ঢাকা, মঙ্গলবার 27 December 2016 ১৩ পৌষ ১৪২৩, ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আবাসিকে গ্যাসের সংযোগ বন্ধ করে বিদ্যুতে অগ্রাধিকার দেয়ার পরিকল্পনা করছে সরকার

স্টাফ রিপোর্টার : আবাসিক খাতে পর্যায়ক্রমে গ্যাসের সংযোগ বন্ধ করে তা শিল্প খাতে তথা বিদ্যুতে দেয়ার চিন্তা করছে সরকার। আর সরকারের এই উদ্যোগে তিতাসের লাভের পরিমান শতকরা ৮০ ভাগ বাড়বে বলেও মন্তব্য করেছেন তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির চেয়ারম্যান ও জ্বালানি সচিব নাজিম উদ্দিন চৌধুরী। গতকাল সোমবার ঢাকা অফিসার্স ক্লাবে কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভায় তিনি আরো বলেছেন, বেশি মুনাফা পেতে চাইলে বাসাবাড়ির গ্যাস সংযোগ বন্ধ করে তা শিল্প খাতের জন্য সরবরাহ করা উচিত। এতে মুনাফা বেশি হবে। 

উল্লেখ্য, পেট্রো বাংলার তথ্য মতে, এখন বাসাবাড়িতে মোট গ্যাসের ২০ শতাংশ ব্যবহার হয়; যা বিক্রি করে আসে ১ হাজার ৩৪০ কোটি টাকা। অন্যদিকে এটা যদি পাওয়ার সেক্টরে সরবরাহ করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয় তবে এই গ্যাস বিক্রি করে আসবে ৮০ হাজার কোটি টাকা। তাই বেশি মুনাফা চাইলে বাসাবাড়িতে গ্যাস সংযোগ বন্ধ করে দেয়া উচিত।

নাজিম উদ্দীন চৌধুরী বলেন, ঢাকা শহরের নিচ দিয়ে যেভাবে গ্যাসের লাইন গেছে। যদি কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ হয় তাহলে বড় ধরনের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পৃথিবীর খুব কম দেশেই ন্যাচারাল গ্যাস ব্যবহারে রান্না করা হয়। এখান থেকে বেরিয়ে আসছে সবাই।

তিনি বলেন, গ্যাসের মার্জিন পুনর্মূল্যায়ন করার জন্য আমরা জ্বালানি নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিইআরসির কাছে আবেদন করেছি। আমরা বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষা করার জন্য চেষ্টা করছি। তিতাসের তথ্যমতে, ২০১৪ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৬ সালের নবেম্বর পর্যন্ত সময়ে ৮২০ কিলোমিটার গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এতে সাড়ে ৪ লাখ চুলার সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। এ জন্য ৩৬৪টি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭ টাকা ৩৭ পয়সা। এসময়ে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য হয়েছে ৬২ টাকা ৬৪ পয়সা। অনুষ্ঠানে কোম্পানির ঘোষিত ২০ শতাংশ লভ্যাংশের অনুমোদন দেয় বিনিয়োগকারীরা।

 কোম্পানি সচিব মোস্তাক আহমেদের সঞ্চালনায় এজিএম’এ উপস্থিত ছিলেন কোম্পানির পরিচালক মোহাম্মদ ইকবাল, ইস্তিয়াক আহমেদ, ইঞ্জিনিয়ার খালেদ মাহমুদ, খান মনিরুল ইসলাম মোস্তাক, ইঞ্জিনিয়ার মীর মশিউর রহমান, স্বতন্ত্র পরিচালক এম রফিকুল ইসলামসহ কোম্পানির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ