যাওয়ার পথে প্রধান বাধা। বিভেদের রাজনীতি ও অবস্থান এক দিকে যেমন দেশকে পিছিয়ে দিচ্ছে তেমনি হাজারো সম্ভাবনাকে ধ্বংস করছে। স্বাধীনতার পক্ষ-বিপক্ষের ধুয়া তুলে প্রকৃত পক্ষে দেশকে এক গভীর অনিশ্চয়তার দিকে ঠেলে দিচ্ছে। যা দেশের শান্তিকামী মানুষ চায় না। তারা বিভক্তি নয় ঐক্য দেখতে চায়।
নারায়ণগঞ্জ
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ মহানগরী জামায়াতে ইসলামীর উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকালে আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নারায়ণগঞ্জ মহানগরীর আমীর মাওলানা মঈনুদ্দিন আহমাদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা আবু নকিব, মাওলানা আবু সাকের, মাওলানা আবু হমিদ, মাওলানা জাকির হোসেইন, মোহাম্মদ নাসির, মাওলানা শাহাবুদ্দিন, মাওলানা জামাল প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমেই সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়তে হবে। অনৈক্য ও বিভক্ত আমাদের বার বার পিছিয়ে দিচ্ছে। কাক্সিক্ষত উন্নয়নের দিকে দেশকে নিয়ে যেতে না পারলে বিজয়ের পূর্ণতা আসবে না বলে মন্তব্য করেন বক্তারা।

সিলেট ব্যুরো : বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও সিলেট মহানগর আমীর এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বলেছেন, লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বিজয় জাতির জন্য গৌরবের। দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলার দামাল ছেলেরা জীবন বাজি রেখে বিশ্বের মানচিত্রে লাল-সবুজের স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশকে ঠাঁই করে দিয়েছেন। বিজয়ের মূল লক্ষ্য ছিল শোষণ মুক্ত ও ক্ষুধা-দারিদ্য্র মুক্ত গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ। কিন্তু শাসকগোষ্ঠীর একগুয়েমী ও বাকশালী শাসনের গ্যাড়াকলে পড়ে স্বাধীনতার সুফল থেকে জাতি আজ বঞ্চিত। স্বাধীন বাংলাদেশে আজ শাসনের নামে চলছে শোষণ, বিচারের নামে চলছে প্রহসন। রাষ্ট্রশক্তি ব্যবহার করে মানুষের মৌলিক ভোটাধিকার কেড়ে নেয়া হচ্ছে। মিছিল, মিটিং সকল রাজনৈতিক দলের মৌলিক অধিকার হলেও তা আজ বাকশালের থাবায় বন্ধ। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে বিরোধী মতের নেতাকর্মীদের উপর চলছে নির্যাতনের স্টিমরোলার। মুক্তিযুদ্ধকে পুঁজি করে একটি শক্তি জাতিকে ঐক্যের বিপরীতে বিভক্তির সুগভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ঐক্যের, বিভক্তির নয়। লাখো শহীদের রক্তস্নাত স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে রক্ষা, বিজয়ের সুফল জাতির ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে হলে দেশপ্রেমিক জনতাকে ইস্পাত কঠিন ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।
তিনি গতকাল শুক্রবার মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সিলেট মহানগর জামায়াত আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। মহানগর সেক্রেটারি মাওলানা সোহেল আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর জামায়াতের নায়েবে আমীর মোঃ ফখরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জামায়াত নেতা মুফতি আলী হায়দার, ক্বারী আলাউদ্দিন, শফিকুল আলম মফিক ও মাহমুদুর রহমান দেলোয়ার প্রমুখ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, যে মহান লক্ষ্য নিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছিল কোন অপশক্তির কারণে তা ভূলুণ্ঠিত হতে পারে না। ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী নিজেদের অবৈধ ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বকে হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে। এ থেকে জাতিকে মুক্তি পেতে হলে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধভাবে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।
গাজীপুর সংবাদদাতা : বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও গাজীপুর মহানগর জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ শেখ মুহাম্মদ ইবনে ফয়েজ বলেছেন, দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে। ৪৫ বছরেও এদেশের মানুষ স্বাধীনতার সুফল ভোগ করতে পারেনি। আজও গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করতে হচ্ছে। মানুষের জান-মালের কোনো নিরাপত্তা নেই। যে কেউ যখন তখন গুম-খুন হয়ে যাচ্ছে। মানবাধিকার পরিস্থিতি ভয়াবহ। আইনের শাসন ভূলুন্ঠিত। দুর্নীতি ও দুঃশাসনে জনজীবন বিপর্যস্থ।
তিনি বলেন, স্বাধীনতার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হাসিল করতে হলে সকল বিভেদ ভুলে একত্রে দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করে যেতে হবে। জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার সকালে নগরীর টঙ্গিতে অনুষ্ঠিত গাজীপুর মহানগর জামায়াতের আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এসব কথা বলেন।
নগর জামায়াতের সাংগঠনিক সেক্রেটারি আফজাল হোসাইনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নগর জামায়াতের কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা গোলামুল কুদ্দুস, টঙ্গি পূর্ব থানার আমীর শাহাদাত হোসেন,  সেক্রেটারি মহিউদ্দিন, টঙ্গি পশ্চিম থানার কর্মপরিষদ সদস্য মোঃ অহিদুল্লাহ প্রমুখ।
এছাড়া মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে  বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী জয়দেবপুর থানা উত্তর শাখার উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। থানা আমীর ছাদেকুজ্জামান খান-এর সভাপতিত্বে উক্ত দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি ও কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য মোঃ খায়রুল হাসান, অন্যান্যের মাধ্যে উপস্থিত ছিলেন জয়দেবপুর থানা কর্মপরিষদ সদস্য মাওঃ আবু তাহের, অধ্যক্ষ শরিফুল ইসলাম, সাহাজ উদ্দিন, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।
রংপুর : মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী রংপুর মহানগর জামায়াতের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ও সমাবেশ  রংপুর মহানগরের সকল সাংগঠনিক থানায় অনুষ্ঠিত হয়। রংপুর মহানগরের মাহিগঞ্জ সাংগঠনিক থানায় থানা আমীর আনোয়ারুল হক কাজলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহানগর সেক্রেটারি অধ্যাঃ আনোয়ারুল ইসলাম, কোতোয়ালি সাংগঠনিক থানায় থানা আমীর এ্যাডঃ কাওছার আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহানগর সহঃসেক্রেটারি অধ্যাপক রুহুল কুদ্দুস।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ