ঢাকা, বৃহস্পতিবার 12 January 2017, ২৯ পৌষ ১৪২৩, ১৩ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সাহাবায়ে কেরামের আদর্শে জীবন গড়ুন -জৈনপুরী পীর সাহেব কেবলা 

সম্প্রতি ঢাকা বাসাবোর মাদারটেক আঃ আজিজ স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে বিশাল বার্ষিক ইছালে ছাওয়াব মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মোঃ শাহাব উদ্দীনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মাহফিলে দোয়া, বাইয়াত ও তাফসীর করেন বিশ্ব বিখ্যাত ওলী মাওলানা কারামত আলী (রহঃ) এর ৪র্থ বংশধর ওলীয়ে কামেল চার তরীকার মুরশেদ আমীরে সত্যের ডাক, হাদীয়ে বাঙ্গাল হযরত আল্লামা  সৈয়দ মাহবুবুর রহমান জৈনপুরী পীর সাহেব কেবলা। বিশেষ আকর্ষণ ছিল : সারা বাংলাদেশে আলোড়ন সৃষ্টিকারী দুই সহোদর কিশোর ও শিশু বক্তা পীরজাদা সৈয়দ মেশকাতুর রহমান জৈনপুরী ও সৈয়দ হোমাইয়াদ মাবরুক জৈনপুরী সাহেবাইন। আরও ওয়াজ করেন প্রফেসর মাওলানা সোহরাব হোসাইন প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন-হযরত মাওলানা মোঃ আবু আব্দুল্লাহ ও ডাঃ মোঃ আব্দুল বাতেন প্রমুখ।

তাফসীরকালে পীর সাহেব বলেন, বর্তমান আখেরী জামানায় বিভিন্ন বাতেল আকীদা পন্থী বিভিন্নভাবে সরলমনা মানুষকে মিডিয়ার মাধ্যমে, তরিকার নামে, দাওয়াতের ছদ্মবেশে, পথভ্রষ্ট ও ফেৎনা ফাছাদে লিপ্ত করছে। আপনারা এই সকল দল ও ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন এবং নিত্য নতুন প্রচারিত মাসলা মাসায়েলে বিভ্রান্ত না হয়ে পুরাতন আলেম ও ওলী আউলিয়াদের প্রদর্শিত পথে চলুন। প্রসঙ্গত পীর সাহেব বলেন :- মরহুম হযরত মাওলানা কারামত আলী (রহঃ) এর হেদায়েতের আলোকে আড়াই কোটি হিন্দু ও বিভিন্ন ধর্মালম্বী মুসলমান হয়ে নূরে ইমান দ্বারা আলোকিত হয়েছেন। বর্তমানে তথাকথিত কতিপয় পীর বেদাতী ও জাদুকর। সর্বশেষ তিনি বলেন, ঈমানী শক্তি ছাড়া মানুষকে ধর্মের আদর্শে অনুপ্রাণিত করা সম্ভব হবে না। তাই আসুন সকলেই প্রতিজ্ঞা করি বাঁচতে হলে গাজী হিসাবে বাঁচবো আর মরতে হলে শহীদ হয়ে মরবো। ন্যায়কে সমুন্নত রাখবো, বাতেলের নিকট কখনও মাথানত করব না। বদরের যুদ্ধে হযরত মায়াজ ও মুয়াজ তরুণ দুই ভাই বিজয় এনেছিলেন। সুতরাং সাহাবায়ে কেরামদের আদর্শে জীবন গড়–ন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ