ঢাকা, সোমবার 26 December 2016 ১২ পৌষ ১৪২৩, ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

৮ কোটি টাকার স্যাটেলাইট ফোন ও অত্যাধুনিক অবৈধ কমিউনিকেশন এবং র‌্যাডার যন্ত্রপাতিসহ ৪ জন গ্রেফতার

চট্টগ্রাম অফিস : চট্টগ্রাম মহানগরীর পাহাড়তলী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে স্যাটেলাইট ফোন, হাই ফ্রিকয়েন্সি সেটসহ বিপুল পরিমাণ অত্যাধুনিক অবৈধ কমিউনিকেশন এবং র‌্যাডার যন্ত্রপাতিসহ ৪ জন’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭ । সূএ জানায়, বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন আইন অনুযায়ী স্যাটেলাইট ফোন, হাই ফ্রিকুয়েন্সি সেট (HF), ভেরী হাই ফ্রিকুয়েন্সি সেট (VHF) ইত্যাদি যন্ত্রপাতি সরকারের অনুমতি ব্যাতিরেকে আমদানি, রপ্তানী, ক্রয়, বিক্রয়, সংরক্ষণ নিষিদ্ধ। কেননা এই ধরনের প্রযুক্তিগত উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন কমিউনিকেশন ডিভাইস সাধারণ মানুষের হস্তগত হলে দেশের সার্বভৌমত্ব ও সার্বিক নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়তে পারে। র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, চট্টগ্রাম মহানগরীর পাহাড়তলী থানাধীন সিডিএ মার্কেটের উত্তর পার্শ্বে, আব্দুল বারেক রোডে গোলাম মোস্তফা মার্কেটে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী উক্ত কমিউনিকেশন এবং নেভিগেশনাল যন্ত্রপাতি সাধারণ মানুষের কাছে বিক্রয় করছে। এ সংবাদের ভিত্তিতে ২৫ ডিসেম্বও ভোর রাত থেকে  দুপুর  পর্যন্ত বিটিআরসি এবং জেলা প্রশাসন ম্যাজিস্ট্রেট-এর সহায়তায় মেজর এস এম সুদীপ্ত শাহীন এর নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল গোলাম মোস্তফা মার্কেট, আব্দুল বারেক রোড, পাহাড়তলী, চট্টগ্রামের হজরত শাহজালাল এন্ট্রারপ্রাইজ, সাকিব মেরিন ইলেকট্রিক এন্ড ইলেকট্রনিক্স, এস কে মেরিন, জুয়েল নূর ভবন এবং মা মেরিন ইলেকট্রনিক্স, অভিযান চালিয়ে ৩৪টি স্যাটেলাইট ফোন, ১৩২টি রেডিও সেট(ঠঐঋ/টঐঋ/ঐঋ), ২টি ফার্নো রেডিও এরিয়াল, ২টি জেআরসি র‌্যাডার এন্টেনা, ৩টি ট্রান্সমিশন ইউনিট, ৪টি ব্রিজ এ্যালার্ম, ৫ টি রিসিভার, ১টি সেইলর সেট কমিউনিকেশন টার্মিনাল, ৮টি এন্টেনা (সেইলর/ফার্নো/জেআরসি/কোডেন), ৪টি পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিট, ২টি জেআরসি প্রিন্টার,২টি কি-বোর্ড, ৯টি হ্যান্ডসেট, ২২টি র‌্যাডার ডিসপ্লে, ৭টি ডোপলার লগ, ৭৬টি জিপিএস নেভিগেটর, ১১৭টি নেভটেক্স রিসিভার, ৭টি এআইএস, ৬টি ফার্নো এন্টেনা উইথ রিসিভার (টিএক্স/আর এক্স ইউনিট) ৪টি পাইরোটেকনিক আইটেমসহ বিপুল পরিমান কমিউনিকেশন এবং নেভিগেশনাল যন্ত্রাংশ উদ্ধার করা হয়। এসময় “হজরত শাহজালাল এন্ট্রারপ্রাইজ” এর  মোঃ শফিকুল ইসলাম (৪৫), পিতা-আব্দুল জলিল শেখ, গ্রাম-হিজলাবট, থানাঃ খোকসা, জেলাঃ কুষ্টিয়া, বর্তমান ঠিকানাঃ হজরত শাহজালাল এন্ট্রারপ্রাইজ, গোলাম মোস্তফা মার্কেট, আব্দুল বারেক রোড, পাহাড়তলী, চট্টগ্রাম, “এস কে মেরিন” এর মোঃ শামছুল আলম (৫০), পিতা-ফখরুল আলম, গ্রামঃ শিবরামপুর, থানা-বুড়িচং, জেলাঃ কুমিল্লা, বর্তমান ঠিকানা-নূর ভবন (৩য় তলা), আব্দুল বারেক রোড, পাহাড়তলী, চট্টগ্রাম এবং মোঃ লিটন (৪৫), পিতা-মৃত মিরু মিয়া, গ্রাম+পো-শিমপুর, থানা-কোতোয়ালী, জেলা-কুমিল্লা, বর্তমান ঠিকানাঃ গ্রাম-পাইঞ্জারী লেন, পো-ফিরোজশাহ, থানা-আকবরশাহ, জেলা-চট্টগ্রাম, জুয়েল নূর ভবন এর মোঃ জুয়েল (২৮), পিতা-মোঃ সুলতান শিকদার, গ্রাম-পূর্ব বুরদিয়া, পো-হারিদিয়া, থানা-লৌহজং, জেলা-মুন্সিগঞ্জ, বর্তমান ঠিকানাঃ নূর ভবন (৪র্থ তলা), আব্দুল বারেক রোড, পাহাড়তলী, চট্টগ্রামদেরকে গ্রেফতার করে। উদ্ধারকৃত কমিউনিকেশন এবং নেভিগেশনাল যন্ত্রপাতির আনুমানিক মূল্য ৮ কোটি টাকা। গ্রেফতারকৃত আসামী এবং উদ্ধারকৃত কমিউনিকেশন এবং নেভিগেশনাল যন্ত্রপাতি সংক্রান্ত পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ