ঢাকা, বুধবার 11 January 2017, ২৮ পৌষ ১৪২৩, ১২ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ট্রাম্পের জামাতা কুশনারকে ডেমোক্র্যাটদের চ্যালেঞ্জ

১০ জানুয়ারি, বিবিসি : নিজের মেয়ের জামাই জ্যারেড কুশনারকে শীর্ষ উপদেষ্টা পদে নিয়োগ দেওয়ার ব্যাপারে ডোনাল্ড ট্রাম্প যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়েছেন ডেমোক্র্যাটরা। স্বজনপ্রীতি এবং স্বার্থজনিত দ্বন্দ্বের বিষয় মাথায় রেখে এ সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছেন তারা। অবশ্য কুশনারের আইনজীবীর দাবি, এ নিয়োগের মধ্য দিয়ে স্বজনপ্রীতিবিরোধী আইন লঙ্ঘন হবে না। গত সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত ডোনাল্ড ট্রাম্প জামাতা জ্যারেড কুশনারকে হোয়াইট হাউসে তার জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার ঘোষণা দেন। অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ে ট্রাম্পকে বিভিন্ন বিষয়ে উপদেশ দেবেন ৩৫ বছর বয়সী কুশনার। ট্রাম্পের মেয়ে ইভানকার স্বামী কুশনার একজন রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী। এছাড়াও তার বিভিন্ন ব্যবসা রয়েছে। নিউ ইয়র্কে ট্রাম্প টাওয়ারের কাছেই রয়েছে তার বহুতল ভবন। মাত্র ২৫ বছর বয়সে কুশনার নিউ ইয়র্ক অবজারভার সংবাদপত্রটি কিনে নেন।
ট্রাম্পের মুখপাত্র কেলিঅ্যান কোনওয়ে এই খবরটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেছেন, ‘এটি আজকের দিনের সবচেয়ে ভালো খবর।’
ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ডেমোক্র্যাটদের একটি দল চাইছে, জ্যারেড কুশনারের নিয়োগের ব্যাপারে যে আইনি ইস্যুগুলো রয়েছে তা বিচার বিভাগ এবং গভর্নমেন্ট এথিকস কার্যালয় থেকে সূক্ষ্ণভাবে খুঁটিয়ে দেখা হোক। এক চিঠিতে ডেমোক্র্যাট পার্লামেন্ট সদস্যরা এবং হাউস জুডিশিয়ারি কমিটির সকল সদস্য দাবি করেছেন এক্ষেত্রে ১৯৬৭ সালের স্বজনপ্রীতিবিরোধী আইনের আওতায় শক্ত একটি মামলা করা যেতে পারে। তাদের আশঙ্কা, হোয়াইট হাউসে শীর্ষ উপদেষ্টার পদে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে কুশনার কিছু ব্যক্তিগত সুবিধা নিতে পারেন। নিজের ব্যবসায়িক স্বার্থের ক্ষেত্রে সুবিধা যেন হয় সেভাবে নীতিমালাকে প্রভাবিত করতে পারেন তিনি।
কুশনারের আইনজীবী দাবি করেছেন, কেন্দ্রীয় নীতিগত আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রাখার ব্যাপারে তার মক্কেল বদ্ধপরিকর এবং এ ব্যাপারে কী পদক্ষেপ নিতে হবে তা নিয়ে অফিস অব গভর্নমেন্ট এথিকসের সঙ্গে তিনি আলাপ করবেন। উপদেষ্টা পদের জন্য কুশনার পারিশ্রমিক নেবেন না বলেও জানিয়েছেন আইনজীবী।
ফেডারেল এথিকস আইন অনুসারে, কোনও ব্যবসা থেকে লভ্যাংশ ভোগকারী ব্যক্তি হোয়াইট হাউসে নিয়োগ পাবেন না। তবে কুশনারের আইনজীবী দাবি করেছেন তার মক্কেল নীতিগত আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে কুশনার তার পারিবারিক ব্যবসা এবং নিউ ইয়র্ক অবজারভারের প্রকাশকের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেবেন।  

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ