ঢাকা, শনিবার 07 January 2017, ২৪ পৌষ ১৪২৩, ০৮ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সাঁথিয়ায় গরু চোরের দলনেতা আটক

সাঁথিয়া (পাবনা) সংবাদদাতা : পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার ধুলাউড়িতে গরু চুরি করতে গিয়ে এলাকাবাসীর হাতে চোরের দলনেতা আটক হয়েছে। চোরদের ব্যবহৃত মাইক্রোবাসে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। আটককৃতকে উদ্ধার করে সাঁথিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ।
এলাকা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দিন গত রাত ২ টার দিকে উপজেলার ধুলাউড়ি ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া গ্রামে একদল গরু চোর প্রবেশ করে। তারা গ্রামের মৃত এলাহীর ছেলে আব্দুল আলিম ও একই গ্রামের রহমত আলীর গোয়াল ঘর থেকে ৪টি গরু চুরি করে ট্রাকে উঠানোর চেষ্টা করে। এসময় গরুর মালিক টের পেয়ে লোক জনকে ডাকাডাকি করে চোরদের ধাওয়া করে। এলাকাবাসী ধাওয়া দিয়ে আন্তঃ জেলা চোর দলের দলনেতা পাবনার সাতিয়ানি গ্রামের লিটন হোসেন (৩৮) কে আটক করেন।
এছাড়াও ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী চোরদের ব্যবহৃত মাইক্রো বাসটি আটক করে তাতে অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে দেন।
সংবাদ পেয়ে সাঁথিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় আটক চোরকে উদ্ধার করে সাঁথিয়া হাসপাতালে শুক্রবার ভোরে ভর্তি করেন।
ধুলাউড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জরিফ আহমেদ জানান, রাতে সংঘবদ্ধ চোর গরু চুরি করতে আসলে এলাকাবাসী এক চোরকে আটক করে ও তাদের ব্যবহৃত মাইক্রো বাসে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। তিনি আরও জানান, এলাকায় ঘন ঘন গরু ও দোকানে চুরির ঘটনা ঘটছে। এতে এলাকাবাসী দিশেহারা হয়ে পড়েছে।
এদিকে গত ২ জানুয়ারি সোমবার উপজেলার রঘুরামপুর গ্রামে গরু চুরির ঘটনায় এলাকাবাসী সন্দেহ ভাজন চোর পাগলা গ্রামের আয়নুদ্দিনের ছেলে আওয়াল হোসেন (৪০) কে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন। এবং গত ৫ জানুয়ারি  পৌরসভার পূর্বভবানীপুর গ্রামের ইউনুস আলী মাস্টারের ২ টা গরু চুরি হয়। বর্তমানে উপজেলাব্যাপী গরু পালনকারীরা চোর আতংকে ভুগছে।
সাঁথিয়া থানার ওসি নাসির উদ্দিন গরু চুরির ঘটনা ও মাইক্রো বাসে অগ্নিসংযোগের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন আটককৃত ব্যক্তি চোর দলের দল নেতা। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ