ঢাকা, মঙ্গলবার 20 December 2016 ৬ পৌষ ১৪২৩, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চিরিরবন্দরে ১০টি গ্রামের একমাত্র সাঁকো ঝুঁকিতে

চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) সংবাদদাতা : দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়নের চিরিরবন্দর-খানসামা উপজেলার ১০ টি গ্রামের প্রায়  ৫০হাজার লোকের দীর্ঘদিনের দাবি এখানে একটি ব্রীজের। চিরিরবন্দর উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের পূর্ব-উত্তর কোণে নশরতপুর ঈদগাঁহ মাঠ সংলগ্ন ইছামতি নদীতে নির্মিত বাঁশের সাঁকো এখন হাজার হাজার মানুষের একমাত্র যাতায়াতের ভরসা।
এলাকাবাসীর উদ্যোগে দীর্ঘদিন ধরে স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে তৈরি এ সাঁকো দিয়েই উপজেলার নশরতপুর, চকগোবিন্দ, আলোকডিহি, ফতেজংপুর, উত্তর পলাশবাড়ী, খানসামা উপজেলার দুবলিয়া, গোয়ালডিহি, লালদিঘী, নীলফামারীর বড়–ুয়া সহ ১০ টি গ্রামের প্রায় ৫০হাজার লোকের যাতায়াতের একমাত্র পথ এ বাঁশের সাঁকো।
এছাড়া প্রতিদিন ব্যবসায়ী ছাড়াও স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সংযোগস্থলের রাস্তা সাঁকো দিয়ে পারাপার করতে বাধ্য হচ্ছে। এ কারণে প্রায়ই ঘটে থাকে ছোটখাটো দুর্ঘটনা। সেতু না থাকায় যাতায়াত, উৎপাদিত  কৃষিপণ্য বাজারে আনা-নেয়া, অন্যান্য মালামাল বহনে ভোগান্তি ও অতিরিক্ত অর্থ গুনতে হচ্ছে। শুধু বাঁশের একটি সাঁকো অত্রাঞ্চলের মানুষের একমাত্র ভরসা। যা বর্ষার  সময় মানুষের দুর্ভোগ এর শেষ থাকে না। নদীর ওপর নির্মিত এ সাঁকো স্বেচ্ছাশ্রমে দীর্ঘদিন ধরে এলাকাবাসীই তৈরি করে আসছে। এ বিষয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দৃষ্টিগোচর না হওয়ায় জনমনে এক ধরণের ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ