ঢাকা, মঙ্গলবার 10 January 2017, ২৭ পৌষ ১৪২৩, ১১ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রাজনীতিকদের উৎখাতে ইসরাইলী ষড়যন্ত্রের তদন্ত দাবি ব্রিটিশ এমপিদের

৯ জানুয়ারি, আল জাজিরা/বিবিসি/দ্য গার্ডিয়ান : ফিলিস্তিনী ভূখণ্ডে অবৈধ ইসরাইলী বসতি স্থাপনবিরোধী ব্রিটিশ রাজনীতিকদের উৎখাতের ইসরাইলী প্রচেষ্টায় কঠোর প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন যুক্তরাজ্যের এমপিরা। আল জাজিরা টেলিভিশনের গোপন ক্যামেরায় ধারণ করা ওই ভিডিও প্রকাশের পর বিষয়টি নিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন লন্ডনে নিযুক্ত ইসরাইলের রাষ্ট্রদূত মার্ক রেগেভ। তবে পুরো ঘটনার বিশদ তদন্ত দাবি করেছেন যুক্তরাজ্যের সিনিয়র এমপিরা।
ইসরাইল-এর উৎখাত প্রচেষ্টার সম্ভাব্য হুমকির মুখে ছিলেন যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যালান ডানকানসহ ফিলিস্তিনের প্রতি সহানুভূতিশীল ব্রিটিশ এমপিরা। এ ঘটনাকে গভীর উদ্বেগজনক হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন লেবার পার্টির ছায়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমিলি থর্নবেরি। তিনি যুক্তরাজ্যের রাজনীতিতে সম্ভাব্য হস্তক্ষেপের ব্যাপ্তি নিয়ে তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন।
আল জাজিরা’র প্রকাশিত ফুটেজে দেখা যায়, শাই মাসোত নামের ইসরাইল দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা কয়েকজন ব্রিটিশ এমপি সম্পর্কে ‘অগ্রহণযোগ্য’ মন্তব্য করছেন। তিনি তাদের ক্ষমতা থেকে উৎখাতের প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করেন। ব্রিটিশ শিক্ষামন্ত্রী রবার্ট হাফলনের সহযোগী মারিয়া স্ট্রিজোলোর সঙ্গে এক রেস্তোরাঁয় বসে আলাপকালে তাদের মধ্যে এ কথোপকথন হয়। একজন বিদেশী কূটনীতিকের এমন আচরণ যে কোনও ধরনের কূটনৈতিক শিষ্টাচার লঙ্ঘনের শামিল বলে উল্লেখ করেছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো।
শাই মাসোত নামের ইসরাইল দূতাবাসের ওই কর্মকর্তা ফ্রেন্ডস অব ইসরাইলের রাজনৈতিক পরিচালক। তিনি একজন গোপন প্রতিবেদক হিসেবেও কাজ করেন।
এক বিবৃতিতে ব্রিটেনের মাটিতে ইসরাইলের এমন আচরণের সমালোচনা করেছেন ব্রিটেনের ছায়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমিলি থর্নবেরি। তার ভাষায়, ‘বিষয়টির নিষ্পত্তি হয়ে গেছে। পররাষ্ট্র দফতরের এমন বক্তব্য যথেষ্ট নয়। এটি একটি জাতীয় নিরাপত্তা ইস্যু। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত দূতাবাস কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা উচিত। সরকারের উচিত দ্রুত এই অন্যায্য হস্তক্ষেপের পরিধি নিয়ে তদন্ত শুরু করা। ইসরাইল সরকারের প্রতি এর ইতি টানার আহ্বান জানাচ্ছি।
ব্রিটিশ রাজনীতিকদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে জড়িত ইসরাইলী কূটনীতিককে তার নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছেন স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি (এসএনপি)-এর প্রভাবশালী নেতা পার্লামেন্টারিয়ান অ্যালেক্স স্যালমন্ড।
অ্যালেক্স স্যালমন্ড বলেন, ‘বরিস জনসন (ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী)-এর উচিত এ মুহূর্তেই শাই মাসোত-এর কূটনৈতিক পদমর্যাদা বাতিল করা। তাকে দ্রুত দেশ থেকে অপসারণ করুন। হয়তো তখন ইসরাইল সরকারের প্রতিনিধিরা পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে নির্বোধের চেয়ে কম কিছু ভাববে।’
এদিকে এ ষড়যন্ত্রের ভিডিও প্রকাশ এবং এর প্রতিক্রিয়ায় ব্রিটিশ রাজনীতিকদের কঠোর প্রতিক্রিয়ার ঘটনায় এ বিষয়ে একটি বিবৃতিতে দিয়েছে লন্ডনের ইসরাইল দূতাবাস। বিবৃতিতে মাসোতের মন্তব্যকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলে উল্লেখ করে বলা হয়, এজন্য ‘ইসরাইল দায়বদ্ধ নয়।এতে ইসরাইলের পররাষ্ট্রনীতির প্রতিফলন ঘটেনি।’
বিবৃতিতে বলা হয়, ‘দূতাবাসের একজন নিম্নপদস্থ কর্মকর্তা ওই মন্তব্য করেছেন। তিনি ইসরাইলী কূটনীতিক নন। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই দূতাবাসে তার কাজের মেয়াদ শেষ হবে। লন্ডনে নিযুক্ত ইসরাইলী রাষ্ট্রদূত মার্ক রেগেভ  শুক্রবার ব্রিটিশ প্রতিমন্ত্রী অ্যালান ডানকানের সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি মাসোতের আক্রমণাত্মক মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন। বলেছেন, মাসোতের ওই মন্তব্য পুরোপুরি অগ্রহণযোগ্য।’
ইসরাইল দূতাবাস থেকে মাসোতকে ‘কূটনৈতিক নন, সাধারণ নিম্নপদস্থ কর্মকর্তা’ বলে উল্লেখ করলেও মাসোতের লিঙ্কড ইন প্রোফাইলেও তার পরিচয় স্পষ্ট। মাসোত ইসরাইল প্রতিরক্ষা বাহিনীতে ২০০৪ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত গাজায় পেট্রল বোটে কাজ করতেন। তিনি সেখানে মেজর পদে কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে লন্ডনে ইসরাইলী দূতাবাসে প্রতিরক্ষা বাহিনীর একজন জ্যেষ্ঠ রাজনৈতিক কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন তিনি।
ফাঁস হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, মারিয়ার সঙ্গে আলোচনার এক পর্যায়ে মাসোত বলেন, ‘আপনি কি আমাকে কয়েকজন এমপি-র নাম বলতে পারেন, যাদের আমি উৎখাত করতে পারি?’
জবাবে মারিয়া বলেন, ‘সব এমপিরাই কিছু না কিছু লুকোতে চায়। আমি কয়েকজন এমপিকে উৎখাত করতে চাই।’
ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন সম্পর্কে শাই মাসোত মন্তব্য করেন, ‘খারাপ নন, ভালোই’। তবে তিনি বেশি উদ্বিগ্ন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যালান ডানকানকে নিয়ে। অ্যালান বহু আগে থেকেই ইসরাইলের সমালোচক এবং ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের একনিষ্ঠ সমর্থক বলে পরিচিত।
ইসরাইলী কূটনীতিক শাই মাসোত বলেন, “তিনি (জনসন) কোনও কিছু পরোয়া করেন না। কোনও দায়িত্বজ্ঞানহীনতা ছাড়াই তার মতো একজন ‘বোকা’ পররাষ্ট্রমন্ত্রী হয়েছেন। তবে আসলেই যদি এমন কিছু (উৎখাত করা) হয়, এটা তার ভুলের জন্য নয়। বরং এর জন্য দায়ী থাকবেন অ্যালান ডানকান।”

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ