ঢাকা, বুধবার 28 December 2016 ১৪ পৌষ ১৪২৩, ২৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

জাতীয় ক্রিকেট লিগে রকিবুলের সেঞ্চুরি

স্পোর্টস রিপোর্টার : জাতীয় ক্রিকেট লিগে সেঞ্চুরি করেছেন রকিবুল হাসান। গতকাল ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগের পঞ্চম রাউন্ডের প্রথম দিন ফতুল্লায় ঢাকা বিভাগের হয়ে খুলনার বিপক্ষে করেছেন সেঞ্চুরিসহ ১১১ রান। আগের রাউন্ডগুলোতে ভালো করেনি রকিবুল। তিন ইনিংসে ব্যাটিং পেয়ে করেছিলেন ১১, ১৫ ও ০। অবশেষে রান পেলেন তিনি। ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমেছিল ঢাকা। ৭১ রানে দুই ওপেনারের বিদায়ের পর চার নম্বরে নেমেছিলেন রকিবুল। সেখান থেকে তিনি তৃতীয় উইকেটে সাইফ হাসানকে সঙ্গে নিয়ে গড়েন ১৮০ রানের বড় জুটি। দলীয় ২৫১ রানে খুলনার স্পিনার আব্দুর রাজ্জাকের বলে বোল্ড হওয়ার আগে রকিবুলের নামের পাশে জ্বলজ্বল করছিল ১১১ রানের দারুণ ইনিংস। তার আগে সেঞ্চুরিও পূর্ণ করেছেন রাজ্জাকের ওভারেই। ব্যক্তিগত ৯৯ থেকে খুলনার বাঁহাতি স্পিনারকে পরপর দুটি চার হাঁকিয়ে ছুঁয়ে  ফেলেন তিন অঙ্ক। রকিবুলের সেঞ্চুরিতে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন খুলনার বিপক্ষে শক্ত অবস্থানে ঢাকা বিভাগ। রকিবুল হাসানের সেঞ্চুরি ও সাইফ হাসানের অপরাজিত ৮৯ রানে প্রথম ইনিংসে তাদের সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে চার উইকেটে ৩০৩।
বিকেএসপিতে ম্যাচ খেলেছে বরিশাল বিভাগ ও ঢাকা মেট্রো। মেহেদী-মেহরাবের ব্যাটে দিনশেষে ঢাকা মেট্রো ২৫৫ রান সংগ্রহ করেছে ৭ উইকেট হারিয়ে। প্রথম স্তরে টিকে থাকতে হলে পঞ্চম রাউন্ডে জেততেই হবে ঢাকা  মেট্রোকে! বিষয়টি মাথায় রেখেই মাঠে নেমেছিলেন মেট্রোর খেলোয়াড়রা। আগে ব্যাটিং করা ঢাকা মেট্রো তেমন পরিকল্পনা মাথায় রেখেই শুরু করেছিলেন। অস্ট্রেলিয়াতে জাতীয় দলের ক্যাম্প করে আসা মেহেদী মারুফ ও সাদমান ইসলাম দুইজন মিলে ওপেনিং জুটিতে দারুণ শুরু করেছিলেন। ওপেনিং জুটিতে ৮১ রান এসেছে তাদের ব্যাট থেকে। সাদমান (৩৩) দুর্ভাগ্যজনক রান আউটের শিকার না হলে সংগ্রহটা আরও বাড়তে পারতো। সাবলীল খেলতে থাকা মেহেদী মারুফ তার ইনিংসটা খুব বড় করতে পারেননি। ৫৬ রান করে মনির হোসেনের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন এই ওপেনার। তার বিদায়ের পর মেট্রোর মিডল অর্ডারও ব্যর্থ হয়। জাতীয় দলের অভিজ্ঞ  খেলোয়াড় মার্শাল আইয়্যুব (১২), শামসুর রহমান (১২) ও মোহাম্মদ আশরাফুল (২০) ব্যর্থ হলে প্রথম দিনেই অলআউট হওয়ার শঙ্কা জাগে মেট্রো শিবিরে। ৬ষ্ঠ উইকেটে সৈকত আলী এবং মেহরাব জুনিয়র মিলে ৫৭ রানের জুটি গড়েন। সৈকত আলী ২৯ রানে আউট হলে সপ্তম উইকেটে জাবির হোসেনের সঙ্গে ৪৩ রানের জুটি গড়েন। জাবিরও ২৩ রানে আউট হলে এক প্রান্তে অবিচল ছিলেন মেহরাব জুনিয়র। শেষ পর্যন্ত ৪৮ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেন এই অলরাউন্ডার। বরিশাল বিভাগের বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নিয়েছেন মনির হোসেন। এছাড়া সালমান হোসেন দুটি এবং সালেহ আহমেদ শাওন একটি উইকেট নিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ