ঢাকা, শনিবার 14 January 2017, ১ মাঘ ১৪২৩, ১৫ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সাকিবের ডাবল আর মুশফিকের সেঞ্চুরিতে দিনটি বাংলাদেশের

ওয়েলিংটন টেস্টে সাকিব ডাবল এবং মুশফিক সেঞ্চুরি করার পর -ইন্টারনেট

সংক্ষিপ্ত স্কোর : বাংলাদেশ ১ম ইনিংস : ৫৪২/৭ (তামিম ৫৬, মুমিনুল ৬৪, সাকিব ২১৭, মুশফিক ১৫৯,

ওয়াগনার ১২৪/৩, বোল্ট ১২১/২, সাউদি ১৪৪/২)

রফিকুল ইসলাম মিঞা : হতাশা দিয়েই শুরু হয়েছিল বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফর। প্রথমে ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ। এরপর টি-টোয়েন্টিতেও একই অবস্থা। টেস্টে আরো খারাপ অবস্থা হতে পারে এমনটাই ভেবেছিল অনেকে। কারণ প্রথম দুটি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়া টাইগাররা মানসিকভাবে অনেকটাই পিছিয়ে ছিল। তবে টেস্টে তা হয়নি। কেটে গেছে হতাশা। প্রথম টেস্টেই সাকিব-মুশফিকের ব্যাটে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ ভালো করবে তা প্রথম দিনেই আভাস দিয়েছিল মুশফিক বাহিনী। আর গতকাল দ্বিতীয় দিনে টাইগাররা যা করেছে তাতো এক কথায় অবাক করার মতোই। টেস্টে গতকাল সাকিবের ডাবল সেঞ্চুরি আর মুশফিকের সেঞ্চুরিতে দ্বিতীয় দিনটি শুধু নিজেদের করেই নিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ৫৪২ রান। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এটি বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। চট্টগ্রামে কিউইদের বিপক্ষে আগের সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি ছিল ৫০১ রানের। আজ তৃতীয় দিনে বাংলাদেশ তিন উইকেট হাতে নিয়ে ব্যাট করতে নামবে। দলের পক্ষে সাব্বির ১০ রানে ব্যাটিংয়ে আছেন। যদিও দিনের শেষ বলে সাউদিকে শূন্য রানে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মেহেদী হাসান মিরাজ। 

টেস্ট ক্রিকেটে এমন দিন খুবই কম পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে এর পিছনে বড় অবদান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের। টেস্ট ক্রিকেটে তার প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি আর দেশের পক্ষে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েই সাকিব দিনটি নিজের করে নিয়েছেন। গতকাল সাকিব ডাবল সেঞ্চুরিসহ করেছেন ২১৭ রান। অবশ্য সাকিবের সাথে মুশফিকের অবদানও কম নয়। মুশফিক সেঞ্চুরিসহ করেছেন ১৫৯ রান। ২৩টি চার ও ১টি ছয়ে ২৬০ বলে ১৫৯ রান করেন তিনি। গতকাল সাকিব-মুশফিকের পঞ্চম উইকেট জুটিতে দেশের পক্ষে যে কোন জুটিতে সর্বোচ্চ ৩৫৯ রানের রেকর্ড গড়েই দলকে নিয়ে গেছেন ৫৪২ রানে। সাকিব-মুশফিকের রেকর্ড জুটি দ্বিতীয় দিনেই বাংলাদেশকে চালকের আসনেই বসিয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের মাঠে এটি সফরকারী দলগুলোর যে কোনো উইকেট জুটিতে নতুন রেকর্ডও। সাকিব-মুশফিক ভাঙলেন ৪৪ বছরের পুরনো রেকর্ড। ১৯৭৩ সালে ডানেডিন টেস্টে চতুর্থ উইকেটে ৩৫০ রান যোগ করেছিলেন পাকিস্তানের আসিফ ইকবাল ও মুশতাক মোহাম্মদ। সেটিই ছিল নিউজিল্যান্ডে ভিনদেশি দলগুলোর সর্বোচ্চ জুটি।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে গতকাল দ্বিতীয় দিনে ৩ উইকেটে ১৫৪ রানে শুরু করেছিল বাংলাদেশ। মুমিনুল ৬৪ রানে আর সাকিব ৫ রানে ব্যাটিংয়ে ছিলেন। আগের দিনের সংগ্রহের সঙ্গে গতকাল কোনো রান যোগ না করেই সাজঘরে ফেরেন মুমিনুল। টিম সাউদির বলে বিজে ওয়াটলিংকে ক্যাচ দেন তিনি। ফলে ১৬০ রানে বাংলাদেশ হারায় প্রথম চার উইকেট। তবে পঞ্চম উইকেটে জুটিতে সাকিবের সাথে মুশফিক ব্যাট করতে নেমেই দিনটি তাদের করে নেন। এই জুটি ভাঙ্গার আগেই বাংলাদেশ পৌঁছে যায় ৫১৯ রানে। এ বিশাল সংগ্রহের পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন বাংলাদেশের অভিজ্ঞ দুই খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম। সাকিব নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল আর মুশফিক করেছেন সেঞ্চুরি। মুশফিকের বিদায়ে ভাংগে এই সফল জুটি। তাদের রেকর্ড জুটি থেকে আসে ৩৫৯ রান। দলীয় ৫৩৬ রানে আউট হন সাকিব। নিল ওয়াগনারের বলে ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড হন সাকিব। ২৭৬ বলে ২১৭ রানের ইনিংসে ৩১টি চার মেরেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। এই ইনিংসেই টেস্টে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের রেকর্ড গড়েন তিনি। সাকিব ১৯৯ রানে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের ওভারে চতুর্থ বলে বাউন্ডারি মেরে স্পর্শ করেন ডাবল সেঞ্চুরি। ফলে তৃতীয় বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরিতে নাম লেখান সাকিব। সাকিবের আগের সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি ছিল ১৪৪ রানের। এর আগে বাংলাদেশের হয়ে টেস্টে তামিম আর মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড আছে। তামিম ২০৬ রান আর মুশফিক ২০০ রান করেছিলেন। কিউইদের হয়ে নিল ওয়াগনার ৩টি এবং ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদি দুটি করে উইকেট নিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ