ঢাকা, বৃহস্পতিবার 12 January 2017, ২৯ পৌষ ১৪২৩, ১৩ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

যাদুরহাট কেন্দ্রীয় নতুন মসজিদের কাজের জন্য আর্থিক সহায়তার আবেদন

সৈয়দপুর (নীলফামারী) : যাদুরহাট কেন্দ্রীয় নতুন মসজিদের অবশিষ্ট নির্মাণ কাজ পড়ে আছে

সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা : নীলফামারীর বেড়াডাঙ্গা সোটাপীর যাদুরহাট কেন্দ্রীয় মসজিদটির নতুন ভবনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তবে দরজা-জানালাসহ আনুসঙ্গিক কিছু কাজকর্ম বাকি থাকায় পুরাতন টিনশেড মসজিদের মধ্যেই নামায আদায় করছেন মুসল্লিবৃন্দ। দৃষ্টিনন্দন নতুন মসজিদটি চালু করতে সমাজের দানবীর ব্যক্তিবর্গের সহযোগিতা কামনা করেছেন তারা।
প্রতিশ্রুত সাহায্য-সহযোগিতা পেলে অচিরেই নতুন মসজিদ ভবনটি আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করা হবে বলে জানান মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি সিরাজউদ্দৌলা চৌধুরী।
জানা গেছে, নীলফামারী সদর উপজেলার বেড়াডাঙ্গা যাদুরহাট একটি প্রসিদ্ধ স্থান। সপ্তাহের রবিবার ও মঙ্গলবার এখানকার হাটবার। দূর-দূরান্ত থেকে ক্রেতা-বিক্রেতার সমাগম ঘটে এখানে। কিন্ত ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য নামাযের জায়গার প্রয়োজন হলে ব্রিটিশ আমলে নির্মিত হয় একটি কেন্দ্রীয় মসজিদ। নির্মাণের দীর্ঘদিন হওয়ায় টিনশেডের মসজিদটি জরাজীর্ণ হয়ে পড়ে এবং মুসল্লির সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় স্থান সংকুলান নিয়ে সমস্যা দেখা দেয়। ফলে স্থানীয় যুবক সমাজসেবক সিরাজউদ্দৌলা চৌধুরী নিজ আগ্রহে মসজিদটির উন্নয়নে এগিয়ে আসেন। তিনি পরিচালনা কমিটির সভাপতি মনোনীত হন। আত্মনিয়োগ করেন মসজিদটির উন্নয়নে।
তার প্রচেষ্ঠায় ওই মসজিদের গাঘেঁষে নির্মাণ করা হয় মসজিদের নতুন একটি ভবন। ৯০ বাই ৭০ স্কোয়ার ফুটের দৃষ্টিনন্দন মসজিদটির ইতোমধ্যে ছাদ ঢালাইসহ অন্যান্য কাজ সম্পন্ন হয়েছে। নতুন ভবনের দরজা-জানালাসহ এখনো অনেক কাজ বাকি রয়েছে। এসব সম্পন্ন করতে অনেক টাকার প্রয়োজন। বেড়াডাঙ্গা সোটাপীর যাদুরহাট কেন্দ্রীয় ওই মসজিদটিতে পাঁচ ওয়াক্ত নামাযে অনেক মুসল্লির সমাগম ঘটে। বিশেষ করে হাটের দুদিন মুসল্লি সংখ্যা তুলনামূলক বেশি হয়। নতুন মসজিদ ভবনটি আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করতে অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে বর্তমান পরিচালনা পর্ষদ সমাজের দানবীর ব্যক্তিবর্গের সাহায্য-সহযোগিতা কামনা করেছেন। সাহায্য-সহযোগিতা পাঠানোর জন্য রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, যাদুরহাট শাখায় একটি হিসাব নম্বর খোলা হয়েছে। যার নং-৩৭১৯।
মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি সিরাজউদ্দৌলা চৌধুরী বলেন, কেন্দ্রীয় এ মসজিদের নতুন ভবনটিতে আর্থিক সাহায্যের জন্য বাংলাদেশের সংবিধান রচয়িতা গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তাঁর প্রতিশ্রুত সহযোগিতা ও সকলের পেলে নতুন ভবনটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ