ঢাকা, বুধবার 11 January 2017, ২৮ পৌষ ১৪২৩, ১২ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

১০ দিনেও এমপি লিটন হত্যা রহস্যের জট খুলেনি

গাইবান্ধা সংবাদদাতা : সুন্দরগঞ্জ আসনের দুর্বৃত্ত কর্তৃক নিহত সরকার দলীয় এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যাকাণ্ডের ১০ দিন অতিবাহিত হলেও খুনের প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের জট এখনো খুলছে না।

গত ৩১ ডিসেম্বর দুর্বৃত্তদের হাতে এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, পিবিআইসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা খুনের প্রকৃত রহস্য উদঘাটনসহ খুনীদের গ্রেফতারে ময়িরা হয়ে উঠেন। এ পর্যন্ত সুন্দরগঞ্জসহ জেলার বিভিন্ন থানায় ৬১ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের পর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। এর মধ্যে ৭ জনকে ৭ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। দীর্ঘ ১০ দিন থেকে আটক, গ্রেফতার ও রিমান্ডে নিয়ে তদন্তকারীরা জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রেখে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করতে না পারায় এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডের জট এখনো ‘যে তিমিরে ছিল সে তিমিরেই রয়ে গেছে’।

এদিকে পুলিশ সুত্র থেকে এমপি লিটন হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে প্রকৃত কোন তথ্যই পাওয়া যাচ্ছে না। তারা তদন্তের অজুহাতে এখনো বিষয়টি চাপা রাখছেন। এমনকি আটক ও গ্রেফতারকৃতদের আদালতে পাঠানো সত্বেও তাদের সংখ্যা, মামলার ধরন বা নাম জানাতেও তারা গরিমশি করছেন। এ নিয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবু হায়দার মোহাম্মদ আশরাফুজ্জামান জানান আটককৃতদের মধ্যে অনেকেউ জামায়াত-শিবিরের নেতা-কর্মী ও অর্থ যোগানদাতা। এছাড়া যাদের রিমান্ডে আনা হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কাছ থেকে এমপি লিটন হত্যায় অনেক কিছুই জানা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। থানা অফিসার ইনচার্জ আতিয়ার রহমান জানান, রিমান্ডে আনা ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদে এমপি লিটন হত্যার বিষয়ে ভালো তথ্য পাওয়া যাবে বলে আশাবাদী। এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডের দীর্ঘ ১০ দিন অতিবাহিত হলেও প্রকৃত রহস্য ও হত্যাকারীদের সনাক্ত করতে না পারায় উপজেলার রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্কসহ চাপা ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। 

আরো একজনের রিমান্ড : এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার সন্দেহে গ্রেফতারকৃত সুন্দরগঞ্জ পূর্ব থানা জামায়াত আমীর সাইফুল ইসলাম মন্ডলকে ৬ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার বিকেল পৌনে ৪টার দিকে গাইবান্ধার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের (সুন্দরগঞ্জ) বিচারক মো মইনুল হাসান ইউসুব শুনানি শেষে এ রিমা- মঞ্জুর করেন। সাইফুল ইসলাম মণ্ডল চ্যাংমারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও দক্ষিণ শ্রীপুর গ্রামের আব্দুস সাত্তার মন্ডলের ছেলে।

শোকসভা, প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল : এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডের পর থেকে উপজেলায় শোক সভা প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অব্যাহত রয়েছে। গত সোমবার বামনডাঙ্গায় নিহত এমপি লিটনের নিজবাড়ি মাস্টারপাড়া এলাকাবাসির আয়োজনে এক বিক্ষোভ মিছিল বের করে বামনডাঙ্গা বন্দর ও কাঠগড়া এলাকা প্রদক্ষিণ শেষে শহীদ লিটন মঞ্চে এক প্রতিবাদ সভা সমেস উদ্দিন বাবুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, শহিদুল ইসলাম শহীদ, আরিফুল ইসলাম রাসেল, ফয়সাল, নাদিম, আশরাফুল, মোসকেকুল ইসলাম বিয়াল, ছামিউল ইসলাম ছামু, আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ। বক্তারা এমপি লিটন হত্যাকারীদের গ্রেফতারের ২৪ ঘন্টা অল্টিমেটাম দিয়ে বলেন অন্যথায় দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। এছাড়া বামনডাঙ্গা বহুমুখী জনকল্যাণ সংর্ঘের আয়োজনে শোকসভা প্রভাষক হাদিউল ইসলাম রাকিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, মাহবুর রহমান খান, প্রভাষক আব্দুল্লাহহিল রাসেল, আইয়ুব আলী, মনোয়ারুল ইসলাম, ইসমাইল হোসেন মুক্তি, আতিবর রহমান প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ