ঢাকা, শনিবার 17 December 2016 ৩ পৌষ ১৪২৩, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হিন্দুস্থানের গোলামী করার জন্য জাতি স্বাধীনতা সংগ্রাম করে নাই -শফিউল আলম প্রধান

২০ দলীয় জোট নেতা ও জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান বলেছেন, সময় ভয়ঙ্কর হলেও আজ সাহস করে সত্য বলতে হবে। ঘটা করে বিজয় দিবস পালিত হলেও স্বাধীনতার ৪৫ বছর পরেও বাংলার মজলুম মানুষ বিজয় দেখে নাই। ইতিহাস সাক্ষী লাখো শহীদের রক্তে কেনা স্বাধীনতাকে ১৬ই ডিসেম্বর ভারতীয় বাহিনীর হাতে তুলে দেয়া হয়।  সোহরাওয়ার্দ্দী উদ্যানে হানাদার বাহিনীকে ইন্ডিয়ান আর্মির কাছে আত্মসমর্পনে বাধ্য করা হয়। মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল ওসামনীকে সেই অনুষ্ঠানে থাকতে দেয়া হয় নাই কেন, সেই প্রশ্নের জবাব আজও দেশবাসী জানতে পারে নাই। প্রধান বলেন এর পরের ইতিহাস ষড়যন্ত্রের ইতিহাস, চক্রান্তের ইতিহাস, বাংলার মানুষকে গোলাম বানিয়ে রাখার ইতিহাস। বন্দী বঙ্গবন্ধু মুজিব পাকিস্তান থেকে দেশে ফিরে পরিস্থিতি দেখে হতবাক হয়ে যান। দাসত্বের শেকল ভাঙতে যেয়ে তাকে নির্দয়ভাবে প্রাণ হারাতে হয়। একই চক্রান্তের কারণে মাতৃভূমি ঋণ পরিশোধ করতে গিয়ে প্রেসিডেন্ট জিয়াও শাহাদাৎ বরণ করেন। মজলুম জননেতা মাওলানা ভাসানী, মেজর জলিল, কমরেড সিরাজ শিকদারসহ অগণিত দেশপ্রেমিক জীবনের শেষদিন পর্যন্ত দিল্লীর শেকল ভাঙার চেষ্টা চালান।
গতকাল শুক্রবার বিকাল ৪টায় আসাদগেট জিইউপি মিলনায়তনে জাগপা আয়োজিত ১৬ই ডিসেম্বর উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সভায় বক্তব্য রাখেন জাগপা সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লুৎফর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুর রহমান খান, অধ্যাপক ইকবাল হোসেন, সৈয়দ শফিকুল ইসলাম, আওলাদ হোসেন শিল্পী, সাংগঠনিক সম্পাদক ভিপি মজিবুর রহমান, প্রিন্সিপাল হুমায়ুন কবির, দপ্তর সম্পাদক গোলাম মোস্তফা কামাল, সহ প্রচার সম্পাদক মোঃ মানিক সরকার, যুব জাগপা সভাপতি ফাইজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ উদ্দীন, জাগপা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রুবেল, ঢাকা জেলা জাগপা সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন ভূঁইয়া, গাজীপুর জেলা সাধারণ সম্পাদক  মোঃ ফরিদ উদ্দিন প্রমুখ।
প্রধান বলেন, আমাদের জাতীয় চেতনা বিকাশের প্রধান বাধা আধিপত্যবাদী ভারতকে তোষণ করে বাংলাদেশ কখনও মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবে না। এই নির্মম সত্য উচ্চারণে দ্বিধাগ্রস্ত বলে বাংলাদেশে আজ গণতন্ত্র বুটের তলায় পিষ্ট। স্বাধীনতাকে নিলামে তুলা হয়েছে। ক্ষমতায় সুজাতা সিং মনোনীত পুতুল সরকার। ওরা আমাদের ভাতে মারে, পানিতে মারে, সীমান্তে প্রতিদিন নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালায়। এরপরও যদি দিল্লীকে বন্ধু বলতে হয় তাহলে আমাদের শত্রু কারা? তিনি বলেন, ৭১ এ স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হলেও আজও তা শেষ হয় নাই। ১৬ই ডিসেম্বর আমাদের অঙ্গীকার হোক আবারও রক্ত দিতে হলে দেব কিন্তু গোলামীর শেকল ভাঙতেই হবে। মনে রাখবেন পাকিস্তানের পরিবর্তে হিন্দুস্থানের গোলামী করার জন্য জাতি স্বাধীনতা সংগ্রাম করে নাই। ভাসানী, মুজিব, জিয়ার বাংলা জেগে ওঠ, রুখে দাঁড়াও।
জাগপা সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দেশপ্রেমিক জনগণকে নয়া সংগ্রামের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানান।
পূর্বাহ্নে সকালে জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধানের নেতৃত্বে দলীয় নেতাকর্মীরা সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। প্রেসবিজ্ঞপ্তি। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ