ঢাকা, বুধবার 04 January 2017, ২১ পৌষ ১৪২৩, ০৫ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড ২০১৬

মুহাম্মদ ওয়াছিয়ার রহমান : [তিন]
(১১৯) ২ সেপ্টেম্বর কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বাতিসা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় কোন্দলে যুবলীগ কর্মী আবু বক্কর সিদ্দিক রানা নিহত হয়, (১২০) ৬ সেপ্টেম্বর ফেনী সদরে যুবলীগের দলীয় কোন্দলে মধূয়াই ব্রিজের উপর যুবলীগ বালিগাঁও ইউনিয়ন সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক বালিগাঁও ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীনকে খুন করে প্রতিপক্ষ বলে জানিয়েছে এলাকাবাসী, (১২১) ২৪ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া সদরে মাছপাড়া গ্রামে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ইমান আলী ও (১২২) শাহাবুদ্দিন নামে দু’জন নিহত হয়, (১২৩) ২৭ সেপ্টেম্বর নোয়াখালীর হাতিয়ায় খাসেরহাটে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে বরিদ্র গ্রুপের কামাল হোসেন নামে একজন নিহত এবং আহত বিশজন হয়।
(১২৪) ১ অক্টোবর সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে শরীফপুর গ্রামে উপজেলা আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে দ্বন্দ্ব ও মামলাবাজী চলে আসছিল। ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে লন্ডন প্রবাসী আফরোজ চৌধূরীর উপর হামলা করলে তিনি নিহত হন, (১২৫) ৪ অক্টোবর ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে উস্থি ইউনিয়নে বিএনপি নেতা শিপন মিয়াকে হত্যা করেছে আওয়ামী লীগ কর্মীরা বলে দাবী করেছে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, (১২৬) ৯ অক্টোবর নওগাঁর রাণীনগরে ত্রিমোহনী স্কুলের নৈশ প্রহরী মীর হোসেন হত্যা মামলায় যুক্ত থাকার অভিযোগে আওয়ামী লীগ কাশিমপুর ইউনিয়ন সভাপতি মেম্বার আলমগীর হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উল্লেখ্য, গত ১ জুন মীর হোসেন আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৫ জুন মারা যায়। তথ্যটি বিলম্বে প্রকাশ হওয়ায় তা অক্টোবরে ছাপা হয়, (১২৭) ১৩ অক্টোবর যশোরের ঝিকরগাছায় গদখালী বাজারে প্রকাশ্যে দিবালোকে গদখালী ইউপির ৪নং ওয়ার্ড মেম্বার ও আওয়ামী লীগ নেতা রাহাজ্জান সরদার দলীয় কোন্দলে খুন হয়। এ বছর ৫ জুলাই তার ভাই হাসান সরদারকেও খুন করে সন্ত্রাসীরা, (১২৮) ২০ অক্টৈাবর ঝিনাইদাহের শৈলকুপায় দেবিনগর ও শাপখোলা গ্রামে আওয়ামী লীগের বিবাদমান দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আতিয়ার রহমান খা নামে একজন নিহত হয়, (১২৯) ২৭ অক্টোবর ঝিনাইদাহের শৈলকুপার সাপখোলা গ্রামে আধিপত্য বিস্তার ও আওয়ামী লীগের দলীয় কোন্দলে জাহাঙ্গীর আলম সিকদার নামে একজন আহত হয়ে ২৮ অক্টোবর মারা যায়, (১৩০) ২৮ অক্টোবর সাতক্ষীরার কলারোয়ায় কেরালকাতা ইউপি নির্বাচন নিয়ে বালিয়াপুর গ্রামে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আতংকিত ফাতেমা খাতুন নামে এক মহিলা হৃদযন্ত্র বন্ধ হয়ে মারা যায়, সংঘর্ষের সময় সন্ত্রাসীদের ধাক্কায় পড়ে গেলে তিনি মারা যান।
(১৩১) ১৪ নভেম্বর নরসিংদীর রায়পুরায় নিলক্ষা ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচন উত্তর দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ও পুলিশের গুলীতে মানিক মিয়া, (১৩২) খোকন মিয়া, (১৩৩) মামুন মিয়া ও (১৩৪) শাহজান নিহত এবং পুলিশসহ অন্তত পঞ্চাশ জন আহত হয়, (১৩৫) ১৪ নভেম্বর নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জ মঙ্গলখালী এলাকায় বালু ব্যবসা ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে গুলীবিদ্ধ হয়ে সৈনিক লীগের সভাপতি তারা মিয়া নিহত ও অপর বিশ জন আহত হয়, (১৩৬) ১৬ নভেম্বর ময়মনসিংহের ত্রিশালে বালিপাড়ায় আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে সাইফুল মোল্লা নাকে একজন নিহত ও পাঁচ পুলিশসহ পনের জন আহত হয় এবং (১৩৭) ১৭ ডিসেম্বর নাটোরের নলডাঙ্গায় কুচকুড়ি গ্রামে ১১ একর খাস জমি দখল নিয়ে খাজুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান মৃধা এবং সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন গ্রুপের সংঘর্ষে আব্দুস সামাদ মোল্লা নিহত এবং অপর আটজন আহত হয়েছে এবং (১৩৮) ২১ ডিসেম্বর ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া কলেজ সরকারী করণের দাবীতে আন্দোলন কালে কলেজ শিক্ষক অধ্যাপক আব্দুল কালাম ও (১৩৯) ফজর আলী নিহত যাওয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা ও এমপি মোসলেম উদ্দিন ও তার ছেলে ইমদাদুল হক সেলিমসহ অন্যান্যদের নামে আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করে এক কলেজ শিক্ষক আবুল হোসেন। উল্লেখ্য, গত ২৭ নভেম্বর এই হত্যাকাণ্ড ঘটে।
ছাত্রলীগ ঃ (১) ১১ জানুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ ও ব্যবসায়ীদের হামলায় মাদ্রাসা ছাত্র হাফেজ মাসুদুর রহমান নিহত হয়, (২) ১৯ জানুয়ারি সিলেটে ছাত্রলীগের দলীয় কোন্দলে কাজী হাবিবুর রহমান নামে একজন ছাত্রলীগ নেতা খুন হয়, (৩) ১৫ মার্চ চট্টগ্রামে কামাল গেটে ছাত্রলীগের রয়েল গ্রুপ ও আনিস গ্রুপের দলীয় কোন্দলে গুলীতে ব্যবসায়ী আব্দুল জাহেদ খুন হয়, (৪) ২১ মার্চ নোয়াখালীর মাইজদিতে ছাত্রলীগের হাতে ছাত্রদলের ফজলে রাব্বি রাজু, ছাত্রলীগ কর্মী ওয়াসিম ও রাজু আহত হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ফজলে রাব্বি রাজু ও (৫) ওয়াসিম ২২ মার্চ ভোর রাত তিনটায় মারা যায় এবং (৬) ছাত্রলীগ কর্মী রাজু ২৩ মার্চ মারা যায়, (৭) ২৯ মার্চ চট্টগ্রামে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দলীয় কোন্দলে নাজিম আহমেদ সোহেল নামে একজন ছাত্রলীগ কর্মী নিহত হয়, (৮) ১৭ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজীতে কারামতিয়া বাজারে নূর মোহাম্মদ সবুজ নামে এক চা দোকানীকে পিটিয়ে আহত করে ছাত্রলীগ-যুবলীগ, পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৮ এপ্রিল সবুজ মারা হয়, (৯) ২৮ এপ্রিল চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে কমলদহ বাজারে এক সংঘর্ষে চট্টগ্রাম সিটি কলেজের ছাত্র মমতাজ উদ্দিন টিপু আহত হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। উল্লেখ্য, ৪ এপ্রিল মমতাজ উদ্দিন টিপু আহত হয়, (১০) ২৮ এপ্রিল গাজীপুরের জয়দেবপুরে আওয়ামী লীগের দলীয় কোন্দলে ছাত্রলীগ-যুবলীগের হাতে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৩৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শাহজান আহত হয়ে ৩০ এপ্রিল মারা যায়, (১১) ২৭ মে বরিশাল পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটে ছাত্রলীগ দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ছাত্রলীগ নেতা রেজাউল করীম রেজা আহত হয়ে চিকিৎসারত অবস্থায় ২৮ মে রাত আটটায় মারা যায়। (১২) ২৭ জুন চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে পশ্চিম সাহেরখালী গ্রামে দলীয় কোন্দলে ছাত্রলীগ নেতা নাঈমুলদের বাড়িতে হামলা করে প্রতিপক্ষ। এ সময় ব্যাপক ভাংচুর এবং নাঈমুলকে ধরে নিয়ে কুপিয়ে আহত করে এবং ২৮ জুন নাঈমুল ইসলাম মারা যায়, (১৩) ১০ জুলাই সিলেটের পাঠানটুলা এলাকায় ছাত্রলীগের হাতে খুন হয়েছে স্বেচ্ছাসেবক লীগ কর্মী আব্দুল্লাহ্ অন্তর।
(১৪) ১ আগস্ট কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের মৃত্যু উপলক্ষে শোক দিবসের প্রাক্কালে অতি প্রত্যুষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মোমবাতি প্রজ্জলনের পর আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের সবুজ গ্রুপ ও আলিফ-রেজা গ্রুপের সংঘর্ষে খালিদ সাইফুল্লাহ্ নামে এক ছাত্রলীগ কর্মী নিহত হয়, (১৫) ১৩ আগস্ট ঢাকার মিরপুরে সাইক পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটের ছাত্রী ও ছাত্র ইউনিয়ন কর্মী আফসানা ফেরদৌসকে হত্যা করে তেজগাঁও কলেজ ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান রবিনসহ তার সহযোগীরা। ময়না তদন্তে আত্ম হত্যার কথা বলা হলেও প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে আফসানার পরিবার ও ছাত্র ইউনিয়ন ঘটনার জন্য ছাত্রলীগ নেতা রবিন ও তার সহযোগীদের দায়ী করে, (১৬) ১৭ আগস্ট সিলেটে জিন্দাবাজারে বহিস্কৃত ছাত্রলীগ নেতা ও জেলা ছাত্রলীগ স্থগিত কমিটির সহ-সভাপতি সোলেমান চৌধূরীর হাতে নির্মম ভাবে খুন হয় মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী মামুন, (১৭) ২০ আগস্ট সিলেটে দক্ষিন সুরমায় লালবাজারে ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজের নেতৃত্বে সাইফুলসহ ১০-১৫ জনের হামলায় ব্যবসায়ী আজির উদ্দিন নিহত হয়, (১৮) ৪ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইলের গোপালপুরে হেমনগর ইউনিয়নে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের দ্বন্দ্ব ও সংঘর্ষে কবির হোসেন নামে ছাত্রলীগ ইউনিয়ন শাখার প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু বরণ করে, (১৯) ৮ অক্টোবর নারায়নগঞ্জে ব্যবসায়ী রিপনকে হত্যা করে ছাত্রলীগ বন্দর থানা সভাপতি পদপ্রার্থী অহিদুজ্জামান, নাজমুল, আমজাদ, মোমেন ও হুমায়ুনসহ ২-৩ জন। মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে তাকে হত্যা করা হয়। যাওয়ার সময় রিপন তার স্ত্রীকে এ কথা বলে যায়, (২০) ৯ অক্টোবর বগুড়া শহরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা উজ্জল মারা গেছে, গত ২৯ সেপ্টেম্বর ছাত্রলীগের অবরোধ চলাকালে তিনি আহত হন এবং (২১) ২০ নভেম্বর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক দিয়াজ ইরফান চৌধূরী টেন্ডারবাজী নিয়ে দলীয় কোন্দলে খুন হয়েছে বলে পরিবার দাবী করে। টেন্ডার নিয়ে গত ২৯ অক্টোবর দিয়াজের বাসায় একবার হামলা হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি আলমগীর টিপুর সাথে দিয়াজের এই টেন্ডার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল এবং ২৮ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত এই বিষয় নিয়ে চারবার সংঘর্ষ হয়।
যুবলীগ ঃ (১) ১০ ফেব্রুয়রি নারায়নগঞ্জের ফতুল্লায় যুবলীগ কর্মী মাহবুবের হাতে দোকান কর্মচারী শাহজাহান নিহত হয়, (২) ২০ ফেরুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে প্রাতঃবাজারে মালিগাঁও ও বেপারীপাড়া গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষে মাছ ব্যবসায়ী কিরন মিয়া আহত হয় এবং পরে মারা গেলে নিহতের ছেলে হান্নান মিয়া উপজেলা পরিষদ ভাইস-চেয়ারম্যান ও যুব লীগ সাধারণ সম্পাদক শের আলম মিয়াসহ ৪১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে, (৩) ১৫ মার্চ সিলেট শহরের রায়নগরে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী বিপ্লব রায় বিপুলের ভাতিজীকে উত্যক্ত করার বিচার চাওয়ায় অর্থমন্ত্রীর এপিএস জাভেদ সিরাজের ছোট ভাই যুবলীগ নেতা জামসেদ সিরাজ, তার অনুসারী সুমন দাস, কবির আহমেদ, রুবেল দাস ও জুবেল মিয়া তাকে নির্মম ভাবে হত্যা করে, (৪) ২২ মার্চ চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে দলীয় কোন্দলে বারৈয়াঢালা ইউনিয়ন যুবলীগ সদস্য রিয়াজ উদ্দিন নয়ন আহত হয়ে ২৩ মার্চ মারা যায়, (৫) ১১ জুন বরিশালের বাকেরগঞ্জে ফরিদপুর ইউপিতে আওয়ামী লীগের সদস্য মহিউদ্দিন হাওলাদারকে কুপিয়ে খুন করে যুবলীগ নেতা ও ইউপি মেম্বার মামুন, তার সহযোগী বশির খান এবং ছগির গাজী। এ সময় তারা তার পায়ের রগ ককেটে দেয়, (৬) ১৪ জুন রাজশাহীর বাগমারায় হামিরখৎনা ইউনিয়ন যুবদল সভাপতি স্বর্ণ ব্যাসায়ী আলতাফ হোসেনকে গলাকেটে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ইউনিয়ন যুব লীগ সভাপতি রেজা আলমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ, (৭) ২৭ জুলাই নোয়াখালীর চৌমুহনী পৌর যুবলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে মাসুদ নামে এক কর্মী নিহত হয়েছে, (৮) ৩০ জুলাই নোয়াখালী সদরে গরিপুর গ্রামে মটর সাইকেল যোগে বাড়ি যাওয়ার পথে আব্দুল আজিজ জিমেল ও তার পিতা আফসার উদ্দিনকে গুলী করে মারাত্মক আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আব্দুল আজিজ জিমেল মারা যায়। উল্লেখ্য যুবলীগ-ছাত্রলীগ ১৮ জুলাই তাদের উপর হামলা করে, (৯) ৪ আগস্ট নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের চৌধূরীর হাটে যুবলীগের সমর্থক আবু সুফিয়ানকে গুলী করে ও কুপিয়ে হত্যা করে অপর নেতা আজাদ এবং তার অনুসারীরা। উল্লেখ্য, যুবলীগ নেতা আজাদ ২০১৩ সালে চায়না প্রবাসী ও যুবলীগ নেতা ফারুককে হত্যা করে। সেই হত্যা মামলায় আজাদ ৩ আগস্ট জামিনে মুক্ত হয়ে আবু সুফিয়ানকে হত্যা করে, (১০) ৮ আগস্ট নেত্রকোনার পূর্বধলায় হোগলা গ্রামের দলীয় কোন্দলে হোগলা ইউনিয়ন যুবলীগ যুগ্ম-আহবায়ক হাবিবুর রহমান তুলা খুন হয়, (১১) ৩১ আগস্ট খুলনায় মাদক ব্যবসা, আধিপত্য বিস্তার ও দলীয় কোন্দলে যুবলীগের হাতে ছাত্রলীগ নেতা রোহান খুন হয়, (১২) ১৬ সেপ্টেম্বর ঢাকার মতিঝিলে দলীয় কোন্দলে দক্ষিন যুবলীগ ১০নং ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী রিজভী হাসান বাবু আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৭ সেপ্টেম্বর এ্যাপলো হাসাপাতালে মারা যায়, (১৩) ১৪ নভেম্বর ঝালকাঠির রাজাপুরে সাতুরিয়া গ্রামের  বকুলতলা এলাকায় পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ার মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল সালাম খানকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। পরে নিহতের ছেলে শামসুল ইসলাম মুরাদ সাতুরিয়া যুবলীগ নেতা শাহ অলম ও ইউপি সদস্য মুস্তাফিজুর রহমান বাচ্চুকে অভিযুক্ত করে মামলা করে, (১৪) ১১ ডিসেম্বর চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানাধীন আলকরণ এলাকায় যুবলীগের সাথে কোন্দলে ও সংঘর্ষে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ইব্রাহিম মানিক খুন হয়। ঘটনায় রানা নামে একজন যুবলীগ নেতাকে আহত অবস্থায় গ্রেফতার করা হয় এবং (১৫)  ২৮ ডিসেম্বর ফেনী সদরের মমতাজ মিয়ারহাটে মহাদেব পূজার টাকা ভাগাভাগি নিয়ে দলীয় কোন্দলে রুবেল গ্রুপের হাতে খুন হয়েছে যুবলীগ নেতা সোহেল।
শ্রমিক লীগ ঃ (১) ৯ মার্চ নাটোরে পূর্ব শত্রুতা ও দলীয় কোন্দলে গুলীবিদ্ধ শ্রমিক লীগ নেতা মাসুদ রানা চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। উল্লেখ্য, গত ২০ ফেব্রয়ারি মাসুদ রানা প্রতিপক্ষের হাতে আহত হয়। মাসুদের ছোট ভাই রনি অভিযোগ করেন এই মামলার আসামী আফজাল, রফিকুল, সুমন ও রতন আওয়ামী লীগের এক নেতার ঘনিষ্ট লোক।
স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঃ (১) ২৩ জুলাই পাবনা শহরে কেন্দ্রীয় বাস টামির্নাল এলাকায় দলীয় কোন্দল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পাবনা পৌর দোহারপাড়া মহল্লায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ প্রচার সম্পাদক আমিন উদ্দিন খুন হয়, (২) ১৭ অক্টোবর নারায়নগঞ্জের পাগলায় আধিপত্য বিস্তার, চাঁদাবাজী ও ডিস ব্যবসা নিয়ে দ্বন্দ্বে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মির হোসেন মিরু বাহিনীর সন্ত্রাসী শাকিলের হাতে জনতা লীগ নেতা শেখ স্বধীন হোসেন মনির আহত হয়ে ১৮ অক্টোবর মারা যায় (৩) ১ নভেম্বর দিনাজপুর সদরে তৈয়বা মজুমদার ব্লাড ব্যাংকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নির্যাতনে মঞ্জুরুল ইসলাম নামে এক যুবক নিহত হয়। নিহতের পরিবার দাবী করে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সিরাজুস সালেকিন রানার নেতৃত্বে তরিকুল ইসলামসহ পাঁচ-ছয় জন তাকে তুলে নিয়ে ২৫ অক্টৈাবর আহত করে। এ সময় তারা প্লাস দিয়ে তার নখ তুলে ফেলে, ব্লেড দিয়ে শরীরে বিভিন্ন স্থানে কেটে লবন ও কাচা মরিচ লাগায় এবং বৈদ্যুতিক শক দিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে।
বিএনপি ঃ (১) ১৫ মার্চ বগুড়ার শিবগঞ্জে নির্বাচনী দ্বন্দ্বের জেরে বিএনপির হাতে আওয়ামী লীগের মাহতাব আলী নামে ১ জন খুন হয় এবং (২) ২৬ মে কক্সবাজারের রামুতে বিএনপির দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত হয় নজির আহমেদ। পরে ২৯ মে তিনি মারা যায়।
ছাত্র দল ঃ (১) ২৬ মে ভোলা সদরে রাজাপুর ইউনিয়নের জনতা বাজারে ছাত্রদল ইউনিয়ন সভাপতি নিজাম উদ্দিনকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে রুম্মাান হোসেন নামে একজন নিহত এবং বিশ জন গুলীবিদ্ধসহ আহত পঞ্চাশ জন।
শ্রমিক দল ঃ (১) ১৫ মে বিএনপির কেন্দ্রীয় অফিসে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে শ্রমিক দল ঢাকা মহানগর দক্ষিনের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ধানমন্ডি থানা শ্রমিক দল সভাপতি বাবুল সরদার নিহত হয়।
জাপা : (১) ৮ জানুয়ারি বগুড়ার শান্তাহারে পৌর নির্বাচন উত্তর আওয়ামী লীগ-জাতীয় পার্টির মধ্যে সংঘর্ষে যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম নিহত ও শ্রমিক লীগ কর্মী সোহাগসহ চব্বিশ জন আহত হয়েছে, (২) আহত শ্রমিক লীগ কর্মী সোহাগকে ঢাকায় উন্নত চিকিসার জন্য নেয়ার পথে ৯ জানুয়ারি মারা যায়, (৩) ১২ এপ্রিল খুলনা ফুলতলার দামোদর কোলোনী পাড়ায় রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে জাতীয় পার্টির হাতে নিহত হয়েছে আওয়ামী লীগের আবুল আলী লস্কর, (৪) ৩ মে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে আওয়ামী লীগ ও জাপার মধ্যে সংঘর্ষে আহত আওয়ামী লীগ কর্মী মজিবুর রহমান মারা যায়। উল্লেখ্য, গত ১৬ এপ্রিল এক সংঘর্ষে মজিবুর রহমান আহত হয় এবং (৫) ৮ মে ময়মনসিংহের সদরে পরানগঞ্জ ইউপি নির্বাচনে ৫নং ওয়ার্ডের কৃষ্টপুর গ্রামে মেম্বার পদে বিএনপির প্রার্থী বিজয়ী হলে জাতীয় পার্টির পরাজিত প্রার্থী জামসেদ আলীর লোকজন তাদের ওপর হামলা করলে এনামুল হক আহত হয়। ৯ মে আহত তিনি মারা যান।
হিজবুত তাওহীদ সংশ্লিষ্ট : (১) ১৪ মার্চ নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে শরীয়তী মতভেদ নিয়ে হিজবুত তাওহীদের সাথে চাষীর হাট ও পোরকরা গ্রামে সংঘর্ষে হিজবুত তাওহীদের তিনজন, এক গ্রামবাসী নিহত হয়। নিহতরা হলো- হিজবুত তাওহীদের সোলায়মান খোকন, (২) ইব্রাহিম রুবেল ও (৩) আব্দুস সুবহান এবং (৪) গ্রামবাসী মজিবুল হক। তবে গ্রাম বাসীদের হিংস্রতা এতো দুর গড়িয়েছে যে, নিহত হিজবুত তাওহীদের তিন জনকে তারা জাবাই করে হত্যা করে।  [সমাপ্ত]

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ