ঢাকা, বুধবার 11 January 2017, ২৮ পৌষ ১৪২৩, ১২ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বারহাট্টায় ইউপি সদস্য লাঞ্ছিত থানায় মামলা

নেত্রকোনা সংবাদদাতা : নেত্রকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ শফিকুল ইসলামকে প্রকাশ্য দিবালোকে অসংখ্য লোকজনের সামনে লাঞ্ছিত ও মারধর করার ঘটনায় তিন জনের বিরুদ্ধে বারহাট্টা থানায় মামলা হয়েছে। ইউপি সদস্য মোঃ শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে এই মামলা দায়ের করেন।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে প্রকাশ, বারহাট্টা উপজেলার রতœপুর গ্রামের হাজী আবির উদ্দিন তালুকদারের পুত্র রায়পুর ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ শফিকুল ইসলামের সাথে টাকা লেনদেন নিয়ে কান্দাপাড়া গ্রামের মৃত ফজ রহমানের পুত্র নজরুল ইসলামের বিরোধ দেখা দেয়। ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম গত ৭ জানুয়ারি দুপুর ১২টার দিকে পরিষদের দায়িত্ব পালনের জন্য বাড়ী থেকে বের হয়ে ফকিরের বাজারস্থ জুয়েল মিয়ার কসমেটিকসের দোকানের সামনে পৌঁছলেই পূর্ব থেকে উঁৎ পেতে থাকা নজরুল ইসলাম, তার ভাই জুয়েল মিয়া ও রুবেল মিয়া শফিকুলের পথরোধ করে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। গালিগালাজ শুনে বাজারের অসংখ্য লোকজন উক্ত স্থানে জড়ো হয়। মান সন্মানের ভয়ে শফিকুল তাদেরকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে উপস্থিত লোকজনের সামনেই তাকে কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে মারাত্মক আহত করে এবং তার পকেটে থাকা ১৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আহত ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম কোন মতে পরিষদে গিয়ে তাৎক্ষণিক চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান রাজুসহ অন্যান্য ইউপি সদস্যদেরকে জানালে তাদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। পরিষদের সম্মতিতেই ইউপি সদস্য শফিকুল বাদী হয়ে সন্ত্রাসী নজরুল, জুয়েল ও রুবেলকে আসামী করে ঐদিন রাতেই বারহাট্টা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। 
এ ব্যাপারে রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান রাজুর সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, একজন জনপ্রতিনিধিকে প্রকাশ্য দিবালোকে অসংখ্য লোকের সামনে লাঞ্ছিত ও মারধরের ঘটনা কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায় না। আমি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।
বারহাট্টা থানার ওসি (তদন্ত) স্বপন জানান, এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ