ঢাকা, বুধবার 11 January 2017, ২৮ পৌষ ১৪২৩, ১২ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ব্রেক্সিট নিয়ে থেরেসা মে’র মন্তব্যে পাউন্ডের দরপতন

১০ জানুয়ারি, আলজাজিরা : যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সাথে আর কোন সম্পর্ক রাখবে না বলে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র মন্তব্যের পর ব্রিটিশ পাউন্ডের দরপতন ঘটেছে। গত রোববার স্কাই নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে থেরেসা মে ওই মন্তব্য করেন।
এ সাক্ষাৎকার যুক্তরাজ্যের ওপর অনেকটাই নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। মাত্র ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ডলারের বিপরীতে পাউন্ডের বিনিময় হার কমে দাঁড়ায় মাত্র ১.২১ ডলার, যা ১৯৮৫ সালের পর সর্বনিম্ন। গত বছরের জুন মাসে ইইউ থেকে বেরিয়ে আসার পক্ষে গণভোটের আগেও পাউন্ডের বিনিময় মূল্য ছিল ১.৪৬ ডলার।
সাক্ষাৎকারে থেরেসা মে বলেন, ‘অধিকাংশ মানুষই ভাবে আমরা ইইউ ত্যাগ করলেও এটির সাথে অল্প কিছু সম্পর্ক রাখব। তবে সেটি একদম ভুল। আমরা ইইউ ত্যাগ করছি, এটি থেকে আমরা বেরিয়ে আসছি। আমার আর ইইউর সদস্যপদ রাখতে চাই না।’
পাউন্ডের মূল্য কমে যাওয়ায় আন্তর্জাতিক বাজারে ব্রিটিশ পণ্যের মূল্যও কমে যাবে। আর পণ্যের সঠিক মূল্য না পাওয়ায় ব্রিটেন পাউন্ডের মূল্য বাড়াতে বাধ্য হবে। তার ফলে ব্রিটেনের উৎপাদিত পণ্যের চাহিদাও অনেকটাই কমে যাবে। ইইউ থেকে বের হওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর থেকেই আন্তর্জাতিক বাজারের বিনিয়োগকারীরা যুক্তরাজ্যে ব্যবসা করতে অনেকটাই ভরসা পাচ্ছেন না। ইইউর সাথে সম্পর্ক রাখায় এই মুদ্রার মূল্যের অনেকটাই উন্নতি হয়েছিল।
তবে ইইউ থেকে বেরিয়ে আসতে হলে ব্রিটেনকে ইউরোপীয় একক বাজার ছেড়ে দিতে হবে। এর মানে দাঁড়ায়, এটি আর ইউরোপে কর ছাড়া বাণিজ্য করতে পারবে না। এতে করে তাদের পণ্যের বাজার মূল্য চড়া হয়ে যাবে এবং তাদের পণ্যের চাহিদাও কমে যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ