ঢাকা, বুধবার 28 December 2016 ১৪ পৌষ ১৪২৩, ২৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নেলসনে আমরা জিততে চাই-তামিম ইকবাল

স্পোর্টস রিপোর্টার : ক্রাইস্টচার্চে হার দিয়ে শুরু হয়েছে বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড মিশন। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ম্যাচ নেলসনে। তবে নেলসনে জিততে চায় বাংলাদেশ। এমনটাই জানিয়েছেন ওপেনার তামিম ইকবাল। গতকাল নেলসনে পৌছে তামিম বলেন, ‘নেলসনের ম্যাচটি কী তা আমরা জানি। এর মাধ্যমেই সিরিজ নির্ধারণ হবে। এজন্যে এ ম্যাচ জেতার জন্য যা যা করতে হয় সবই আমি করব। আমাদের যা সামর্থ্য তাতে এখানকার ম্যাচ জেতা সম্ভব। তাছাড়া এখানকার মাঠটি আমাদের পরিচিত। দলের বেশিরভাগ খেলোয়াড় এ মাঠে  খেলেছেন এবং ভালো খেলেছেন। কাজেই ভালো খেলাটা খেলেই এখানে জেতা সম্ভব।’ ক্রাইস্টচার্চে ছিল ঠান্ডা আবহাওয়া। কিন্তু নেলসনে সেটা নেই। নেলসন নিয়ে তামিম বলেন, ‘এখানে আমরা এর আগে একটিমাত্র খেলা খেলেছিলাম এবং সেটাই জিতেছি। গত বিশ্বকাপের সময় স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে আমরা জিতেছি বড় রান তাড়া করে। তখন এখানে যে উইকেট পেয়েছিলাম তা এবার নাও পেতে পারি। কিন্তু মাঠটির ব্যাপারে আমাদের যে ধারণা আছে তা এ যাত্রায় বেশ কাজে দেবে। ক্রাইস্টচার্চের ম্যাচের অভিজ্ঞতায় আমাদের ধারণা হয়েছে প্রতিপক্ষকে ২৮০-৩০০ রানের মধ্যে বেঁধে ফেলতে পারলে জয় সম্ভব। এমন স্কোর তাড়া করে জয়ের লক্ষ্য আমাদের থাকবে।’ প্রথম ম্যাচে হারের প্রভাব এই ম্যাচে পড়বে না বলে মনে করেন তহামিম। তামিম বলেন,‘সেখানে আমরা ভালো খেলিনি ঠিক, কিন্তু সেখানকার ভুলগুলো থেকে শুধরে ভালো খেলে জয়  বের করে আনা সম্ভব। ব্যক্তিগতভাবে সবাই যার যার ভুলগুলো শনাক্ত ও শুধরানোর কাজ করছে। এখন টিম মিটিংয়ে বসে কোথায় কী উন্নতি করতে পারি তা আমরা ঠিক করব। রান তাড়া করা যায়। বিশ্ব ক্রিকেটে এটা হচ্ছে। আমাদের ব্যাপারটা হলো তিনশ’র বেশি রান তাড়া করে আমাদের জয়ের অভ্যাসটি সে রকম নেই। সে রকম রান তাড়া করে জয়ের অভ্যাস করাটা এখন আমাদের টার্গেট।’ বাংলাদেশের কন্ডিশন উল্লেখ করে তামিম বলেছেন, ‘বাংলাদেশে আমরা যে কন্ডিশনে খেলি  সেখানে তিনশ রান তাড়া করে জেতা খুব একটা হয় না। ২৬০-২৮০’র বেশি রান হয় খুব কম। কিন্তু এখানকার উইকেটে ৩২০-৩৩০ এমন রান প্রায় হয়। এখান থেকে আমাদের  সেই অভ্যাসটা গড়ে তুলতে হবে।’ প্রথম ম্যাচে সেখানকার ঠান্ডার প্রভাব তামিম বলেন, ‘এসব অজুহাতের কথা বলে লাভ নেই। আমরা অনেক আগে অস্ট্রেলিয়ায় এসে কন্ডিশনিং ক্যাম্প করেছি। নিউজিল্যান্ড এসে পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সময় পেয়েছি। আসলে আমাদের দিনটি ভালো ছিল না। সামনের ম্যাচগুলোয় ভুল যত কম করব ততোই আমাদের লাভ। ৬ বছর পর আমরা নিউজিল্যান্ডে সিরিজ খেলতে এসেছি। নেলসনে আসার ৭ দিন আগে হয়তো নিউজিল্যান্ডে এসেছি। কিন্তু পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিতে সময় লাগতেই পারে। মানিয়ে আমাদের নিতেই হবে। এ পরিবেশটা বাংলাদেশের পরিবেশের উল্টো। বিশ্বের বড় দলগুলো এখানে প্রায় প্রতিবছর আসে। তারা এখানকার পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সংগ্রাম করে। আর আমরাতো এখানে সিরিজ খেলতে এসেছি ৬ বছর পর। আমরা এই পরিবেশটা যত তাড়াতাড়ি ধাতস্থ করতে পারব তত আমাদের মঙ্গল।’ দ্বিতীয় ওয়ানডে নিয়ে তামিম বলেন, ‘আমাদের সুযোগ আছে  এই ম্যাচ জেতার। সিরিজ নয়, আমরা পরের ম্যাচ নিয়ে ভাবছি। এই ম্যাচের পরে আমরা পরের ম্যাচ নিয়ে ভাবব। আমরা সব করতে পারি। যখন থেকে সাফল্য পেতে শুরু করেছি তখন থেকে প্রতিটি ম্যাচকেই আমরা আলাদা করে দেখি। প্রতিটি ম্যাচ আমরা জিততে চাই। প্রতিটি ম্যাচ জেতা আমাদের সম্ভব নয় কিন্তু চেষ্টাতো করি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ