ঢাকা, মঙ্গলবার 27 December 2016 ১৩ পৌষ ১৪২৩, ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ইসলাম বিদ্বেষী বইয়ের পক্ষাবলম্বন করায় একুশে গ্রন্থমেলায় নিষিদ্ধ শ্রাবণ প্রকাশনী

স্টাফ রিপোর্টার : ইসলাম বিদ্বেষী বইয়ের পক্ষাবলম্বন করায় শ্রাবণ প্রকাশনীকে অমর একুশে গ্রন্থমেলা-১০১৭ এ নিষিদ্ধ করেছে বাংলা একাডেমি। আগামী বইমেলার জন্য স্টল বরাদ্দের আবেদন করতে গিয়ে এই প্রকাশনীর কর্ণধার রবিন আহসান বিষয়টি জানতে পারেন।
গ্রন্থমেলার আয়োজক বাংলা একাডেমির পরিচালক জালাল আহমেদ বলেন, গত বছর ‘ইসলাম বিতর্ক’ নামের একটি বই নিষিদ্ধ করা হয়, উনারা এর প্রতিবাদে সরব হয়েছেন। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের উপস্থিতিতে গত ২২ নবেম্বর অনুষ্ঠিত একাডেমির ৬ষ্ঠ সভায় বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে এবং তাদের তৎপরতাকে বই মেলার স্বার্থের পরিপন্থি বিবেচনা করে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এটা শাস্তিমূলক ব্যবস্থা।
রবিন গতকাল সোমবার গণমাধ্যমকে বলেন, বই মেলায় স্টল পাওয়ার আবেদন করতে ফরম তুলতে গিয়ে জানতে পারি আমাদের আগামী দুই বছর কোনো স্টল দেয়া হবেনা। তবে এ বিষয়ে আগে থেকে কোনো নোটিশ পাইনি। তিনি আত্মপক্ষ সমর্থন করে বলেন, যে কোন অপরাধে রাষ্ট্র কাউকে গ্রেফতার করতেই পারে। কিন্তু বাংলা একাডেমি বইমেলার মেলার মতো শিল্প-সাহিত্যের পীঠস্থান থেকে কাউকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া এটা একজন প্রকাশকের প্রতি অন্যায় করা হয়েছে বলেই মনে করেছি।
ইসলাম ধর্ম বিদ্বেষী লেখা একটি বই ছাপানোর দায়ে গ্রেফতার বদ্বীপ প্রকাশনীর প্রকাশক শামসুজ্জামান মানিকের মুক্তির আন্দোলনে যুক্ত হয়েছিলেন রবিন। তিনি টকশোতে ও মানববন্ধনে মানিকের গ্রেফতারের প্রতিবাদ করেছিলেন, তার মুক্তি চেয়েছিলেন।
প্রসঙ্গত, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার উপাদান রয়েছে এবং তা মেলার জন্য হুমকি- পুলিশের এমন তথ্যের ভিত্তিতে গত বছর ১৬ ফেব্রুয়ারি একুশের বইমেলায় ব-দ্বীপ প্রকাশনীর স্টল বন্ধ করে দেয় বাংলা একাডেমি। এরপর তথ্য প্রযুক্তি আইনে ব-দ্বীপ প্রকাশনীর মালিক মানিকসহ তিনজনকে গ্রেফতারও করে পুলিশ।
ওই সময় পুলিশ জানায়, ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে তারা জানতে পারি, ব-দ্বীপ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত ‘ইসলাম বিতর্ক’ বইটিতে ইসলাম ধর্মের অনুভূতিতে আঘাত করা হয়েছে। পরে অনুসন্ধানে বিতর্কিত লেখার প্রমাণ পাওয়া যায়। বইটিতে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে আপত্তিকর শব্দও পাওয়া যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ