ঢাকা, রোববার 18 December 2016 ৪ পৌষ ১৪২৩, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ছড়া/কবিতা

সকল নামের সেরা
মোশাররফ হোসেন খান

সব মানুষের সেরা মানুষ
সব মানুষের সেরা
তারই প্রেমে ব্যাকুল ধরা
তারই প্রেমে ঘেরা।

তার প্রেমে যে সুধা কতো
গন্ধ বিলায় অবিরত
হীরার চেয়ে দামী সে যে
লক্ষ আঁধার চেরা।

বিশ্বটারে আপন করে
তার মতো কে নিতে পারে
তার মতো কে ছুঁতে পারে
সাত সাগরের ডেরা?

ফুল শাখাতে ফুলের দোলা
দিচ্ছে কি যে দোল,
রাসূল প্রেমে আজকে ও মন
আপনারে ভুল ভোল।

রাসূল নামে মুক্তো ঝরে
তার নামে যে হৃদয় ভরে
ঐ নামে যে জগত পাগল
সকল নামের সেরা,
হীরার চেয়ে দামী সে যে
লক্ষ আঁধার চেরা।


কমলী ওয়ালা
মোহাম্মদ মোরশেদ আলী

তোমার চেয়েও বড় দুঃখী
ছিলেন আমার কমলীওয়ালা
ঘরে তাহার ভাত জোটেনি
পেটে ছিল ক্ষুধার জ্বালা।

কত লোকে দিয়েছে গাল
তাদের মনে ঝরেছে ঝাল
দুঃখ নবী করেননি কো
হৃদয় যে তাঁর প্রেম আলো।

দ্বীন দুনিয়ার মনি পেয়ে
কাটালেন যে দুঃখী হয়ে
তাহার ছোঁয়ায় উজ্জ্বল হল
মন-ভরনের উপর তলা।


নূর নবী
হাসান আলীম

শুরু থেকে জ্বলেছিল
আকাশে যে নূর,
জ্বলজ্বল করেছিল
তারা বহুদূর।
সে তো ছিল নূরনবী
প্রিয় আহমদ,
সে যে ছিল ভালবাসা
বুকের দরদ।
যদি তাঁর আলোকের
নাহত বিকাশ,
আঁধার জগত তবে
হত কি নিকাশ?


সোনালী ভোর
শরীফ আবদুল গোফরান

ঘোর অমানিশায় দুলে ওঠে
মরুর সোনালী আকাশ
খোশবুতে ভরে যায় আমিনার ঘর
ঝলকে ওঠে পূর্ণিমার চাঁদ
নক্ষত্রের আলো হয়ে যায় ম্লান
খুলে যায় রহমতের দ্বার।

কুয়াশা কেটে গিয়ে উঁকি দেয় সোনালী ভোর
সমগ্র মাখলুকাত গেয়ে ওঠে সুমধুর গান
প্রেমে মশগুল হয়ে যায় তামাম জাহান! বলেÑ
সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম।


সাহিত্যের গন্ধ
কালাম বিন আঃ রশিদ

আমার দেশে জমিন চাষে
কৃষক আঁকে ছন্দ
শ্রমিক কুলি ধোপা মালি
কবি সাহিত্যের গন্ধ॥

কাজের ফাঁকে লুকিয়ে থাকে
মনের গহীন ঘোরে
লক্ষ্য মনের বক্ষ তলে
শিল্প ভরা ডোরে।

দুঃখ তাপে নাহি কাঁপে
সোনার মানুষ গুলি
ঋতু ভরে ছবি আঁকে
লইয়া রং তুলি।

কবি কিংবা কথাশিল্পী
আছে ঘরে ঘরে
রবি, শস্য, ফল ফুলে
যেমনি আছে ভরে।

খোঁজ খবর লইতে যদি
শহর ছেড়ে যাবে
পল্লী গাঁয়ের মায়ের কোলে
হাজার লেখক পাবে।

স্বজন প্রীতি ছেড়ে দাঁড়াও
আসল বাঁশী ফুকে
দেশের সেবায় নামিয়ে আসো
সত্যকে লও বুকে।


নবী আমার ছোট্ট মনের কবি
মনসুর আজিজ

নবী
তুমি আমার ছোট মনের কবি
আমার ফেনিল ঠোঁটের প্রথম ডাক
আম্মু শুনে হলো তো অবাক।

তুমি আমার প্রথম শেখা প্রথম বর্ণমালা
তোমার নামে তৃষ্ণা মেটে, মেটে হৃদয় জ্বালা
তুমি আমার প্রথম শেখা গান
তোমার নামে মেঘ মেদূরে বৃষ্টি অফুরান।

নবী
তুমি আমার ধ্যানের প্রথম ছবি
তোমার নামে এক হয়ে যায় কবিতা ও কবি
তুমি আমার আঁধার মনের রবি।

তুমি আমার প্রথম চলার পথ
তোমার নূরে পথ চলাতে দৃষ্টিরাও সৎ
তুমি বুলাও দুখির মাথায় হাত
আলোর ধারা আনো তুমি ঘোচাও আঁধার রাত।


মানবতা
এইচ এস সরোয়ারদী

কোথায় বিশ্বের মানবতা
আছে কি এতোটুকু,
মিয়ানমারের নৃশংসতায়
কাঁদে আমার বুক।

এতো খুনের খবর শুনে
কাঁদে পাহাড় ঢেউ,
কাঁদেনা শুধু এই বিশ্বের
মানুষগুলো কেউ।


আখেরী পয়গম্বর
খালীদ শাহাদাৎ হোসেন

আকাশ বাতাস পানি কানাকানি করে
কে যেন আসিবে রাতে আমিনার ঘরে,
ফুলেরা সুরভি ছাড়ে মিশিয়ে কস্তুরী
নিশির শিশির ঝরে ভরে তসতরি।

শারদীয় জোসনায় পূর্ণিমার আলো
আলোড়িত ধরাধাম দূর করে কালো,
রাত জাগে গ্রহ-তারা হয়ে আত্মহারা
আগমনি প্রতীক্ষায় দিতেছে পাহারা।

থেমে গেছে কোলাহল থমথম রাত
পেরিয়ে গম্ভীরক্ষণ আসিবে প্রভাত,
সহসা প্রকৃতি কার এলান ছড়ায়
আখেরি পয়গম্বর এসেছে ধরায়।


ফুল ফোটে গাছে গাছে
ফরিদ আহমদ ফরাজী

গোলাপ ফোটে সারা বছর
লাল গোলাপি সাদা,
দেখতে সুন্দর সুবাস অতি
গাছে ফোটে গাঁদা।

জবা, কদম, কলাবতী
সূর্যমুখী ফোটে
“সবুজ পাতার ভেতর থেকে”
মন সবারই লোটে।

গন্ধছাড়া ফুল সকলই
পাপড়ি মেলে ঐ
পুষ্প শাখে প্রজাপতি
উড়ছে যে রই রই।

সুবাস ছাড়া কৃষ্ণচূড়া
শিমুল, পলাশ আছে
গলে গলে জোছনা ঝরে
রাত আসলেই কাছে।

বেলি, কামিনী, শিউলি ফোটে
ফোটে রজনীগন্ধা
গন্ধ ছড়ায় হাসনাহেনা
আসলে নেমে সন্ধ্যা।

মিষ্টি গন্ধে মন ভরে যায়
ফোটলে দোলনচাঁপা
চারটি সাদা পাপড়ি মেলে
হৃদয় খানি কাঁপা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ