ঢাকা, মঙ্গলবার 20 December 2016 ৬ পৌষ ১৪২৩, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

এসডিজি বাস্তবায়নে টেকসই জ্বালানি নিশ্চিত করতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার : টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এসডিজি) সপ্তম লক্ষ্যটি সবার জন্য স্বল্পমূল্যের নির্ভরযোগ্য ও টেকসই-পরিচ্ছন্ন জ্বালানি প্রাপ্তি বৃদ্ধি করতে অঙ্গীকারবদ্ধ। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে বাংলাদেশকে নবায়নযোগ্য ও কমিউনিটি-ভিত্তিক জ্বালানি ব্যবস্থায় বিনিয়োগ করতে হবে। সেটি হতে হবে দরিদ্র, নারী ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর চাহিদা এবং অগ্রাধিকারের আলোকে। 

গতকাল সোমবার বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড স্টাডিজ (বিসিএএস) ও আন্তর্জাতিক সহায়তা সংস্থা ক্রিশ্চিয়ান এইডের যৌথ উদ্যোগে রাজধানীর রিগস ইন হোটেলে আয়োজিত এক কর্মশালায় বিশেষজ্ঞরা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন বিসিএএসের নির্বাহী পরিচালক ড. আতিক রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ক্রিশ্চিয়ান এইডের আবাসিক পরিচালক সাকেব নবী। এতে গবেষণার চুম্বকাংশ তুলে ধরেন বিসিএএস পরিচালক ও গবেষণা ফেলো দ্বিজেন মল্লিক। এছাড়া জ্বালানি বিষয়ে জনগণের চাহিদা ও অগ্রাধিকার উপস্থাপন করেন বিসিএএসের গবেষণা ফেলো ওমর তারেক চৌধুরী ও সিনিয়র গবেষণা কর্মকর্তা খলিলউল্লাহ। মারাকেশে অনুষ্ঠিত ২২তম জলবায়ু সম্মেলনে পরিচ্ছন্ন জ্বালানি ও জলবায়ু পরিবর্তন প্রশমন সম্পর্কিত আলোচনায় উঠে আসা বিষয়গুলোর ওপর উপস্থাপনা করেন একই প্রতিষ্ঠানের ফেলো গোলাম রব্বানি।

বিসিএএস ও ক্রিশ্চিয়ান এইড এসডিজির স্থানীয়করণের লক্ষ্যে পরিচ্ছন্ন জ্বালানির ওপর আলোকপাত করে একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছিল। এ বিষয়ে ২০১৬ সালের শুরুতে একটি নাগরিক সংলাপ আয়োজন করার পাশাপাশি দেশব্যাপী চারটি আঞ্চলিক পরামর্শ সভা করা হয়। উপকূল, হাওর, বরেন্দ্র ও পার্বত্য অঞ্চলে করা এসব পরামর্শ সভায় স্থানীয় বাস্তবতার আলোকে মানুষের জ্বালানি চাহিদা ও অগ্রাধিকার উঠে আসে।

বিশেজ্ঞরা আরো বলেন, গ্রামীণ দরিদ্ররা আলো, রান্না ও জীবিকামূলক কর্মকান্ডের জন্য সাধ্যের মধ্যে অতিপ্রয়োজনীয় জ্বালানি সুবিধা পায় না। বিশেষ করে দুর্গম এলাকাগুলোতে এ অবস্থা বিদ্যমান। গ্রামীণ ও শহুরে বস্তিগুলোতে টেকসই, পরিচ্ছন্ন এবং স্বল্পমূল্যের জ্বালানিসুবিধা না থাকায় লাখ লাখ মানুষের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও জীবিকা ব্যাহত হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ