ঢাকা, বৃহস্পতিবার 12 January 2017, ২৯ পৌষ ১৪২৩, ১৩ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হাতিরঝিলে নিহত মোটরসাইকেল আরোহীর পরিচয় শনাক্ত

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর হাতিরঝিলে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তির পরিচয় শনাক্ত হয়েছে। তার নাম আব্দুল মুত্তালিব খোকন। গতকাল বুধবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে এসে নিহতের স্ত্রী মুক্তা পারভীন তার স্বামীর লাশ শনাক্ত করেন।

মুক্তা জানান, তার স্বামীর নাম আব্দুল মুত্তালিব খোকন। তার বাবার নাম মৃত মমতাজ উদ্দিন। বাড়ি পাবনা সদর উপজেলার ময়নামতি গ্রামে। তারা রামপুরার উলন রোডের একটি বাসায় ভাড়া থাকেন। তার স্বামী গুলশানে একটি বায়িং হাউজে চাকরি করতেন। তিনি বলেন, ‘আমি আমার বাড়ি সিরাজগঞ্জের বেলকুচি থেকে ঢাকার মহাখালী বাসস্ট্যান্ডে এসে নামি। আমাদেরকে রিসিভ করতে রামপুরার বাসা থেকে মহাখালী আসার সময় হাতিরঝিলে দুর্ঘটনার শিকার হন স্বামী খোকন’।

বেলা ১২টার দিকে রামপুরা মহানগর প্রজেক্ট সংলগ্ন হাতিরঝিল দিয়ে যাওয়ার সময় হঠাৎ মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তায় পড়ে যায়। এতে মোটরসাইকেলে থাকা দুই আরোহী আহত হন। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত একজনকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত অন্যজনকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। 

শাহজালালে ৭৫ লাখ টাকার ওষুধ জব্দ : হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৭৫ লাখ টাকার আমদানি নিষিদ্ধ ক্যানসারের ওষুধ জব্দ করেছে ঢাকা কাস্টমস। গতকাল বুধবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ ওষুধ জব্দ করা হয় বলে জানিয়েছেন ঢাকা কাস্টমস হাউজের সহকারী কমিশনার ওমর মোমিন। 

তিনি জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় কুয়েত এয়ারওয়েজ কেইউ ২৮৫ যোগে কুয়েত থেকে মোহাম্মদ সাইদ নামে এক যাত্রী আসেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার ওপর নজরদারি করা হয়। পরে যাত্রী সাইদ তার সঙ্গে থাকা তিনটি ব্যাগ রেখে পালিয়ে যান। পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ব্যাগ খুলে ৪৪ হাজার ৬৭৮ পিস বিভিন্ন ধরনের ক্যানসারের ওষুধ জব্দ করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ৭৫ লাখ টাকা। ব্যাগের ট্যাগ নম্বর থেকে যাত্রীর নাম মোহাম্মদ সাইদ বলে জানা যায়। ওষুধ প্রশাসনের নিয়ম অনুযায়ী, ক্যানসারের ওষুধ কার্গোতে আসার কথা। কারণ এ ওষুধ খোলা আনা যায় না। ছাড়পত্র সাপেক্ষে আমদানি করতে হয়। তিনি বলেন, খোলা আনলে নকল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। যাত্রী সাইদ ফের বিদেশে যাতায়াতের সময় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়েছে।

সবুজবাগে নিরাপত্তাকর্মীর ঝুলন্ত লাশ : সবুজবাগ থানার উত্তর বাসাবো এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবনের তৃতীয়তলা থেকে মো. নোমান (৪৫) নামে এক নিরাপত্তাকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নোমান ময়মনসিংহ ফুলবাড়ী উপজেলার পোড়াবাড়ী গ্রামের মৃত সামছুল হকের ছেলে।

সবুজবাগ থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) বাবুল সরকার বলেন, নির্মাণাধীন ওই ভবনে নিরাপত্তাকর্মীর দায়িত্বে ছিলেন নোমান। ভবনের তৃতীয় তলায় রডের সঙ্গে রশি পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় নোমানকে পাওয়া যায়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি আত্মহত্যা। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নোমানের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান এসআই বাবুল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ