ঢাকা, শুক্রবার 13 January 2017, ৩০ পৌষ ১৪২৩, ১৪ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

২০২৫ সালের মধ্যে চা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্র ১৩০ মিলিয়ন কেজি

স্টাফ রিপোর্টার : বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, দেশে চায়ের উৎপাদন দিন দিন বাড়ছে। ২০২৫ সালের মধ্যে ১৩০ মিলিয়ন কেজি চা উৎপাদন করা আমাদের টার্গেট।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে (আইসিসিবি) বাংলাদেশ চা প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি। বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, বাংলাদেশ চা সংসদের চেয়ারম্যান আরদাশীর কবির, বাংলাদেশ চা গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক এস এম আলতাফ হোসেন ও টি ট্রেডিং এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শান্তনু বিশ্বাস।

 বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে আমাদের চায়ের চাহিদা বছরে ৭০ মিলিয়ন কেজি। যা ১৯৭১ সালে ছিল মাত্র ৫ দশমিক ৭ মিলিয়ন কেজি। আর ১৯৮০ সালে চা উৎপাদিত হয়েছিল ৪০ মিলিয়ন কেজি। বর্তমানে অর্থাৎ ২০১৬ সালে উৎপাদিত হয়েছে ৮২ দশমিক ৫ মিলিয়ন কেজি। এ হিসাব থেকেই দেখা যায়, চায়ের উৎপাদন ও চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

 অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে দেশের বিকাশমান এ শিল্প টিকিয়ে রাখতে চা চাষিদের ব্যাংক ঋণের সুদের হার কমিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান বাণিজ্যমন্ত্রী। পরে অর্থমন্ত্রী তার বক্তব্যে বিষয়টি এড়িয়ে যান।

চা শিল্পের ১৫০ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো তিন দিনব্যাপী এ চা প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। এতে ১৬টি স্টল ও ৩০টি প্যাভিলিয়ন রয়েছে। দেশি-বিদেশি চাপ্রেমীদের কাছে এ শিল্পকে তুলে ধরার লক্ষ্যেই এ প্রদর্শনী।

বাংলাদেশের চা শিল্পের অবস্থান ও প্রকৃতি, বিভিন্ন ধরনের চা ও চায়ের সঙ্গে সম্পর্কিত বিভিন্ন পণ্যের প্রসার, চা বাগানের নিজস্ব সংস্কৃতি ও কৃষ্টি, ব্লেন্ডার ও চা শিল্পের অংশীদারদের মিলনস্থল এবং চা পর্যটন শিল্পের প্রচার করা হবে এ প্রদর্শনীর মাধ্যমে।

চা প্রদর্শনীর উদ্বোধনের আগে বিটি-১৯ জাতের চা গাছ অবমুক্ত করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও বিটি-২০ অবমুক্ত করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ