ঢাকা, সোমবার 26 December 2016 ১২ পৌষ ১৪২৩, ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মাদারীপুরে আওয়ামী লীগের ৩ প্রার্থী ॥ নিজ দলের কর্মীদের হাতে লাঞ্ছিত প্রার্থী

মাদারীপুর সংবাদদাতা : ২৮ ডিসেম্বর আসন্ন মাদারীপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে সরকার দল আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য কোন রাজনৈতিক দল নির্বাচন না করলেও বিনাপ্রতিদ্বন্দিতায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নির্বাচিত হতে পারছে না। কেন না জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে  মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের  ৩ নেতা ভোটযুদ্ধে অংশ নেয়ায় তুমুল প্রতিযোগিতা হবে বলে প্রার্থীরা জোরেশোরে তাদের নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছে। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচনী প্রতিযোগিতার মাঠে রয়েছেন বর্তমান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: মিয়াজউদ্দিন খান, মনোনয়ন না পেয়ে নির্বাচন যুদ্ধে রয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক পিপি এভভোকেট সুজিত চ্যাটার্জি ও ডা: আব্দুল বারী। নিবাচর্নী প্রচারণায় ইর্ষান্বিত হয়ে গত ২৩ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাদারীপুর সদর উপজেলার মিঠাপুর গ্রামের লোহারপুল এলাকায় নির্বাচনী প্রচারকালে চেয়ারম্যান প্রার্থী এডভোকেট সুজিত চ্যাটার্জি বাপ্পীর উপর হামলা করে সন্ত্রাসীরা। এ সময় তাকে মারধর করে পরিধেয় জামা-কাপড় ছিঁড়ে ফেলে। সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত অবস্থায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ সময় সন্ত্রাসীরা তার আরো দুই সমর্থককে মারধর করে  আহত করে। এ ঘটনায় সচেতন মহলে ক্ষোভ বিরাজ করছে। অপরদিকে ডা: আবদুল বারী তার প্রচারণা অব্যাহত রেখেছেন।
 জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটাধিকার নেই প্রায় ৮ লাখ মানুষের। তবে প্রত্যক্ষ ভোট না থাকলেও তাদের ভোটে যারা ইউপি চেয়ারম্যান, সদস্য, পৌর মেয়র কিংবা কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন সেই তাদের ভোটেই নির্বাচিত হবেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সদস্য এবং সংরক্ষিত সদস্যরা। এখন প্রার্থীরা জেলার ৭৪৮ ভোটারের দ্বারে দ্বারে চষে বেড়াচ্ছেন। সদস্য যেমন-তেমন মূল আকর্ষণ এখন চেয়ারম্যান আনারস , ঘোড়া ও  প্রতীকে নিজের পক্ষে রায় পেতে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ছুটছেন গোটা জেলাজুড়ে। ভোটারদের অভিমত, ভোটযুদ্ধ হবে সমানে সমান, লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ