ঢাকা, মঙ্গলবার 03 January 2017, ২০ পৌষ ১৪২৩, ০৪ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

একের পর এক পুলিশ-র‌্যাবের হানা ৮ আস্তানায় ৩৬ কথিত জঙ্গি নিহত

তোফাজ্জল হোসেন কামাল : সদ্য বিদায়ী ২০১৬ সালের আলোচিত ঘটনাগুলোর মধ্যে রাজধানীর গুলশান ও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার ঘটনা দুটো ছিল অন্যতম। একের পর এক এই দুটি ঘটনায় নড়েচড়ে বসে পুলিশ-র‌্যাবসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। দেশজুড়ে শুরু হয় জঙ্গিবিরোধী অভিযান। জুলাই থেকে শুরু হওয়া অভিযানে বছরের শেষ পর্যন্ত পাওয়া যায় কথিত ৮ জঙ্গি আস্তানা। ওই সব আস্তানায় পরিচালিত অভিযানে নারী পুরুষ মিলিয়ে ৩৬ সদস্যের করুন মৃত্যুতে জঙ্গি নেটওয়ার্ক তছনছ হয় বলে দাবি আইনশৃক্সক্ষলা বাহিনীর।

গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার পর ঢাকার কল্যাণপুর, রূপনগর, আজিমপুর, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, টাঙ্গাইল ও আশকোনার কথিত জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালায় পুলিশের বিশেষায়িত ইউনিট কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটি) ও এলিট ফোর্স র‌্যাব। এসব অভিযানে ‘নব্য জেএমবির’ শীর্ষ নেতা তামিম চৌধুরীসহ নিহত হয় ৩৬ জঙ্গি সদস্য। এছাড়া জঙ্গিদের হামলায় চার পুলিশ সদস্য, ১৭ বিদেশি নাগরিকসহ মোট ২৫ জন মারা যান।

বিদায়ী বছরের ঘটনাগুলো পর্যালোচনা করে দেখা যায়, গুলশানে জঙ্গি দমনে ও জিম্মি ঘটনা অবসানের জন্য পরিচালিত থান্ডার বোল্ট অপারেশনে অংশ নেয় সামরিক ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চার সহস্রাধিক সদস্য। মাত্র ১২-১৩ মিনিটের এ অভিযানে ৬ জঙ্গি নিহত হয়। 

এ হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই ঈদুল ফিতরের দিন সকালে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় সবচেয়ে বড় ঈদ জামাতের মাঠের কাছে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যদের ওপর বোমা হামলা এবং গোলাগুলিতে দুই কনস্টেবলসহ চারজন নিহত হন। হামলার দিনই বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় আবীর রহমান নামে নব্য জেএমবির এক সদস্য। আহত অবস্থায় গ্রেফতার হয় শফিউল নামে আরেক জঙ্গি।

এরপর নড়েচড়ে বসে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। শুরু হয় জঙ্গিবিরোধী ধারাবাহিক অভিযান। জঙ্গি হামলার মাস্টারমাইন্ড, অস্ত্রদাতা, অর্থদাতা, প্রশিক্ষণ-প্রশিক্ষক ও জঙ্গিদের আশ্রয়দাতাদের শনাক্ত করা হয়। তদন্তে উঠে আসে নিরাপত্তার হুমকি হয়ে দাঁড়ানো উগ্রপন্থী সংগঠন নব্য জেএমবি। পরে ৫ আগস্ট র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে শফিউল ও তার সহযোগী আবু মোকাতিল নামে দুই সন্দেহভাজন জঙ্গি নিহত হয়।

এরপর ২৬ জুলাই কল্যাণপুরের জাহাজ বাড়ি নামক একটি কথিত জঙ্গি আস্তানায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট‘র ‘অপারেশন স্টোর্ম’ অভিযানে নিহত হয় ৯ জঙ্গি। নিহতদের মধ্যে একজনের পরিচয় জানা যায়নি আজও। 

২৭ আগস্ট গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় জঙ্গি আস্তানায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট‘র অভিযানে নিহত হয় নব্য জেএমবি নেতা ও গুলশান হামলার মাস্টারমাইন্ড বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক তামিম আহম্মেদ চৌধুরী। এ সময় তামিমের সঙ্গে মারা যায় তার আরও দুই সহযোগী।

২ সেপ্টেম্বর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট অভিযান চালায় মিরপুরের রূপনগরে। সেখানে পুলিশের সঙ্গে গোলাগুলিতে নিহত হয় জাহিদুল ইসলাম নামে অবসরপ্রাপ্ত এক মেজর। গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলায় অংশগ্রহণকারীদের তিনি গাইবান্ধার চরাঞ্চলে প্রশিক্ষণ দেন। নারায়ণগঞ্জে তামিম চৌধুরী নিহত হওয়ার পর নব্য জেএমবিতে তার স্থলাভিষিক্ত হওয়ার কথা ছিল মুরাদ ওরফে মেজর মুরাদ ওরফে জাহিদুলের।

১০ সেপ্টেম্বর আজিমপুরের একটি বাড়িতে অভিযান চালায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। সেখানে নব্য জেএমবির অন্যতম শীর্ষ নেতা ও আশ্রয়দাতা তানভীর কাদেরী নিহত হয়। সেখান থেকে আটক করা হয় তিন নারী জঙ্গি ও তানভীরের ১৪ বছর বয়সী ছেলেকে।

৮ অক্টোবর পুলিশ ও র‌্যাব গাজীপুর, আশুলিয়া ও টাঙ্গাইলের চার আস্তানায় অভিযান চালায়। গাজীপুরে পৃথক দুই অভিযানে ৯ জঙ্গি, টাঙ্গাইলে দুই জঙ্গি এবং আশুলিয়ায় নিহত হয় জঙ্গিদের আশ্রয়দাতা।

সর্বশেষ ২৪ ডিসেম্বর ঢাকার আশকোনায় এক জঙ্গি আস্তানায় পুলিশের অভিযানের সময় আত্মঘাতী হামলা চালান এক নারী। এই অভিযানে জঙ্গি নেতা তানভীর কাদেরীর ছেরে আফিফ নিহত হয় গুলিতে । তার আগে ওই আস্তানা থেকে আত্মসমর্পণ করেন মেজর (অব.) জাহিদের স্ত্রী জেবুন্নাহার ও আরেক নারী। ওই আস্তানা থেকে পুলিশ ১৯টি তাজা বোমা ও চারটি পিস্তল উদ্ধার করে। বছরের শেষে এই নারী জঙ্গির আত্মঘাতী হওয়ার মধ্য দিয়ে নতুন আঙ্গিকে আলোচনায় আসে নব্য জেএমবির আত্মঘাতি নারী ইউনিটের খবর। পুলিশের দাবি , আত্মঘাতি ওই নারী পলাতক জঙ্গি সুমনের স্ত্রী তিশা । বছরের শেষে এসেও আশঙ্কা দেখা দেয়, জঙ্গি তৎপরতার স্রোতটি ক্ষীণ হয়ে পড়লেও একেবারে নিঃশেষ হয়ে যায়নি। যেটা সর্বশেষ ঘটনারই প্রমান ।

কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, সম্প্রতি পুলিশের জঙ্গিবিরোধী অভিযানে নব্য জেএমবির ৭০ ভাগ শক্তি কমে গেছে। তাদের পক্ষে এখন বড় হামলা চালানো সম্ভব নয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ