ঢাকা, শনিবার 14 January 2017, ১ মাঘ ১৪২৩, ১৫ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আমাদের সমস্যা আমাদেরকেই সমাধান করতে হবে -শিক্ষামন্ত্রী

চট্টগ্রাম অফিস: শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বলেছেন, দেশের ভবিষ্যৎ বংশধরকে আধুনিক বাংলাদেশের নির্মাতা হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। প্রচলিত ও গতানুগতিক শিক্ষা দিয়ে এটি সম্ভব হবে না। তাই বিশ্বমানের শিক্ষা, জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করতে হবে। শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ হলো গবেষণা করা। গবেষণার মাধ্যমে নতুন জ্ঞান সৃষ্টি করতে হবে। আমাদের সমস্যা আমাদেরকেই সমাধান করতে হবে।
তিনি বলেন, বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদেরকে দ্রুত এগিয়ে যেতে হবে। মন্ত্রী আরও বলেন, ছেলে-মেয়েদের সমান সুযোগ দেয়া হলে দেশের উন্নয়ন নিশ্চিত হবে। বুধবার বিকাল ৩টায় চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষাবর্ষ সমারম্ভ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
সমারম্ভ অনুষ্ঠানের পূর্বে শিক্ষামন্ত্রী নব নির্মিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ম্যুরাল, দেশের একমাত্র এনাটমি মিউজিয়াম ও বৃহৎ ফিশারিজ মিউজিয়াম উদ্বোধন করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ-এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব জনাব মো. সোহরাব হোসাইন এবং চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরী। সমারম্ভ বক্তা হিসেবে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রবীণ শিক্ষক প্রফেসর ড. মইনুল ইসলাম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ফিশারিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ নুরুল আবছার খান, ফুড সায়েন্স এ- টেকনোলজি অনুষদের ডিন প্রফেসর ডা. রায়হান ফারুক, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও প্রক্টর প্রফেসর গৌতম কুমার দেবনাথ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ছাত্রকল্যাণ পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, ইউএসটিসি’র উপাচার্য প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মীর্জা ফারুক ইমামসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও অভিভাবকবৃন্দ।
সমারাম্ভ বক্তা প্রফেসর ড. মইনুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে একটি কৃষি বিপ্লব চলছে। বর্তমানে ৩৯০ লক্ষ টন খাদ্য শস্য উৎপাদন হচ্ছে। উৎপাদনের এ ধারা অব্যাহত রাখার দায়িত্ব বর্তমান ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের। তিনি বলেন, ভারত সরকার বাংলাদেশে গরু আমদানি নিষিদ্ধ করেছে। এটি শাপে বর হবে যদি এদেশের সরকার গবাদি পশু উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে বিপ্লব ঘটাতে পারে।
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ড. মইনুল বলেন, তোমাদেরকে দেশের কথা মনে রাখতে হবে, দেশকে ভালবাসতে হবে। ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয় সেশন জট মুক্ত হওয়ায় তিনি ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয় যেন সেশনজট মুক্ত থাকে সে উদ্যোগ নিতে হবে। তিনি ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়কে সেন্টার অব এক্সেলেন্স হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ